ঢাকামঙ্গলবার , ৩১ জানুয়ারী ২০২৩
  1. সর্বশেষ

আগামীর বাংলাদেশে আমি প্রশ্নবিদ্ধ নাতো?

প্রতিবেদক
নিউজ এডিটর
৩০ নভেম্বর ২০২২, ২:৪০ পূর্বাহ্ণ

Link Copied!

আহমেদ হানিফ।

আমার সোনার বাংলা আমি তোমায় ভালোবাসি, ছোট থাকতে মন্ত্র মুগ্ধের মতো শুনতাম আর গুনগুনিয়ে গেয়ে উঠতাম চিরদিন তোমার আকাশ তোমার…… আজ বড় বেলায় অনুধাবণ করছি ছোট বেলার ভালোবাসা কতটুকু ধারণ করেছি আমি?
‘আমি তোমায় ভালোবাসি’ খুব সহজেই বলে ফেলেছি ভালোবাসি কিন্তু গভীরতা অনুধাবণ করেছি তো মনে হয় না।
মনে হয় গুনগুনিয়ে দেশের গানে নিজেকে জড়িয়ে নতুন যে সুর বেঁধেছি মননে তা আর অবশিষ্ট নেই মানসে। আচ্ছা আজ হঠাৎ এমন কথা বলছি কেনো?
পাঠকজনের মনে উদিত হতে পারে তাহলে কি দেশপ্রেম ছিলো না?
সোনার বাংলাকে গুনগুনিয়ে গাওয়াতে কি দোষ ছিলো?.
না, দেশপ্রেম ছিলো কিন্তু থাকতে, রাখতে পারলাম কই? ভারী ভারী কথা বলেই যাচ্ছি রাখতে পারলাম না আবার ছিলোও বটে তাহলে কিসের কমতির জন্য আজ আমার গাওয়া আমার সোনার বাংলা আমাকে ধিক্কার জানাচ্ছে।
দোষ, সঙ্গদোষ দোষই বটে এই দোষের কারণে পরবর্তী আমিতে মেলা পার্থক্য সূচিত হয়েছে।এখন চিৎকার করে আমার সোনার বাংলা গাইলেও কেমন জানি ছোট বেলার টান আর কাজ করেনা।এটা নিশ্চয়ই লজ্জার বিষয় বটে কানকাটা আমিতে লজ্জার উদ্বেগ সৃষ্টি হচ্ছে নাতো।
চিন্তার জগৎ, জাগতিকতা ভুলে যদি চিন্তা করি তাহলে আমি কত নিচু স্বভাবের তা সবার নজরে আসতে বেশি সময় লাগবে না।
আজ আমিত্বের খারাপ স্বভাবের কল্পনাকে বাস্তবতার ক্ষেত্রে উপস্থাপন কালে যে গল্পের সমাবেশ হবে তা আগামী বাংলাদেশে কেমন প্রভাব পড়বে তা জেনে আসি চলুন-
সাল ২০৫০ শীতের আমেজে রিক্ততার ছোঁয়ায় ছেয়ে গেছে পথঘাট থেকে শুরু করে বড়বড় অট্টালিকার শহরেও।মানুষ সহজাত নিয়মেই প্রত্যেকদিনের মতো কাজে ব্যস্ত না, ব্যস্ততাকে ছুটি দিয়ে টেলিভিশনের দিকে উন্মুখ হয়ে বসে আছে এক ঐতিহাসিক রায় শুনার জন্য, হাজার কর্মজীবী মানুষ কাজ ফেলে বড় পর্দার মাধ্যমে জানতে চাচ্ছে কি হয়।
মানুষ বারবার টেলিভিশনের চ্যানেল পরিবর্তন করে সংবাদ শিরোনাম ও সংবাদ উপস্থাপন হয় কিনা দেখছে-
আজ আহমেদ গ্রুপের চেয়ারম্যান আহমেদ এর বিচারের রায় হবে, একটু পরেই রায় আসবে অধীর আগ্রহে জনতা বসে আছে ঠিক তখনি সরাসরি সংবাদ পাঠক তুলে ধরলেন আহমেদ এর ফাঁসিকাষ্ঠে ঝুলিয়ে মৃত্যুর রায় দিয়েছেন মহামান্য আদালত।
খবরটি শুনতেই চারদিকে ছড়িয়ে পড়েছে আনন্দের উপলক্ষ্য, কোলাকুলি করার মাধ্যমে মানুষ আনন্দ ভাগ করে নিচ্ছেন।
তবে, কেনো এমন আনন্দ, কেন মানুষের অধীর আগ্রহের কারণ তাহলে ফিরতে হবে আরো বছর খানিক আগে ২০৪৯ সালের সেপ্টেম্বর মাসে হঠাৎ দাউদাউ করে জ্বলে উঠলো আহমেদ গ্রুপের একটা পোশাক তৈরির কারখানা পাঁচ হাজারের অধিক পোশাক শ্রমিকের কর্মব্যস্ত ভবনটি সংকটগ্রস্তে পড়েছে আগুন চতুর্দিকে, বের হওয়ার সুযোগ পাচ্ছে না মানুষ, টানা ১৭ ঘন্টার চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয়েছিলো ফায়ারসার্ভিস কর্মীরা কিন্তু তাতে তেমন একটা কাজ আর হয়নি তিনশতের অধিক মানুষের মৃতদেহ পড়ে আছে মর্গের টেবিল ও হাসপাতালের বেডে।
