ঢাকাশুক্রবার , ১৯ অগাস্ট ২০২২
  1. সর্বশেষ
  2. সারা বাংলা

নাগরপুরে ঐতিহ্য হারিয়ে ৩০ বছর যাবৎ বন্ধ গরুর হাট

প্রতিবেদক
নিউজ এডিটর
৭ জুলাই ২০২২, ১২:৪৮ পূর্বাহ্ণ

Link Copied!

নাগরপুর (টাঙ্গাইল) প্রতিনিধি :

টাঙ্গাইলের নাগরপুরে নিজস্ব ইতিহাস-ঐতিহ্য হারিয়ে উপজেলার অন্যতম পুরোনো সাপ্তাহিক গরুর হাট প্রায় ৩০ বছর যাবৎ বন্ধ রয়েছে। নাগরপুর সদর হরিভক্তপাড়া কেন্দ্রীয় মন্দির এলাকা তৎকালীন “গরুর হাটি” নামেই সর্বাধিক পরিচিত ছিলো। সদর বটতলা সংলগ্ন এই গরুর হাট সেই সময় পুরো জেলায় সমাদৃত ছিলো এবং দূর দুরান্ত থেকে বিক্রির জন্য গরু আসা সহ ক্রেতা-বিক্রেতার ব্যাপক পদাচরণে সব মিলিয়ে জমজমাট পরিবেশ বিরাজ করতো। তৎকালীন হাটের সাথে সংশ্লিষ্ট সূত্র বলছে, অতিরিক্ত খাজনা আদায়, অব্যবস্থাপনা ও নিরাপত্তা ইস্যুতে পুরোনো এই ঐতিহাসিক গরুর হাট বন্ধ হয়ে যায়। পরবর্তীতে বুধবার সাপ্তাহিক হাট সচল থাকলেও গরুর হাটে শৃঙ্খলা ফেরানোর চেষ্টা ও পুনরায় হাট চালু করণে কোনো জনপ্রতিনিধি বা সংশ্লিষ্টরা কেউ এগিয়ে আসেনি। এ বিষয়ে স্থানীয় বাসিন্দা মো: আরিফ হোসেন বলেন, প্রায় ৩০ বছর নাগরপুর গরুর হাট বন্ধ আছে। আমি ছোট বেলায় এই হাটে একটি গরু বিক্রি করতে এনেছিলাম। তখন হাট ব্যাপক জাঁকজমক ছিলো। আমার মতে সেই সময় দুর্ভোগের যাতায়াত ব্যবস্থা ও অতিরিক্ত খাজনা নেওয়া এই গরুর হাট বন্ধের অন্যতম কারণ।

দুয়াজানি এলাকার বাসিন্দা হাজী মো: আব্দুল হালিম জানায়, সেই সময়ে হাটে নিরাপত্তার অভাব ছিলো। ফলে ব্যবসায়ীরা হাটে আসা বন্ধ করে দিলে এক পর্যায়ে হাট বন্ধ হয়ে যায়।

তৎকালীন গরুর হাটের ইজারা সংশ্লিষ্ট কাজে জড়িত স্থানীয় বাসিন্দা মো: খোদা বক্স মিয়া জানায়, আমরা সেই সময় হাটে গরুর ব্যবসা করেছি ও ইজারা কাজে জড়িত ছিলাম। তখন হাটে থাকা খাওয়া সহ অন্যান্য সুবিধার খারাপ অবস্থা ছিলো। ইজারা সিন্ডিকেট ও অতিরিক্ত খাজনা আদায় এই হাট বন্ধের অন্যতম কারণ।

নাগরপুর উপজেলা সাবেক কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা মো: সুজায়েত হোসেন বলেন, নাগরপুরের জনপ্রিয় এই গরুর হাট অব্যবস্থাপনার জন্য বন্ধ হয়ে গেছে। এতে সরকার রাজস্ব থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। হাট বন্ধ হওয়ায় নাগরপুরের অর্থনৈতিক উন্নয়ন ব্যাহত হচ্ছে। আমরা সংশ্লিষ্ট প্রশাসনকে অবগত করেছি কিন্তু তারা এ ব্যাপারে উদাসীন। সুতরাং অনতিবিলম্বে অবৈধ ভাবে দখল হয়ে যাওয়া হাটের জায়গা উদ্ধার করে এই গরুর হাট পুনরায় চালু করার দাবী জানাচ্ছি।

বর্তমান সংশ্লিষ্ট গরুর হাটের ইজারাদার মো: আনিসুর রহমান মুঠোফোনে জানায়, জায়গা সংক্রান্ত জটিলতা শেষ করে হাটের পরিবেশ ফিরিয়ে এনে দ্রুত এই গরুর হাট পুনরায় চালু করা হবে। ইতিমধ্যে সদর ইউপি চেয়ারম্যানের সাথে এ বিষয়ে কথা বলেছি। আমরা সবাই পুরোনো এই হাট চালুর বিষয়ে আন্তরিক।

গরুর হাট বিষয়ে নাগরপুর সদর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মো: কুদরত আলী বলেন, নাগরপুরের ঐতিহ্যবাহী গরুর হাট বন্ধ হওয়ায় অন্যতম কারণ হচ্ছে হাটের জন্য নির্ধারিত জায়গা অবৈধ ভাবে দখল হয়ে যাওয়া ও অতিরিক্ত খাজনা আদায় করা। আমার পরিকল্পনা আছে এই গরুর হাট পুনরায় চালু করার। আমি হাট সংশ্লিষ্ট ইজারাদারের সাথে কথা বলেছি। এই হাটের সরকারি অনুমোদন আছে। আগামী বছর থেকে এই জনপ্রিয় গরুর হাট পুনরায় চালু করা হবে।

উল্লেখ্য, বর্তমানে নাগরপুর সদর এলাকায় বুধবার সাপ্তাহিক হাট পরিচালিত হচ্ছে। পুরাতন গরুর হাট এর স্থানে হাঁস-মুরগি কেনাবেচা হয়ে থাকে। পূর্বের ন্যায় হাট জমজমাট নেই বললেই চলে।

আরও পড়ুন

চাটখিলে ইতালি প্রবাসীর বাড়িতে দু*র্ধর্ষ ডা*কাতি

পানিতে ডুবে শিশুর মৃত্যু

সাঁতার শিখতে গিয়ে পুকুরে ডুবে স্কুলছাত্রের মৃত্যু

সেরা লেখক হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন অনিল মো.মোমিন

অর্থ পাচারের সুবিধার জন্য তেলের দাম দ্বিগুন : মোমিন মেহেদী

পাইকগাছায় পল্লীসমাজের উঠান বৈঠক অনুষ্ঠিত

আবদুল হাই ইদ্রিছী'র কবিতা
চা শ্রমিকের সংগ্রাম

আস-সুন্নাহ ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান
শায়েখ আহমাদুল্লাহর পিতার ইন্তেকাল

রাঙ্গাবালীতে সাগরে মাছ ধরতে গিয়ে বজ্রপাতে নিহত এক, আহত ৩

মিথ্যা অপবাদ ও অপ-প্রচারের প্রতিবাদে
যুবলীগ সভাপতি আমিনুল ইসলামের সংবাদ সম্মেলন!

তরুণ কালাম লেখক ফোরাম শাবিপ্রবির শাখার নেতৃত্বে আশরাফুল-রুবেল

১০ উপদেষ্টা নিয়ে কুমিল্লা ইউনিভার্সিটি রিসার্চ সোসাইটির যাত্রা শুরু

সিলেটের চার উপজেলার সাংবাদিক পেলেন পিআইবির প্রশিক্ষণ।