ঢাকারবিবার , ৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৩
  1. সর্বশেষ

পাণ্ডিত্যের জাহিরে জ্ঞানের দীনতা

প্রতিবেদক
নিউজ এডিটর
১০ ডিসেম্বর ২০২২, ২:০৮ অপরাহ্ণ

Link Copied!

আহমেদ হানিফ

শহরটা ছেয়ে গেছে নানান রঙের ব্যানার,পোস্টারে। প্রতিটা গলিতে গলিতে আঁকা দেওয়ালিকা কিংবা মাইকের জোড়ালো শব্দে প্রচার চলছে নানান ঢঙে ‘আসুন,সফল মানুষ হতে এখানে! আমরা দিচ্ছি সেরাদের সেরা হওয়ার মন্ত্রনা’ লিফলেটে জ্ঞান বিতরণ চলছে হরেক রকম উৎসব উপলক্ষ্যে।
কাগজের বুকে নীতি কথার গল্প বলে বেড়ালেই কিংবা চমকপ্রদ অফারে জ্ঞান বিতরণের সুযোগ দিলেই কি আমাদের রুচির, চিন্তার পরিবর্তন হবে?
ধরুন মশায় আপনি বিরুদ্ধাচরণে বললেন সফল মানুষের কথা না জানলে অনুপ্রেরণা পাবেন কোথায় থেকে?
কে দিবে আপনাকে জীবন ঘনিষ্ঠ কথাদের সমারোহ সাজিয়ে?
আচ্ছা কসুর গুলো নিজের মাথায় নিয়ে বলছি, সফলতার গল্প শুনিয়ে শুনিয়ে কতক মানুষকে আত্মহত্যার দিকে নিয়ে যাচ্ছেন নাতো?
মেধাবী ছাত্রটির লাশে পরিণত হওয়ার কারণ জানেন?
কুমিল্লার এসএসসি ফেল শিক্ষার্থীটির সুইসাইড নোটের শেষ আহাজারি গুলো মননে কি নাড়া দেয়নি?
নিশ্চয় আপনার চেতনায় আঘাত করেছে, আপনি এমন অপমৃত্যু কামনা করেন নি, আমি জানি খবর গুলো আপনার বিবেককে প্রশ্ন করতো কেন এমন তাজা প্রাণ গুলো ঝড়ে যাচ্ছে নিমিষেই।
আমি নিজেকে শেষ করে দেওয়া দলের পক্ষ নিয়ে সাফাই গাচ্ছি না, সফলতার গল্প বলার মানুষের বিরুদ্ধাচরণ কিংবা নগরের মোড় গুলোর জ্ঞান বিতরণ প্রতিষ্ঠানেরও বিরুদ্ধাচারণ করছি না।
তাহলে আমি কি বলতে চাচ্ছি, আমি বলতে চাচ্ছি পাণ্ডিত্য জাহির করা একদল মানুষের জন্য কিভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে আমাদের সুন্দর আগামীর, সোনার মানুষ হবে যারা তাদের পক্ষ নিয়ে কিছু কথা বলবো।