চারদিকে সরব হয়ে উঠলেন এত মানুষের মরণ কোনো ভাবেই মেনে নেওয়া সম্ভব না, গঠন করা হলো তদন্ত কমিটি তার ছয় মাসে চুল-ছেঁড়া বিশ্লেষণের মাধ্যমে জানা গেলো আহমেদ ইচ্ছা করে নিজেকে দেউলিয়া ঘোষণা করতেই কারখানায় আগুন লাগিয়েছে যার ফলে আজকের ফলে মানুষের এমন আনন্দ উদযাপন।
কিছুদিন পরে ফাঁসির রায় কার্যকরের মাধ্যমে নিন্দনীয় কাজের সমাপ্তি ঘটে লাশ নেওয়ার সময় মানুষের লাশবাহী গাড়ির দিকে থুথু নিক্ষেপ করতে লাগলেন।
তখনি হুশ ফিরে আসলো আমিত্বের কি হবে যদি আমার দ্বারা এমন কার্য সাধন হলে।
আমি যে সব সঙ্গের সাথে মিশতেছি আমার এমন হওয়ার সম্ভাবনা খুবই বেশি-
আমি সত্তা আজ যেসব কাজ গুলো করছে-
দুর্নীতি, ঘুষ বাণিজ্য
মিথ্যা সাক্ষী
দেশদ্রোহী কাজ
নিয়োগ বাণিজ্য
খুন
রাহাজানি
অন্যের সম্পত্তি লুণ্ঠন।
এমন কাজ গুলো করার মাধ্যমে আমি কলঙ্কিত করছি আমি সত্তার বিবেকবোধকে আমার সুপ্ত চিন্তাকে বিষিয়ে তুলছি।
যার ফলে আমার সোনার বাংলা আমি তোমায় ভালোবাসি আর দরদমাখা কণ্ঠে গাইতে পারি না, পারিনা সমস্বরে সম্মিলিতভাবে সবার সাথে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে গাইতে আমি তোমায় ভালোবাসি।
নৈতিকতা বিসর্জন দেওয়ার মাধ্যমে আমরা হারিয়ে বসেছি আমাদের সুখানুভূতি গুলো যার ফলে হৃদয়ে বারবার জাগ্রত হয় কিভাবে অন্যায় কাজ করা সম্ভব হয়ে উঠে।
আমি কিভাবে অন্যায়কারী হয়ে উঠছি-
আমি নৈতিকতা বাদ দিয়ে সম্পদ আহরণে ব্যস্ত
আমি হাসপাতালে চিকিৎসার নামে কসাইখানা খুলে বসেছি
আমি ঘুষের বিনিময়ে চাকরি দিচ্ছি
আমি শিক্ষার নামে অখাদ্য খাওয়াচ্ছি
আমি নিরাপদ নই নারীর একাকী চলায়
আমি মানুষ মরণে বিজয় মিছিল করি।
এইসব কাজের মাধ্যমে আমি হারিয়ে ফেলতেছি আমাকে, নিজেকে মেরে ফেলে বাঁচিয়ে রাখছি অমানুষকে।
যার ফলে আমার প্রতিটা কাজ আগামীর সোনার বাংলাদেশে আমাকে, আমি সত্তাকে প্রশ্নবিদ্ধ করবে।
প্রশ্ন রাখবে আগামীর বাংলাদেশ –
আমি কি ক্ষতি করেছি যার ফলের আমার গহ্বরে আজ ক্ষতির বীজ বপন করেছো
কি করেছি আমি যার কারণে আমাকে জ্বালিয়ে মারছো
মানুষের রক্তে আমাকে কেনো রাঙাচ্ছো
মানুষ মুক্তির নামে কি শিখাচ্ছো তাদের?
তখন লজ্জিত আমি সত্তার আর কিছু বলার থাকবে না, কারণ স্বভাবদোষেই আমি প্রশ্নের সম্মুখীন হচ্ছি।
তাই, আমি সত্তার বরাতে সবার নিকট অনুরোধ জানাচ্ছি আগামীর বাংলাদেশ আপনাকে বিচারের কাঠগড়ায় দাঁড় করানোর আগে আপনি আপনাকে জিজ্ঞেস করুন,
জানতে চান আগামীর বাংলাদেশ আপনি প্রশ্নবিদ্ধ কোনো মানুষ হয়ে উঠছেন নাতো।
বারবার বলতে থাকুন আগামীর বাংলাদেশে আমি প্রাণের অনুভবে গাইতে পারবো তো
আমার সোনার বাংলা আমি তোমায় ভালোবাসি, আমি তোমায় ভালোবাসি।

