ঢাকামঙ্গলবার , ৩১ জানুয়ারী ২০২৩
  1. সর্বশেষ

অনুকরণ হউক জাপানিদের কাজের।

প্রতিবেদক
নিউজ এডিটর
২৭ নভেম্বর ২০২২, ২:০৬ পূর্বাহ্ণ

Link Copied!

আহমেদ হানিফ।

আমরা মানুষের সহজাত প্রবৃত্তির অংশ হিসেবে আমরা কোনো না কোনো ভাবে অনুকরণ করে আসছি হউক তা ভালো কিংবা মন্দ।

কথা বলার ধরণের অনুকরণ, চলার ঢঙের অনুকরণ এইসব কিছুতে তাল মিলাতে গিয়ে অনেক সময় নিজস্বতা হারিয়ে বসি, তা অনেক সময় দোষের কখনো ভালোত্বের সংস্পর্শে আসে।

ছোট বেলায় মা চাচিরা পাড়াতো ভাইবোনদের দেখিয়ে দেখিয়ে বলতেন তোমাকে ওর মতো হতে হবে, ভালো ফলাফল করতে হবে, বাবা মায়ের কথা শুনতে হবে কত্তো সব কথা।

যুগের বাস্তবতায় এখনকার মা-বাবারা হয়তো দেখিয়ে দেখিয়ে বলে ওর মতো হওয়া যাবে না,ওর সাথে মেশা বন্ধ।

এখন প্রশ্ন হলো কেন এখনকার স্বজনরা অনুকরণে এতো ভয় পায়?

প্রশ্নটা আমাদের মননে চিন্তার রেখা টেনে হিসাবের খাতা খোলাতে ব্যস্ত করে তুলছে।

তাহলে আগেরকার মায়েরা কি বুঝতেন না এই অনুকরণ প্রত্যয়ের নানাবিধ দিক।

ধরি,তখনকার মায়েরা এটা দেখতেন ভালো কাজের অংশ হিসাবে যাতে করে তাদের সন্তানরা ভালোত্বের সংস্পর্শে আসতে পারে,ভালো সঙ্গের সাথে সময় কাটাতে পারে।

তাহলে এখনকার স্বজনরা এই অনুকরণে ভীত ও নিরুৎসাহি কেন?
তাহলে শুনি ভয়ার্ত স্বজনের চোখে এই অনুকরণ কিভাবে উপস্থিত হয়।

সেলুন দোকানে গিয়ে আট বছর বয়সের ছেলেটা দেওয়ালে টাঙানো সুদর্শন একটা ছবির দিকে তাকিয়ে বলল আঙ্কেল আপনি আমাকে ওর মতো চুল কেটে দেন, ভারতের টেলিভিশনের সিরিয়ালের কোন নায়িকার জামার মতো জামা কেনার বায়না করে বসে ছোট্ট আদরের জমিরন। ক্যাম্পাসের আড্ডায় বসে একটু-আধটু বদ খাবার খাওয়ার লোভ সামলাতে না পেরে সহজ সরল ছেলেটাও বলে বসল আমাকে একটু দাও এটা কি অনুকরণ নয় কি?

এইসব কি আমাদের জাতির জন্য ক্ষতিকর নয় কি?
আচ্ছা, সোসাল মিডিয়ার বদৌলতে আমরা আজ অনেক কিছুই জানতে পারি, শিখতে পারি, বলতে পারি, বলাতে পারি তাওতো অনুকরণ করা। আমি আগেই বলেছি অনুকরণ তো ভালোত্বের যোগানও দিতে পারে,তবে কতটুকু প্রশ্ন থেকে যায়।
যদি আপনারা উত্তরে বলেন বেশ কিছু ভালোর মধ্যে কিঞ্চিৎ খারাপ দেখে দোষ খোঁজা তো ভালো মানুষের কাজ না,
থাক বাবা, কথিত নীতিতে একটু খারাপ হতে আমার বাঁধবেনা, না হয় একটু খারাপের কথনে সমাজটা তুলে ধরি।
আচ্ছা এই ভালো অনুকরণ গুলো ঠিক আছে মানলাম তবে আমাদের আগামী প্রজন্ম কিসের অনুকরণ করছে তা কিন্তু ভাবার বিষয়।

ভাবা শেষ এইবার বলার পালা, টিকটক, লাইকি, ফেসবুকে আমরা যা অনুসরণ, অনুকরণ করছি তা কি আমাদের রুচিতে বাঁধে না,
অশ্লীল, কুরুচিপূর্ণ অঙ্গভঙ্গির মাধ্যমে ছোট ছোট ভিডিও সোসাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে দেওয়া নিসন্দেহে ভালো কাজ নয়,
গত কয়েকবছর ধরে শুনছি পাখি জামার জন্য আত্মহত্যা করেছে কতক, ছোট মেয়ের হাতে বাবা-মা খুন, কিশোন গ্যাং এর উৎপাত, বাল্যবিবাহ করানোর মতো নিন্দনীয় বহুকাজ।
এইসব কিভাবে হচ্ছে?

