ঢাকাবৃহস্পতিবার , ১১ অগাস্ট ২০২২
  1. সর্বশেষ

সন্তানের উপর পিতা মাতার অধিকার!!

প্রতিবেদক
নিউজ এডিটর
১৬ জুলাই ২০২২, ১১:০৭ পূর্বাহ্ণ

Link Copied!

মোহাম্মদ আতিকুল্লাহ চৌধুরী

দুনিয়ায় বুকে একমাত্র পিতা মাতা হলো সন্তানের ছায়া। সন্তান ভূমিষ্ঠ থেকে শুরু করে প্রাপ্ত বয়ষ্ক পর্যন্ত পিতা -মাতাই সন্তানকে বকে আগলে রেখে লালন পালন করে।তাফসীর বিদ হযরত ওরওয়াকে
এক ব্যক্তি জিজ্ঞেস করলো, প্রবিত্র কোরআনে পিতা মাতার প্রতি বিনতি হওয়ার বিষয়ে যা বলা হয়েছে, তার অর্থ কি? হযরত পরওয়া জবাব দিলেন- তোমার নিকট পছন্দনীয় নয়, এমন কোন কথাও যদি তারা বলেন, তবুও তাদের প্রতি বক্র দৃষ্টিতে তাকিও না। কেননা বিরক্তির আলামত সর্ব প্রথম মানুষের চোখ থেকে ফুটে বের হয়। মুহাম্মদ ইবনে মুনকাদের রাজি, বলেন আমার বড় ভাই প্রায় রাতভর এবাদত বন্দেগিতে কাটিয়ে দিতেন। আমি তখন আমার অসুস্থ বৃদ্ধা মায়ের পা টিপতে থাকতাম। আমি মনে করি মায়ের পদসেবা করে যে পূন্য অর্জন করেছি তা আমার ভাইয়ের পূন্যের তুলনায় অনেকগুন বেশি। হযরত তালহা রাজি. বলেন, একবার এক যুবক রাসুলুল্লাহ সাঃ এর নিকট যুদ্ধে যাওয়ার জন্য আবেদন পেশ করলো।রাসুলুল্লাহ সাঃ তাকে জিজ্ঞেস করলেন তোমার মা কি জীবিত আছেন? যুবক হ্যাঁ সূচক জবাব দিলে রাসুলুল্লাহ সাঃ বললেন যাও,মায়ের সেবা করতে থাক। তার পায়ের নিচে তোমার জান্নাত রয়েছে। হযরত আনাস রাজি.বর্ণানা করেন,রাসুলুল্লাহ সাঃ বলেছেন, যে ব্যক্তি আয়ো বৃদ্ধি এবং ধনে জনে সমৃদ্ধি কামনা করে তার জন্য উচিত হলো পিতা- মাতার সাথে সর্বাধিকার সদ্ব্যবহার এবং নিকটাত্মীয় সুসম্পর্ক রাখা। এক ব্যাক্তি তার মাকে কোলে নিয়ে কাবা শরিফ তাওয়াফ করার পর হযরত নবী করিম সাঃ কে জিজ্ঞেস করেছিলেন – আমি কি মায়ের হক আদায় করতে পেরেছি? জবাবে রাসুলুল্লাহ সাঃ বলেছিলেন তার একটা শ্বাসের হকও আদায় হয় নি।
সন্তানের উপর মায়ের অধিকার পিতার তুলনায় তিনগুণ বেশি। কারণ মা সন্তানের জন্য তিন দফা দু:সহ কষ্ট ভোগ করে থাকেন।১. গর্বধারণের কষ্ট ২.সন্তান ধারণের কষ্ট ৩.এবং দুধ পান করানোর কষ্ট
।করোও পক্ষেই পিতা- মাতা কে কষ্ট দেওয়া উচিত নয়।হযরত আবু বক্কর রাজি. এ মর্মে একখানা হাদীস বর্ণনা করেছেন যে, সব ধরণের গুনাহ- ই আল্লাহ তায়ালা ক্ষমা করে দিবেন।কিন্তু পিতা মাতার কে কষ্ট দেয়া এমন এক জঘন্য পাপ, যার শাস্তি আল্লাহ তায়ালা দুনিয়া থেকে দেওয়া শুরু করেন।
বর্তমান জামানায় মাতা – পিতার সাথে বিয়াদবির ফল প্রত্যক্ষ ভাবে দেখা গেছে। যা জন সমাজের কাছে উম্মুক্ত। কিন্তু প্রত্যক্ষ এ শাস্তির করুন দৃশ্য দেখেও আমাদের মনকে পিতা মাতার প্রতি শ্রদ্ধাশীল হওয়া থেকে পিছিয়ে নিচ্ছে।যার প্রধান কারণ নিজের মাত পিতা ব্যতীত সমাজের অসৎ বন্ধু বান্ধব কে প্রধান্য বেশি দেওয়া। অসৎ বন্ধু বান্ধবের সাথে অগাত মেলামেশার দরুন নিজের পরিবার থেকে তারা বিচ্ছিন্ন হয়ে বন্ধু বান্ধবদেরকে আপন মনে করতে থাকে। কেউ নিজের স্ত্রী -বান্ধবীকে আপন মনে করে নিজের মাতাকে বিভিন্ন ভাবে কষ্ট দেয়।মাকে নিজের জীবনের সবচেয়ে বড় দুশমন মনে করে।কেউ ঘরে ছেড়ে অন্য মেয়ে কে নিয়ে সুখের ঠিকানা গড়ার চেষ্টা করে। কেউ বন্ধুদের সাথে মিশে অল্প সময়ে বন্ধু বান্ধবীর সংশ্রবে থাকার ফলে বিভিন্ন অপকর্মে লিপ্ত হয়।এভাবে তাদের মূল্যবান জীবনকে ধংসের দ্বারপ্রান্তে ঠেলে দেয়। যার কারণে একদিকে মাকে কষ্ট দেওয়ার কারণে সে দুনিয়াতে শাস্তি পেতে থাকে,অপর দিকে আখিরাত কে হারিয়ে চিরতরে জাহান্নামে ঠিকানা গড়ে নেয়।কিন্তু ভয়াবহ নির্মম জীবন থেকে পরিত্রাণ একমাত্র ইসলামই দিতে পারে। ইসলামেই একমাত্র সব সমস্যার সমাধান। আদব আখলাখ, শিষ্টাচার যা মানুষ কে সফলতার চুড়ান্ত স্থানে আসীন করে। যার ফলে সন্তান তার পিতা মাতার কে শ্রদ্ধা ঙ্গাপন করে। সম বয়সী ও মুরব্বিদের কে সম্মান করে। ফলে তার জীবনে ইহকালে শান্তি ও পরকালে চিরস্থায়ী জান্নাতে ঠিকানা করে নেয়। তাই আমাদের সকলের উচিত পিতা মাতার সদ্ব্যবহার করা। পিতা মাতারকে সবসময় হাসি মুখে রাখা।নিজের শত কষ্ট হলেও পিতা মাতার কে খুশী রাখা। আল্লাহ তায়ালা আমাদের সকল কে পিতা – মাতার উত্তম সেবা যত্ন করার তৌফিক দান করুন,,,,,, আমীন।।

