,

মুমূর্ষু ভূমির ক্রন্দন –ফায়াজ শাহেদ

—————-
শত শত উন্নয়নের প্রজাপতি মারা গেলো এইমাত্র;
বন্দুকের নল বেয়ে টশ করে এক ফোঁটা সম্ভাবনা মারা গেলো;
নিষ্পাপ প্রাণের অমলিন রক্ত ঝরে পড়ছে-
পিষ্ঠে যাদের ঝুলানো জ্ঞানের একগুচ্ছ কাগজ
উজ্জ্বল চেহারাধারী সোনালি পুত্রদের
রামদা থেকে;
আমি সেই সম্ভাবনার কথা বলছি;
হায়েনাদের মুখে ত্রিশলক্ষ হৃদপিন্ডের বিনিময়ে অর্জিত সম্ভাবনা যেটি;
অর্জিত ফুলচাষের ভূমি;
সে ভূমিতে ফুলের বদল যুবতীর বাঁচাও বাঁচাও বিলাপ-চাষ হচ্ছে লোকসম্মুখে।
যে ভূমির শুষ্ক মৌসমে বঙ্গবন্ধুর কণ্ঠকাটা রক্ত ছিলো ফসলের সেচ;
কথিত ভূমিতে রক্তের বদল মাদকের সেচ দিচ্ছে
জাতির জনকের অপ্রত্যাশিত পুত্রগণ;
উন্নয়ন শৈল্পিকতার তনয়া ভূমিতে আজও বেঁচে আছেন;
যাঁর শৈল্পিক চিন্তার সাদা আঁচলখানি মানবতার চক্ষুজল মুছে দেয়;
যাঁর আঁচলে শীতার্ত শিশুর মত এগারো লক্ষ রোহিঙ্গাদের আশ্রয়স্থল!
কিন্তু সে আঁচলখানিতে কলঙ্কের চিত্র আঁকা পুত্রগণের বসবাস;
মানবতার এই আঁচলখানিতে কলঙ্কের আঁচড় বসিয়ে দিতে মুহূর্তের কুন্ঠাবোধ করবে না ওরা;
এই ভূমিতে সত্য-দুর্বার সাহসী লেখকদের হাত পা মাথা নাড়িগুড়ি দিয়ে চাটুকার লেখকদের রান্নাবান্না হয়;
তখনি মিথ্যাকে সত্যে নির্মাতার অনিয়ন্ত্রিত জন্ম ঘটে;
যেদিকে তাকাই আজ; সম্ভাবনার ভূমিতে মিথ্যার আধিপত্য;
জাতির জনকের চিন্তা নিয়ে খেলা; তনয়ার আঁচলে চুনকালি মাখার পায়তারা দেখছি; যেদিকে তাকাই মুমূর্ষু ভূমির ক্রন্দন শুনছি।
————
শিক্ষার্থী:চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়

Comments are closed.