নিসন্দেহে অনুকরণ এর জন্য দায়ী, তার আগে দায় দিবো আমাদের চিন্তাভাবনাকে, দোষ থেকে এড়িয়ে যেতে পারবেন না অভিভাবকরাও তাদের ছেড়ে দেওয়ার জন্য অনেক সময় এইসব খারাপ কাজও হতে পারে।
বর্তমানে বহু সামাজিক নীতিবিবর্জিত কাজের জন্য যে সব বিষয় গুলো দায়ী তা হলো-
সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বাছবিচারহীন বিষয় উপস্থাপন,
টিকটক, লাইকির সরব উপস্থিতি,
মানহীন বিনোদনের জন্য,
বর্হিবিশ্বের নানান জিনিসের প্রতি আগ্রহের জন্য।
এইসব কথা শুনার পরও কি মানুষের পক্ষে অনুকরণ করার জন্য আগ্রহ জাগবে?
এত্তো সব কথা বলার পরেও বলবো আপনারা অনুকরণ করুন, অনুসরণ করুন।
কেন অনুকরণ করবেন তা বলছি,
কি অনুকরণ করবেন তাও বলছি-
ভালো অনুকরণ আপনাকে আমাকে ভালোত্বের সংস্পর্শে নিয়ে আসতে পারবে, ভালো কাজে এগিয়ে নিতে পারবে।
তাই, অনুকরণটা হতে হবে বোধের পক্ষে, ভালোত্বের সংস্পর্শে।
তাই, আজ বলবো অনুকরণপ্রবৃত্তি হউক জাপানের কাজে:-
আমরা জানি জাতি হিসেবে জাপান সভ্য ও শান্তিপ্রিয় মানুষের জাতি।তারা তাদের শান্তিপ্রিয় কাজের জন্য বাহাবা পাওয়ার দাবী রাখে।
জাপানের মানুষের কাজের মাধ্যমে তারা পৃথিবীর মানুষকে দেখিয়েছেন তারা কতটা সভ্য।
আসল কথাই বলি বর্তমান বিশ্ব কাতার বিশ্বকাপ জ্বরে আক্রান্ত, টেলিভিশনের সামনে বসে প্রিয় দলের সমর্থন দিয়ে গলা ফাটানো নিত্যকার কাজ হয়ে দাঁড়িয়েছে।
তবে, একটা বিষয়ে গিয়ে সবার চোখ আটকে গেলো তাহলো স্টেডিয়ামে খেলা দেখতে আসা জাপানি দর্শকদের স্টেডিয়াম পরিস্কার করার দৃশ্য, কত সুন্দর দৃশ্যের অবতারণা করে জাপানিরা পৃথিবীর মানুষের কাছে অনুকরণীয় দৃষ্টান্ত হয়ে উঠেছে।
তাই, আমরা যদি জাপানের কাজের অনুকরণ করি তাহলে আমরাও সভ্যদের কাতারে নিজেদের সামিল করতে পারবো,
জাপানিদের অনুকরণ করলে কি হবে?
যত্রতত্র ময়লা ফেলবো না,
পরিবেশ নোংরা করবো না,
ডাস্টবিনের যথার্থ ব্যবহার করবো,
পৃথিবীকে সুন্দর করে সাজাতে পারবো।
আমি বলবো আমাদের অনুকরণ হউক এমন সব কাজে যার মাধ্যমে আমরা আমাদের ব্যক্তিত্ব তুলে ধরতে পারবো, মানুষের কল্যাণের মাধ্যমে।
তাই, বলছি ভালোত্বের সংস্পর্শে আসার প্রত্যয় নিয়ে অনুকরণ হউক জাপানিদের কাজের মতোই পৃথিবীর সব ভালো কাজগুলোর।
তবে, আমাদের মা-চাচিরা আবারো অনুকরণ করার তাগিদ দিবে, ভালো মানুষের সাথে মিশতে দিবে।

আরও পড়ুন

২০ টাকার ইনজেকশন হাজার টাকায় বিক্রি: ৪০ হাজার টাকা জরিমানা

নোয়াখালীতে সরকারি চাকরিজীবীদের আবাসিক ফ্ল্যাটের উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী

বিরামপুরে বিএনপি’র উদ্যোগে কম্বল ও সোয়েটার বিতরণ

নওগাঁর পত্নীতলায় উপজেলার বিভিন্ন দপ্তর পরিদর্শন করলেন ডিসি

সম্পাদক ও কলামিস্ট জব্বার হোসেনের জন্মদিন

মৌলভীবাজারে ক্যাম্পেইন ফর মিডিয়া ফ্রিডম (সিএমএফ) এর উদ্যোগে শীত বস্ত্র বিতরণ

দোয়ারাবাজারে জমি নিয়ে বিরোধের জেরে সংঘর্ষ, আহত ৬

পাহাড়ের তিন জেলায় এলজিইডি'র মানব বন্ধন ;
চসিক প্রকল্প পরিচালক প্রকৌশলীর ওপর হামলার নিন্দা, প্রতিবাদ

দূ্র্গম পার্বত্য চট্টগ্রাম’র দুর্গম দুমদুম্যা এলাকায় সীমান্ত সড়ক প্রকল্প পরিদর্শন করলেন সেনাপ্রধান

কুতুবদিয়ায় মিয়ার পাড়া নতুন কবরস্থানের জায়গা বিক্রির পায়তারা

ঘোড়াঘাটে এমপি শিবলি সাদিকের পক্ষে অগ্নিকান্ডে ক্ষতিগ্রস্থরা পেল টিন ও চেকসহ বিভিন্ন সামগ্রী

ঠাকুরগাঁওয়ে সাংবাদিকের উপর হামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন