ঢাকারবিবার , ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২
  1. সর্বশেষ
  2. সারা বাংলা

কক্সবাজারের উখিয়া রোহিঙ্গা ক্যাম্পে দুই মাঝি নিহতের ঘটনায় মামলা, গ্রেফতার ৩।।

প্রতিবেদক
নিউজ এডিটর
১১ আগস্ট ২০২২, ৪:৩১ অপরাহ্ণ

Link Copied!

আবদুর রাজ্জাক,বিশেষ প্রতিনিধি।।
কক্সবাজারের উখিয়ার জামতলী রোহিঙ্গা ক্যাম্পে সন্ত্রাসীদের গুলিতে দুই রোহিঙ্গা মাঝি নিহতের ঘটনায় জামতলী ১৫ নং ক্যাম্পের জাফর আলমের ছেলে মাহামুদুল হাসান (২৭), মৃত সোনা আলীর ছেলে শাহ মিয়া (৩২), তার ভাই আবুল কালাম ওরফে জাহিদ আলম (২৫), মৃত রশিদ আহম্মেদের ছেলে জাফর আলম (৫৪) ও তার ছেলে মো. সোয়াইবকে এজাহারনামীয় করে ১৬ জনের বিরুদ্ধে একটি হত্যা মামলা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১১ আগস্ট) নিহত আবু তালেবের স্ত্রী তৈয়বা খাতুন বাদি হয়ে উখিয়া থানায় এই হত্যা মামলাটি দায়ের করেন। যার মামলা নং ৫৩/২২।

এই ঘটনায় জামতলি পুলিশ ক্যাম্প বিশেষ অভিযান চালিয়ে ঘটনার সাথে জড়িত ৩ জনকে গ্রেফতার করেছে। গ্রেফতারকৃতরা হলেন, ক্যাম্প-১৫ ব্লক-সি/১ (ঘর নং-৬৮) এর সোনা মিয়ার ছেলে সাহা মিয়া (৩২), ব্লক-সি/৬ (ঘর নং-৬৫৮) এর জাফর আলমের মোঃ সোয়াইব (১৯) ও ব্লক-সি/৬ (ঘর নং-৬৪৮) এর রশিদ আহম্মেদের ছেলে জাফর আলম (৫৪)।

৮ আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়ন (এপিবিএন) অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (মিডিয়া) মোঃ কামরান হোসেন মামলার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন,
ঘটনার পর শিবিরে ব্লক রেইড এবং অভিযান চলছে।এই ঘটনায় ৩ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। ঘটনায় জড়িত বাকি আসামীদের ও গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে বলে তিনি জানান।

উল্লেখ্য, গত মঙ্গলবার (৯ আগস্ট) দিবাগত রাত পৌনে বারোটার দিকে ক্যাম্প-১৫ এর সি-৯ ব্লকের দুর্গম পাহাড়ের ঢালে পূর্বশত্রুতার জেরে ৮-১০ জনের একদল সন্ত্রাসীর গুলিতে ২ রোহিঙ্গা নেতা ক্যাম্প-১৫ ব্লক-সি/১ এর আব্দুর রহিমের ছেলে হেড মাঝি আবু তালেব (৪০) এবং সি/৯ এর ইমাম হোসেনের ছেলে সাব ব্লক মাঝি সৈয়দ হোসেন (৩৫) নিহত হন।

এদিকে, দুইজনের মৃতদেহ ময়নাতদন্ত শেষে পরিবারের নিকট হস্তান্তর করেন উখিয়া থানা পুলিশ। ১০ আগস্ট রাতে ক্যাম্প-১৫ এর খাবার বিতরণ কেন্দ্র সিম কার্ডের সামনে জানাযা শেষে ডি ব্লক কবরস্থানে দাফন করা হয়।

এ ব্যাপারে উখিয়া থানার ওসি শেখ মোহাম্মদ আলী জানান, এই ঘটনায় নিহত আবু তালেবের স্ত্রী তৈয়বা খাতুনের বাদী হয়ে উখিয়া থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। এ পর্যন্ত এজাহারভুক্ত তিনজন আসামি গ্রেফতার হয়েছে। ঘটনায় জড়িত সকলকে গ্রেফতার করা হবে বলে তিনি জানান।

জানা যায়,মিয়ানমার সেনাবাহিনীর বর্বর নির্যাতনের মুখে ২০১৭ সালের ২৫ আগস্টের পর সীমান্ত পেরিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নেয় প্রায় ১২ লাখ রোহিঙ্গা। কক্সবাজারের উখিয়া ও টেকনাফের ৩৪টি ক্যাম্পে থাকছে এসব রোহিঙ্গা। মানবিক কারণে আশ্রয় দেয়ার পর তাদের মৌলিক চাহিদা পূরণের পাশাপাশি নিরাপত্তা নিশ্চিত করে মিয়ানমারে ফেরত পাঠানোর চেষ্টা করছে বাংলাদেশ। তবে রোহিঙ্গাদের এভাবে বিভিন্ন অপরাধে জড়িয়ে পড়া নিয়ে তৈরি হয়েছে নানা আশঙ্কা। রোহিঙ্গাদের নিয়ে এখন বিপাকে আছেন স্থানীয় বাসিন্দারাই।

সম্প্রতি কক্সবাজারের উখিয়া ও টেকনাফের ৩৪টি আশ্রয় শিবিরে দুর্গম ক্যাম্পগুলোতে সংঘবদ্ধ রোহিঙ্গা সন্ত্রাসীরা ‘টার্গেট কিলিংয়ে’ নেমেছে। শিবিরে একের পর এক মাঝি (রোহিঙ্গা নেতা) খুন হচ্ছেন। মঙ্গলবার (৯ আগস্ট) দিবাগত রাত পৌনে বারোটার দিকে দুই মাঝিকে সন্ত্রাসীরা গুলি করে হত্যা করে। এ নিয়ে গত পাঁচ বছরে সন্ত্রাসীদের হাতে খুন হয়েছেন অন্তত ১৫ জন মাঝি। গুমের শিকার হয়েছেন আরো অন্তত ১৫ জন। এর মধ্যে গত দুই মাসেই খুন হয়েছেন আটজন রোহিঙ্গা।

কক্সবাজার জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) মো. রফিকুল ইসলাম বলেন, আমাদের কাছে যে তথ্য আছে, তা পর্যালোচনা করলে দেখা যায়, রোহিঙ্গারা খুনোখুনি, অপহরণ, ধর্ষণ, মাদক ব্যবসা, চাঁদাবাজি, মানব পাচার, অগ্নিসংযোগসহ ১৪ ধরনের অপরাধে জড়িত। এসব অপরাধের দায়ে ২০১৭ থেকে ২০২২ সালের জুলাই পর্যন্ত থানায় ১ হাজার ৯০৮টি মামলা হয়েছে। আর এ সময়ের মধ্যে খুনের ঘটনা ঘটেছে ৯৯টি।

জানা গেছে,টার্গেট করে এসব হত্যাকাণ্ড ঘটানোর জন্য সাধারণ রোহিঙ্গারা মিয়ানমারের নিষিদ্ধ ঘোষিত সন্ত্রাসী গোষ্ঠী আরাকান রোহিঙ্গা স্যালভেশন আর্মি—আরসাকে (আল-ইয়াকিন নামেও পরিচিত) দায়ী করে আসছে। শিবিরের বেশির ভাগ রোহিঙ্গাই স্বেচ্ছায় দেশে ফিরে যেতে ইচ্ছুক। কিন্তু আরসার সদস্যরা মিয়ানমারে ফিরতে চান না। তাই স্বদেশে ফিরতে ইচ্ছুক রোহিঙ্গাদের নিয়ে যাঁরা কাজ করছেন বা নেতৃত্ব দিচ্ছেন তাঁদের টার্গেট করেই সন্ত্রাসী গোষ্ঠী একের পর এক হত্যাকাণ্ড চালিয়ে যাচ্ছে। সন্ত্রাসী গোষ্ঠী শিবিরগুলোতে তাদের নেতৃত্ব যে কোনো ভাবে ধরে রাখতে চায়।

5 Views

আরও পড়ুন

নব তরুণ ব্লাড ব্যাংক এর ৪৩ সদস্য বিশিষ্ট আহ্বায়ক কমিটি গঠন

চবি গ্রীন ভয়েস ও এসডোর উদ্যোগে পরিচ্ছন্নতা অভিযান ও ব্র্যান্ড অডিট সম্পন্ন।

নীলফামারী ডিমলায় ভুঁয়া পরীক্ষার্থীর কারাদণ্ড।

কাপাসিয়ায় বিভিন্ন অভিযোগে মিনি পেট্রোল পাম্পের মালিককে জরিমানা

মাওঃ আবদুল গফুর নীতিবোধ, নৈতিকতা, ইসলামী মূল্যবোধ ও আদর্শকে সঙ্গী করে আমৃত্যু পথ চলেছেন

দোয়ারাবাজারে মীনা দিবস উদযাপন

মুন্সীগঞ্জ পৌর যুবদল নেতা হত্যার প্রতিবাদে লোহাগাড়া যুবদলের বিক্ষোভ মিছিল

জবির ছাত্রী হলে অগ্নি নির্বাপক প্রশিক্ষণ

অনিয়মিত ইউরোপ ফেরতদের প্রতি অপবাদ ও বৈষম্য কমাতে সিফারের মাইগ্র্যান্ট প্রোজেক্ট

আন্তঃবিশ্ববিদ্যালয় ওয়াটারপোলো প্রতিযোগিতায় চ্যাম্পিয়ন ঢাবি

দেশব্যাপী উদযাপিত হল আইডিয়া ফ্রাইডে মিল এর ৫০তম সপ্তাহ

সামাজিক সংগঠন কি এবং কেন?