আত্মহত্যার দিকে ধাবিতকরণ:-
আমার পাশের বাসার একটা ছেলের গল্প দিয়েই শুরু করছি ছেলেটা এসএসসি পরীক্ষা দিয়েছিলো কিন্তু দুঃখের বিষয় সে এক বিষয়ে কৃতকার্য হতে পারেনি, সবাই তাকে স্বান্তনা দিচ্ছে আরে এটা কোনো বিষয় না, মানুষের জীবনে এমন কত ঘটনার মধ্যে অতিবাহিত হতে হয় ছোটখাটো বিষয় নিয়ে পড়ে থাকলে জীবনে চলা যায় নাকি।ছেলেটা বুঝলো তার কষ্টে সবাই তাকে সাপোর্ট দিচ্ছে সে নিজেকে গুছানোর সংগ্রাম করার জন্য প্রস্তুতির শপথ নিলো।
বেশ ভালো কথা ছেলেটা মেনে নিলো নিয়তির বিষয় সব ঠিকঠাক চলার কথায় তো!
এই বিষয়টা এখানে শেষ হওয়ার কথা থাকলেও সেটা থাকেনি, শুরু হয়ে গেলো নিজের পাণ্ডিত্যের গল্প শুনানো মানুষের অত্যাচার মুঠোফোনে খানিক পর পর কল আসতে লাগলো আর গদগদ হয়ে বলতে লাগলে আসি এ+ পেয়েছি, তোমার রেজাল্ট কি?
ছেলেটার ফোন সহসা বন্ধ হলো কিন্তু পাণ্ডিত্য জাহির করা মানুষের অত্যাচার আর থামে না,ছেলেটার মায়ের ফোনে বারবার কল আসতে লাগলো আর সেই একই কথা আমার রেজাল্ট এই তার কি অবস্থা?
আত্মীয়রা বাদ যায়নি তারাও লেগে পড়লো জ্ঞান বিতরণ ও সফলতার গল্প শুনিয়ে শুনিয়ে।
এমন নানামুখী আক্রমণে মায়ের কান্নাকাটি শুরু হয়ে গেলো, অসুস্থ বাবার চেহারার দিকে তাকানো যাচ্ছে না।
নতুন জীবনের গল্প বুনার শপথ করা ছেলেটা তখন নিজেকে আর সামাল দিতে পারছিলো না বারবার নিজের মৃত্যু কামনা করছিলো হয়তো সুযোগ খুজতে লাগলো একটা একাকিত্ব রাতের যেখানে হারিয়ে যাবে, মুছে দিবে নিজের ব্যর্থতার গল্প।
যেমনটা আমরা কুমিল্লার ছেলেটার মাধ্যমে জানতে পেরেছি সফলতার গল্প কিংবা চারদিক থেকে আসা কথার জেরে মায়ের গায়ে বাবার হাত দেওয়া তার পৃথিবী থেকে বিদায়ের উপলক্ষ্য করে দিয়েছে।
তাই বলতে পারি এমন বহু সফলতার অতিমাত্রায় প্রচারের কারণে অনেকেই আত্মহত্যার দিকে ধাবিত হচ্ছে।

সৃজনশীল সত্তার করুণ মৃত্যু:-
ক্যানভাস আর রংতুলিতে স্বপ্ন দেখা সত্তাটিও হারিয়ে যায় রাতের আঁধারে, ক্যামেরাটা পিঠে চাপিয়ে সবুজের সমারোহ খোঁজা চোখগুলো অসহায়ত্ব নিয়ে লুকিয়ে লুকিয়ে কাঁদে।
আমাদের সমাজব্যবস্থা এর জন্য দায়ী, প্রত্যেকটা অপমৃত্যুর জন্য সমাজই দায়ী।
সরকারি চাকুরে লোকগুলোর দিকে আঙুল তাক করে দেখিয়ে দেখিয়ে আপনি সমস্ত সত্তাকে পাল্লায় তুলছেন, আপনি সমাজের মানুষ হিসেবে ধরেই নিয়েছেন ছবি তুললে কিংবা ছবি আঁকলে জীবনে কি হবে? কিসে চলবে রুটি-রুজির আয়োজন।
সফল মানুষের(সরকারি চাকুরী প্রাপ্ত) গল্প বলতে বলতে তাকে হয়রান করে তুলছেন চাকুরির পিছনে ছুটতে, নিজের স্বকীয়তা রেখে চাকুরির পিছনে ছুটতে ছুটতে একদিন ক্লান্ত হয়ে উঠে সৃজনশীল মানুষটা তখন আর কিছু করার থাকেনা,হয়ে উঠেনা চাকুরির হয় না আগের সৃজনিতে প্রবেশ করার।
হারিয়ে যায় কালের গহ্বরে।

