ঢাকারবিবার , ৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৩
  1. সর্বশেষ
  2. বিশেষ সংবাদ

বিসিকাতাল উদযাপন ও ত্রিপুরা আতিথেয়তা

প্রতিবেদক
নিউজ এডিটর
২৪ ডিসেম্বর ২০২২, ১:৩৬ পূর্বাহ্ণ

Link Copied!

আহমেদ হানিফ।

ত্রিপুরা ভাষায় বিসিকাতাল অর্থ হলো ত্রিপুরাব্দের নতুন বছর উদযাপন অনুষ্ঠান, ত্রিপুরাব্দের ১৪৩৩ সাল উদযাপন উপলক্ষ্যে খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলার সদর উপজেলার ভাইবোন ছড়ার ছোটবাড়ীতে ত্রিপুরা জনগোষ্ঠীর মিলনমেলা বসেছে।৫৯০ খ্রিস্টাব্দে ত্রিপুরা ১১৮ নং মহারাজা হামতরফা কর্তৃক ত্রিপুরা রাজ্যের বঙ্গ বিজয়কে স্মরণীয় করে রাখার জন্য ত্রিপুরাব্দ নামে বর্ষপঞ্জি প্রচলন করেছিলেন।যা বঙ্গাব্দ থেকে তিন বছরের জৈষ্ঠ ২২শে ডিসেম্বর ১লা তালহিং ত্রিপুরাব্দ অনুযায়ী নববর্ষ।যা প্রত্যেক বছর ভারতের ত্রিপুরা রাজ্যসহ বাংলাদেশের বিভিন্ন জেলা,উপজেলায়,পাড়ায় বর্ণিল ভাবে উদযাপন করা হয়।তারই ধারাবাহিকতায় পার্বত্য চট্টগ্রামের ত্রিপুরা জনগোষ্ঠীর লোকজন নানান আয়োজনের মাধ্যমে দিনটি স্মরণীয় করে রাখেন,আলোচনা সভা ও মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে ত্রিপুরাব্দের সমাপ্তি ঘটলেও ত্রিপুরা সম্প্রদায়ের মানুষের সাথে কাটানো দুইটা দিন চিরস্মরণীয় হয়ে মননে বারবার দোলা দিয়ে যাবে,
স্মৃতির ডায়েরির পাতায় দিনগুলো চিরস্থায়ী করতে একটু খাটুনি করা মন্দের ভালো তাই লেখতে বসা-
বিসিকাতাল নিয়ে আগেই বলেছি এবার বলা যাক ত্রিপুরা আতিথেয়তা নিয়ে বন্ধু ধনকিশোর ত্রিপুরার নিমন্ত্রণে চট্টগ্রাম থেকে মায়াবী পাহাড়ি জনপদ খাগড়াছড়িতে অবস্থান করেছি, কি চমৎকার তাদের ব্যবহার তা বলে বুঝাতে পারবো না,তথাকথিত সভ্যদের চোখে হয়তো বিষয়টা অতিমাত্রায় পৌঁছাবে তবে আমার ক্ষেত্রে একটুও বাড়িয়ে বলার অবকাশ নেই।পুরো অনুষ্ঠানজুড়ে কত মানুষের সাথে কথা হলো ভাষাগত একটু সমস্যা পরিলক্ষিত হলেও ভাবের মিলনে মনে হলো সুচারু উপস্থাপন, দুপুরের প্রীতিভোজে ইচ্ছা করেই বিলম্ব করতেছিলাম তখন বোধহয় আয়োজক কমিটির এমন কেউ বাকি নেই যে খাবার গ্রহণ করার জন্য তাগাদা দেয়নি অনেকটা আপন মানুষের প্রতি অনুশাসন করার মতোই।সৌহার্দ্যের যে আসনে তারা বসিয়েছিলো তা কোনো ভাবেই মনে জাগ্রত করেনি আমি তাদের রক্তিয় না,ভাবের মিলনে আমাদের আত্মার আত্মীয় করে তুলেছিলো।ত্রিপুরা জনগোষ্ঠীর মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান জানান দিয়েছে তারা কতটা উন্নত চিন্তাধারার মানুষ, জাগতিক নিয়মে হয়তো তারা পাহাড়ের মানুষ কিন্তু আমার নজরে তেমনটা পরিলক্ষিত হয়নি।
রাতের বেলায় বন্ধুর বাড়িতে অবস্থান করার মাধ্যমে আরেক নতুন আত্মীয়ের সন্ধান ফেলাম বন্ধুর মা,মাসি নিজের ছেলের মতোই আদর আপ্যায়ন করলো গরম রজাই ও পরিপাটি বিছানায় রাত্রি যাপনে মনেই হয়নি দূর্গম পাহাড়ের উপর রাত কাটাচ্ছি। পরিবারের মতোই খোঁজ খবর নেওয়া সকালে চলে আসার সময় ভাঙা বাংলার উচ্চারণে ‘আবার বেড়াতে এসো’ হৃদয়গ্রাহী কথাটি সম্প্রীতির অপূর্ব মেলবন্ধন মনে করছি।নতশিরে আমিও বলে এসেছি আবার আসবো মাসি।
আমাদের সভ্যদের চোখে অনেক সময় তারা বর্বর, সন্ত্রাসী মনে হলেও আপনি তাদের সাথে মিশলে জানতে পারবেন তারা কতটা আন্তরিক, কতটা আপন ভাবে আপনাকে।কিছু দুষ্কৃতকারী মানুষের জন্য আমরা একটা জাতি নিয়ে প্রশ্ন দাঁড় না করিয়ে ভালোবাসার বন্ধনে আবদ্ধ করতে পারলেই বুঝতে পারবো তারা কোন প্রকৃতির মানুষ।

4 Views

আরও পড়ুন

প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ

নাগরপুরে ১৬ প্রহর ব্যাপি শ্রীশ্রী তারকব্রহ্ম মহানাম যজ্ঞানুষ্ঠান অনুষ্ঠিত

কুতুবদিয়ায় নির্মাণ সামগ্রীসহ টিউবওয়েল চুরি

শান্তিগঞ্জে হাওর বাঁচাও আন্দোলন কেন্দ্রীয় ও জেলা নেতৃবৃন্দের হাওর রক্ষা বাঁধ পরিদর্শন

নোয়াখালীতে মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় প্রাণ গেল ব্যবসায়ীর

ঝুঁকি নিয়ে কাজ করতে গিয়ে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে এক যুবকের মৃত্যু

বইমেলায় ‘ঊষাতন চাকমা’র কাব্যগ্রন্থ ‘পাহাড়সম হৃদয়’

রাঙামাটি ভ্রমণে আসা চট্টগ্রাম কলেজের ১৭৫ শিক্ষার্থী পুলিশের ৩ ঘন্টার অভিযানে ডুবোচর থেকে উদ্ধার

গ্রীন ভয়েস এর উদ্যোগে ছাত্র-যুব সমাবেশ অনুষ্ঠিত।

মুক্তা খাতুনের কবিতা ‘আত্মহত্যা’

শিক্ষাবৃত্তি প্রদানে পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ড’র বিরুদ্ধে সাম্প্রদায়িকতার অভিযোগ-পিসিসিপি’

ঘোড়াঘটে জমি নিয়ে বিরোধ,প্রতিপক্ষের ছুরিকাঘাতে প্রাণ গেল গৃহবধুর