,

বিমানবন্দরে কাপাসিয়ার মাদক কারবারি কামালের পাকস্থলি থেকে ৪৬৬ পিস ইয়াবা উদ্ধার

কাপাসিয়া (গাজীপুর) থেকে শামসুল হুদা লিটনঃ

হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে আর্মড পুলিশের হাতে কামাল হোসেন নামের যে মাদক কারবারী পাকস্থলী থেকে ৪৬৬ পিস ইয়াবা সহ আটক হয়েছেন তার পরিচয় পাওয়া গেছে। আটক কামালের বাড়ি গাজীপুরের কাপাসিয়ায়। সে কাপাসিয়া উপজেলার সিংহশ্রী ইউনিয়নের কপালেশ্বর গ্রামের চান মিয়ার পুত্র।

বিমানবন্দর আর্মড পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপারেশন্স অ্যান্ড মিডিয়া) আলমগীর হোসেন বলেন, রবিবার (১ সেপ্টেম্বর) রাতে বিমানবন্দরের অভ্যন্তরীণ টার্মিনালের বহিরাঙ্গন থেকে কামালকে আটক করা হয়।

সে নভোএয়ারের ফ্লাইট ভিকিউ ৯৩৬ যোগে কক্সবাজার থেকে ঢাকায় আসে। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে তার সন্দেহজনক চলাফেরা অনুসরণ করে তাকে আটক করে বিমানবন্দর আর্মড পুলিশ।

আটকের পর কামালকে বিমানবন্দর আর্মড পুলিশের হেফাজতে নিয়ে তল্লাশি ও জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। জিজ্ঞাসাবাদে সে তার পাকস্থলিতে ইয়াবা থাকার কথা স্বীকার করে। এরপর তার পাকস্থলি থেকে ১৩টি খেজুর সদৃশ পোটলা বের করা হয়। যাতে মোট ৪৬৬টি ইয়াবা পাওয়া যায়।

আটক ইয়াবার বাজার মূল্য প্রায় আড়াই লাখ টাকা। জিজ্ঞাসাবাদে কামাল জানিয়েছে, কাপাসিয়ার আবুল হোসেন মাস্টার তাকে ভাড়া করে এবং কক্সবাজার নিয়ে যায়। সেখানে হ্নীলা নামক স্থান থেকে সে ইয়াবা সংগ্রহ করে।

আটক কামালের বিরুদ্ধে বিমানবন্দর থানায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা হয়েছে।
এ দিকে ঢাকায় হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরে পাকস্থলী থেকে ৪৬৬ পিস ইয়াবা সহ কামালের আটকের ঘটনায় কাপাসিয়ায় আলোচনা – সমালোচনার ঝড় বইতে শুরু করেছে। বিমান বন্দরে কাপাসিয়ার মাদক সম্রাট কামালের আটকের ঘটনাটি টক অব দ্যা কাপাসিয়ায় পরিনত হয়েছে। এলাকার সোহেল রানা নামক এজ ব্যক্তি তার প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করে বলেন, কামালকে একবার ধরিয়ে দিয়েছিলাম। পরে থানা পুলিশ তাকে ছেড়ে দিয়ে ছিল। তার নামে কাপাসিয়া থানায় মাদকের মামলা আছে। কামাল লাল কালারের একটা ওয়ান ফাইভ মটর সাইকেল চালায়। এ মোটরসাইকেল দিয়ে সে নিয়মিত কাপাসিয়ার বিভিন্ন স্পটে মাদক সরবরাহ করতো বলে অনেকেই অভিযোগ করেছেন। অনেকেই বলেছেন, আটককৃত কামাল একটি সাধারণ পরিবারের লোক হলেও তার চলাফেরা ও ভাবসাব ছিলো কোটিপতির মতো। এলাকায় প্রভাবশালীদের ছত্রছায়ায় দীর্ঘদিন যাবত সে মাদক ব্যবসার সাথে জড়িত থাকলেও ভয়ে মুখ খুলতে সাহস পায়নি।

Comments are closed.