লেখক ঃ মুহাম্মদ আতিকুল্লাহ চৌধুরী
কদলপুর রাউজান চট্টগ্রাম

আরও পড়ুন

হলদিয়া তরুণ ব্লাড ডোনার্সের কাউন্সিল উপলক্ষে প্রস্তুতি সভা সম্পন্ন

ঠাকুরগাঁওয়ে বেশি দামে সার বিক্রির দায়ে এক ব্যবসায়ীর এক মাসের জেল।

কাটারাই গ্রামে পূর্ব বিরোধের জের ধরে প্রতিপক্ষের উপর হামলা

খুচরা ও পাইকারি বাজারে চিকন চালের দাম আরো বেড়েছে

মানুষ দুঃসময়ে পড়ে গেছে : অর্থমন্ত্রী

সুবর্ণচরে অর্ধশতাধিক দোকান ঘর উচ্ছেদ

ফেসবুকে সরকার বিরোধী কটূক্তির দায়ে যুবক গ্রেফতার

নোয়াখালীতে গণপিটুনিতে গরু চোর নিহত

জনতার নিরবতাই মূল্যবৃদ্ধির জন্য দায়ি : মোমিন মেহেদী

২ জনের আমৃত্যু কারাদন্ডসহ অন্যান্যদের বিভিন্ন সাজায় নিশাত হত্যাকান্ডের রায় ঘোষনা

লোহাগাড়ায় এসিল্যান্ডের অভিযানে ৮৭ হাজার ঘনফুট বালু জব্দ

বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির টাকা দিয়েই সারতে হলো বাবার দাফন