আরও পড়ুন

২০ টাকার ইনজেকশন হাজার টাকায় বিক্রি: ৪০ হাজার টাকা জরিমানা

নোয়াখালীতে সরকারি চাকরিজীবীদের আবাসিক ফ্ল্যাটের উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী

বিরামপুরে বিএনপি’র উদ্যোগে কম্বল ও সোয়েটার বিতরণ

নওগাঁর পত্নীতলায় উপজেলার বিভিন্ন দপ্তর পরিদর্শন করলেন ডিসি

সম্পাদক ও কলামিস্ট জব্বার হোসেনের জন্মদিন

মৌলভীবাজারে ক্যাম্পেইন ফর মিডিয়া ফ্রিডম (সিএমএফ) এর উদ্যোগে শীত বস্ত্র বিতরণ

দোয়ারাবাজারে জমি নিয়ে বিরোধের জেরে সংঘর্ষ, আহত ৬

পাহাড়ের তিন জেলায় এলজিইডি'র মানব বন্ধন ;
চসিক প্রকল্প পরিচালক প্রকৌশলীর ওপর হামলার নিন্দা, প্রতিবাদ

দূ্র্গম পার্বত্য চট্টগ্রাম’র দুর্গম দুমদুম্যা এলাকায় সীমান্ত সড়ক প্রকল্প পরিদর্শন করলেন সেনাপ্রধান

কুতুবদিয়ায় মিয়ার পাড়া নতুন কবরস্থানের জায়গা বিক্রির পায়তারা

ঘোড়াঘাটে এমপি শিবলি সাদিকের পক্ষে অগ্নিকান্ডে ক্ষতিগ্রস্থরা পেল টিন ও চেকসহ বিভিন্ন সামগ্রী

ঠাকুরগাঁওয়ে সাংবাদিকের উপর হামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন