ঢাকাবৃহস্পতিবার , ১ ডিসেম্বর ২০২২
  1. সর্বশেষ

রেস্টুরেন্ট’ মানেই ভেজাল খাবার !

প্রতিবেদক
নিউজ এডিটর
২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১২:৫৮ অপরাহ্ণ

Link Copied!

মোহাম্মদ মন্‌জুরুল আলম চৌধুরী।

“ব্যস্ত নগরীর ব্যস্ত আয়োজনে খাবারের অন্যতম অনুষঙ্গ ‘রেস্টুরেন্ট’। ভিনদেশি শব্দটির মতো পরিবেশ-পরিবেশনে বেশ ওয়েস্টার্ন ভাব এসেছে তৈরি খাবার বিক্রির দোকানগুলোতে। অনেকে দেশীয় ঐতিহ্যকে ফুটিয়ে তুলছে অন্তসজ্জায়। কিন্তু খাবারের মানে-গুণাগুণে, পরিচ্ছন্নতা ও কিচেনের পরিবেশের উন্নতি ঘটেনি। তাই হয়তো রেস্টুরেন্টে ঢুকলেই জরিমানা করার সুযোগ পান ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনাকারী নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটরা। তবে অভিযান-জরিমানায়ও মিলছে না সুফল। নিরাপদ খাদ্য যেন রূপ নিয়ে আগামীদিনের সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জে” {সূত্রঃ দৈ/পূর্বদেশ, ১৪ সেপ্টেম্বর’২২}। আমাদের দেশে বর্তমানে রেস্টুরেন্ট এবং খাবারের ব্যবসা খুবই জমজমাট। মানুষ পরিবার পরিজন নিয়ে অনেক সময় রুচির পরিবর্তন এবং আনন্দ উপভোগের জন্যে রেস্টুরেন্টে গিয়ে থাকে। খাবারের বৈচিত্র্যের সঙ্গে বিনোদন রেস্টুরেন্টে খাওয়ার নতুন মাত্রা যোগ করেছে। এখন জন্মদিন, বিবাহ-বার্ষিকী, আকদ, সামাজিক, পারিবারিক বিভিন্ন অনুষ্ঠান রেস্টুরেন্টে হয়ে থাকে। রেস্টুরেন্টের আলো ঝলমলে মনোরম পরিবেশ সুস্বাদু ও উপাদেয় হরেক রকমের খাবারের আয়োজন মানুষকে অহরহ আকৃষ্ট করছে। আলোর নিচে অন্ধকারের মতো বেশিরভাগ রেস্টুরেন্টের ভেতরের পরিবেশ অত্যন্ত নোংরা অস্বাস্থ্যকর। অতি মুনাফার লোভে খাদ্যের গুণ-মান নিয়ন্ত্রণ এবং স্বাস্থ্যকর নিয়ম-নীতি অনুসরণ না করে নোংরা পরিবেশে রেস্টুরেন্টের খাবার এবং বিভিন্ন বেকারি পণ্য ও মিষ্টি প্রক্রিয়াজাতকরণ, সংরক্ষণ, মোড়কজাতকরণ এবং বাজারজাত করে থাকে। অনেক স্থানে কিচেনের একই ছাদের নিচে বা পাশাপাশি টয়লেট/বাথরুম থাকে। ফলে নোংরা দুর্গন্ধময় পরিবেশে খাদ্য প্রস্তুতের পাশাপাশি ব্যবহৃত পানি সাবান এবং অন্যান্য পদার্থ ও রোগ জীবাণু খাদ্য দ্রব্যের সঙ্গে মিশে যায়। তাছাড়া ফ্রিজ বা ডিপফ্রিজে উন্মুক্ত কাঁচা মাছ মাংশের সঙ্গে অন্যান্য উপকরণ একসঙ্গে সংরক্ষণ করা হয়। পাশাপাশি খাদ্যদ্রব্য প্রস্তুত সংরক্ষণ প্রক্রিয়াজাতকরণ ও প্যাকেটজাত করার সময় বিভিন্ন রাসায়নিক ডাইস ক্যামিকেল কীটনাশক কাপড়ের রঙ পোড়া মুবিল নিম্নমানের ও মেয়াদোত্তীর্ণ খাদ্য উপকরণ এবং অনিরাপদ পানি ব্যবহার হয়ে থাকে যা মানুষের অসুস্থতা, পেটের পীড়া, কিডনি হৃদরোগ ক্যানসারসহ বিভিন্ন জটিল এবং অনিরাময় রোগের জন্য দায়ী বলে স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞদের অভিমত। পাশাপাশি আমাদের দেশে যত্রতত্র উন্মুক্ত রাস্তাঘাটে খোলা অবস্থায় অনিয়ন্ত্রিত ধুঁয়া ও ধুলোবালির মধ্যে অনিরাপদ খাবার বিক্রি হচ্ছে অহরহ। এমনকি পচা বাসী খাবারও মানুষ টাকা দিয়ে কিনে খাচ্ছে।

>

“গতকাল মঙ্গলবার নোংরা পরিবেশে চটপটি, ফুসকা ও বিরিয়ানি তৈরি অভিযোগে পাঁচ প্রতিষ্ঠানকে এক লাখ ৯ হাজার টাকা জরিমানা করেছে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর। প্রতিষ্ঠানগুলোর বিরুদ্ধে যথাযথ প্রক্রিয়ায় খাদ্য সংরক্ষণ না করাসহ নানা অনিয়মের অভিযোগ আনা হয়। নগরের স্টেশন রোড, কাজীর দেউড়ি ও জামালখান এলাকায় এ অভিযান চালানো হয়। অভিযানকালে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতরের উপ-পরিচালক ফয়েজ উল্লাহ, সহকারী পরিচালক নাসরিন আক্তার, সহকারী পরিচালক দিদার হোসেন ও সহকারী পরিচালক আনিছুর রহমান উপস্থিত ছিলেন। একইদিনে অস্বাস্থ্যকর ও নোংরা পরিবেশে খাদ্য প্রস্তুত করার দায়ে নগরীর দেওয়ান হাট আরমান হোটেলকে ১ লাখ টাকা ও হামজারবাগ মায়ের দোয়া বেকারিকে ২৫ হাজার টাকা জরিমানা চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন (চসিক) পরিচালিত ভ্রাম্যমাণ আদালত। নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মারুফা বেগম নেলী এ জরিমানা আদায় করেন। শুধু গতকালের অভিযান নয়, প্রায় প্রতিদিনই এভাবে অভিযান করে জরিমানা আদায় করছে নগরীতে বিভিন্ন সংস্থার পরিচালিত ভ্রাম্যমাণ আদালত” {সূত্রঃ দৈ/পূর্বদেশ, ১৪ সেপ্টেম্বর’২২}। দেশের মানুষ বুঝতেই চায়না, খাদ্যে ভেজাল দেয়া এবং নোংরা পরিবেশে খাদ্য উৎপাদন একটা জঘন্যতম অপরাধ যা বিশ্বের কোথাও দেখা যায়না। ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতর, সিটি কর্পোরেশন খাদ্যে ভেজাল বিরোধী অভিযান চালায়, জরিমানা করে। পরবর্তী অভিযানেও একই ঘটনার পুনরাবৃত্তি ঘটতে দেখা যায়। যাতে সংশ্লিষ্টদের অযত্ন অবহেলা গাফেলতি দৃষ্টিকটুভাবে পরিলক্ষিত হয়। ব্যবসায়ীদের এহেন কর্মকাণ্ড জনমানুষের মনে ক্ষোভ এবং হতাশা সৃষ্টি করে। নিরাপদ খাদ্য নিয়ে কাজ করা ব্যাক্তিদের মতে, “এমন সমস্যা থেকে বেরিয়ে আসতে হলে প্রথমত খাবারে ভেজাল দেওয়া ও অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে খাবার প্রস্তুত করা যে অপরাধ তা রেস্টুরেন্ট মালিকদের অনুধাবন করতে হবে”।