ব্যর্থতার জবাবে অহেতুক মায়াকান্না:-
হোঁচট খেয়ে পড়ে যাচ্ছে একজন মানুষ আপনি তার হাত ধরে টেনে না তুলে গালি দিচ্ছেন মানহীন কাজের, বিবেকহীন প্রকৌশলী সম্প্রদায়ের যাদের জন্য এমন সমস্যার সৃষ্টি।
পাশের বাড়ির লোকটার খাবার নেই দু’মুঠো চাল না দিয়ে আপনি সরকারকে গালি দিচ্ছেন কেন দাম বাড়ানো হচ্ছে!
চাকুরী পাচ্ছে না দেখছেন শিক্ষিত ছেলেটা আপনি তার একটা কর্মের ব্যবস্থা তো করলেনই না আপনি শুরু করলেন কিভাবে ঘুষ,দুনীতি করে মানুষ চাকুরী ভাগিয়ে নিচ্ছেন এমন মানুষের কথা।
আপনার অহেতুক মায়াকান্নার ফলে হারিয়ে যাচ্ছে প্রতিভাবান হাজারো মানুষ, শুনেছি এমন কাজের জন্য অনেক মানুষ নিজের বাড়ি পর্যন্ত যাওয়া বন্ধ করে দিয়েছে।

আপনার পাণ্ডিত্যের গল্পের খারাপ দিক:-
আপনি সগৌরবে প্রচার করতে লাগলেন আপনি আমেরিকা হতে পিএইচডি ডিগ্রি করেছেন, আপনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের নামকরা ডিপার্টমেন্ট হতে গোল্ড মেডেলিস্ট!
আর তোমরা কি করছো এই বয়সে?
আমি হেন করছি তেন করছি, কাঁঠাল কাগজে মুড়ে একটু একটু খেয়ে জীবনে এতদূর আসলাম তোমরাতো মানুষই হবে না! যত্তসব গাধার দল।
এইসব গল্প গুলোর আপনার জন্য ভালো লাগার উপলক্ষ্য আনলেও ঠিকই ক্ষতি করছে আমাদের মতো ছোট স্বপ্ন দেখা মানুষ গুলোর জন্য, শেষ বেঞ্চে বসা ছেলেটা মিলাতে পারছেনা তার জীবনের সাথে আপনার কথা গুলো।
হতাশ হয়ে হয়তো বলেই বসে কেন পগাশোনায় সময় অপচয় করছে! কি হবে এমন পড়াশোনায়?

পরিশেষে বলতে চাই,
আপনারা বাঁচতে দিন আগামী প্রজন্মকে, চিন্তার স্বাধীনতা দিন তাদের।ভালোবাসুন, প্রতিদিন কয়েকবার বলুন আপনি তাকে ভালোবাসেন।
আমাদের করণীয়:-
পাণ্ডিত্য জাহির থেকে বিরত থাকুন
অনুকরণ করা থেকে বের হয়ে আসুন
তুলনা করবেন না
অবস্থান বিচার করতে শিখুন
সাহস ও সত্য অবলম্বন করে এগিয়ে যাওয়ার শপথ করুন।
আপনার মাধ্যমেই পরিবর্তন

1 Views

আরও পড়ুন

প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ

নাগরপুরে ১৬ প্রহর ব্যাপি শ্রীশ্রী তারকব্রহ্ম মহানাম যজ্ঞানুষ্ঠান অনুষ্ঠিত

কুতুবদিয়ায় নির্মাণ সামগ্রীসহ টিউবওয়েল চুরি

শান্তিগঞ্জে হাওর বাঁচাও আন্দোলন কেন্দ্রীয় ও জেলা নেতৃবৃন্দের হাওর রক্ষা বাঁধ পরিদর্শন

নোয়াখালীতে মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় প্রাণ গেল ব্যবসায়ীর

ঝুঁকি নিয়ে কাজ করতে গিয়ে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে এক যুবকের মৃত্যু

বইমেলায় ‘ঊষাতন চাকমা’র কাব্যগ্রন্থ ‘পাহাড়সম হৃদয়’

রাঙামাটি ভ্রমণে আসা চট্টগ্রাম কলেজের ১৭৫ শিক্ষার্থী পুলিশের ৩ ঘন্টার অভিযানে ডুবোচর থেকে উদ্ধার

গ্রীন ভয়েস এর উদ্যোগে ছাত্র-যুব সমাবেশ অনুষ্ঠিত।

মুক্তা খাতুনের কবিতা ‘আত্মহত্যা’

শিক্ষাবৃত্তি প্রদানে পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ড’র বিরুদ্ধে সাম্প্রদায়িকতার অভিযোগ-পিসিসিপি’

ঘোড়াঘটে জমি নিয়ে বিরোধ,প্রতিপক্ষের ছুরিকাঘাতে প্রাণ গেল গৃহবধুর