>

“নিরাপদ খাবার বলতে আমরা সেই খাবারকেই বুঝি, যেটা কোনো জীবাণু ও পরজীবী-দুষ্ট নয় যেটার মধ্যে নেই কোনো ক্ষতিকারক রাসায়নিক দ্রব্য এবং যেটা প্রাকৃতিকভাবে তৈরি বিষ থেকে মুক্ত। অবশ্যই সে খাবারটি হতে হবে প্রয়োজনীয় সব পুষ্টি উপাদানে সমৃদ্ধ। খাদ্যজাত অসুস্থতার প্রকোপের জন্য প্রধানত দায়ী কিন্তু রোগজীবাণুই” {সূত্রঃ দৈ/পূর্বদেশ, ১৪ সেপ্টেম্বর’২২}। নোংরা পরিবেশে ভেজাল খাদ্যদ্রব্য প্রস্তুত, বিক্রয় দেশের নিরাপদ খাদ্য নিরাপত্তাব্যবস্থার জন্য ভয়াবহ এবং ভয়ংকর হুমকি স্বরূপ। দেশে ভোক্তা অধিকার আইন আছে। আছে নিরাপদ খাদ্যের আইন। কিন্তু ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে এতো অভিযান পরিচালনা এবং জরিমানা করা সত্ত্বেও অবকাঠামোগত, লজিস্টিক সাপোর্ট না থাকার পাশাপাশি দক্ষ জনবল ও যথাযথ তদারকি এবং নজরদারীর অভাবে নোংরা পরিবেশে খাদ্য তৈরি খাদ্যে ভেজাল দেয়া বন্ধ করা যাচ্ছে না। এক তথ্য থেকে জানা যায়, “শস্য জন্মানো, আহরণকালীন অবস্থা, প্রক্রিয়াজাতকরণ, প্যাকেজিং, খাদ্য সংরক্ষণ, সরবরাহ এবং খাদ্য গ্রহণের আগে খাবার তৈরি ও পরিবেশনের প্রক্রিয়ার মধ্যে সর্বত্রই খাদ্যের মান ও নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে হবে। এর যেকোনো পর্যায়েই খাদ্যের মানের অবনতি ঘটতে পারে, যদি না সে ব্যাপারে বিশেষ ব্যবস্থা নেওয়া হয়। ব্যাকটেরিয়া ছাড়াও কিছু ছত্রাক খাবারে মাইকোটঙিন নামের বিষক্রিয়া তৈরি করে, যা থেকে প্রতিবছরই বহু লোক অসুস্থ হয় এবং মৃত্যুবরণ করে”। অসাধু ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে বিচ্ছিন্নভাবে অভিযান পরিচালনা এবং জরিমানা করে খাদ্যে ভেজাল প্রতিরোধ করা অসম্ভব ব্যাপার। ব্যবসায়ীদের মননে মগজে ধ্যান ধারণায় ঢুকে গেছে যে জরিমানা দিয়ে পার পাওয়া যায়। ফলে ভ্রাম্যমাণ আদালতের তদারকি ও নজরদারী কঠোর এবং জোরদার করার পাশাপাশি খাদ্যে ভেজাল বিরোধী নতুন আইন প্রণয়নের মাধ্যমে স্বচ্ছ সুষ্ঠু নিরপেক্ষ তদন্ত এবং বিচারের মাধ্যমে দোষীদেরকে মৃত্যুদণ্ড দেয়ার বিধান করা অতীব জরুরি এবং সময়ের দাবীও বটে। একথা ভুলে গেলে চলবে না যে নিরাপদ খাদ্য এবং বিশুদ্ধ পানি পাওয়া মানুষের মৌলিক এবং নাগরিক অধিকার।

আরও পড়ুন

তিতুমীর কলেজের নতুন অধ্যক্ষ হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন ফেরদৌস আরা বেগম

প্রতিবর্তনের উদ্যোগে কুবির মুক্তমঞ্চে নবান্ন উৎসব আয়োজিত

নাগরপুরে ১০ বছরেও উন্নয়নের সাক্ষী হতে পারেনি সাক্ষীপাড়া সরকারি বিদ্যালয়

ধর্ষণ মামলা তুলে নিতে কলেজ ছাত্রীকে হুমকির অভিযোগ

মেঘে ঢাকা এক সূর্যের নাম বরেণ্য শিক্ষাবিদ মরহুম প্রফেসর অধ্যক্ষ ড.এম এ সবুর চৌধুরী

রাঙামাটিতে ধর্ষণের দায়ে এক শিক্ষকের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড ও ১০ দশ লাখ টাকা জরিমানা

আগামীর বাংলাদেশে আমি প্রশ্নবিদ্ধ নাতো?

চাদাবাজ

সাতক্ষীরা পাটকেলঘাটায় চাঁদাবাজি মামলায় আল-আমিন গ্রেফতার

নোয়াখালীতে বিদেশি মদ সহ মাদক কারবারি আটক

তারেকের দন্ড একদিন কার্যকর হবে: কাদের

তারেক রহমান শখ করে লন্ডন যায়নি, অল্প দিনের মধ্যে দেশে ফিরবে: শাহজান

নোয়াখালীতে গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণে ২০ দোকান পুড়ে ছাই