ঢাকাবৃহস্পতিবার , ১১ অগাস্ট ২০২২
  1. সর্বশেষ

ইন্টারনেট ও সন্ত্রাসবাদ জাহিদুল ইসলাম খন্দকার

প্রতিবেদক
নিউজ এডিটর
২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৩:৩৮ অপরাহ্ণ

Link Copied!

————————
কি আছে ইন্টারনেটে? এই প্রশ্নের জবাবে পাল্টা প্রশ্ন চলে আসে কি নেই ইন্টারনেটে? হাতের আঙুলগুলোর সামান্য স্পর্শেই পৃথিবীকে স্পর্শ করা সম্ভব ইন্টারনেটের বদৌলতে।আমরা সকলেই তথ্যপ্রত্যাশী।নিশ্চিত তথ্যের সন্ধানে ইন্টারনেটে আমরা ঢু মারি।কিন্তু প্রায়শই একই বিষয়ে অনেক তথ্য থাকায় এবং অনেক ক্ষেত্রে অতিরঞ্জিত তথ্যের সন্নিবেশের কারণে সঠিকতা নির্ণয়ে সংশয়ে পড়ে যাই। সমাধান খুঁজতে গিয়ে বরং নতুন সমস্যায় পড়ি। তথ্যপিপাসা মেটাতে যেয়ে শিকার হই তথ্যবিভ্রান্তির।

বর্তমানে বিশ্বে ইন্টারনেট ব্যবহারকারীর সংখ্যা ৪৩৯ কোটি।২০১৮ সালের জানুয়ারির তুলনায় ব্যবহারকারীর সংখ্যা বেড়েছে ৯ শতাংশ।সংখ্যাতাত্ত্বিক তুলনায় তরুণ এবং যুবকরাই সবচেয়ে বেশি ইন্টারনেটের সঙ্গে সম্পৃক্ত।তাদেরকে লক্ষ্য ধরেই নানাপ্রকার অপতৎপরতা এবং সন্ত্রাসী কর্মকান্ডের অগ্নিস্ফুলিঙ্গ ছড়ানোয় চেষ্টারত বিভিন্ন সন্ত্রাসবাদী সংগঠন। তরুণদের আবেগ বেশি এবং তাঁরা সহজেই আন্দোলিত হয় বলে তাঁদের ইমোশনকে পুঁজি করে ঘৃন্যপথে নিতে তাঁদের চেষ্টার কমতি নাই।

বিশ্বে সন্ত্রাসবাদী কার্যক্রম প্রত্যহ লক্ষনীয়।কয়েকদিন পূর্বেই ঢাকার বিভিন্ন পুলিশ চৌকিতে বিস্ফোরণের খবর আমরা প্রত্যক্ষ করেছি।দেখা গেছে এসব হামলার দায় স্বীকার করেছে বৃহৎ সন্ত্রাসবাদী সংগঠন ইসলামিক স্টেট(আইএস)। বিশ্বে যেখানেই হামলা হোক না কেন আইএস বিবৃতি দিয়ে বসে, ‘উই হ্যাভ ডান দিস।’ বিশ্বের চোখে খারাপ হয় মুসলিম জাতি। দোষ হয় ইসলাম ধর্মের। ইসলামকে দোষারোপের এ প্রবনতাকে বলা হয় ইসলামোফোবিয়া। কিন্তু যে ব্যক্তি এই আত্মঘাতী হামলা অথবা বোম্বিং এর সাথে জড়িত সে কেন হামলা চালালো? তাঁর উদ্দেশ্য কি ছিল? এসব বিশ্লেষণ করা হয় না। অথচ ইসলামে সন্ত্রাসবাদের কোন স্থানই নাই। ইতিহাসে ধর্মের জন্য যতগুলো যুদ্ধ হয়েছে সেখানে ইসলামের থেকে অন্যান্য ধর্ম যেমন ইহুদী, খ্রীস্টান ধর্মেই ধর্মকেন্দ্রিক যুদ্ধ কয়েকগুণ বেশি। আবার বিশ্লেষকদের নিকট এমন কথাও শোনা যায় আইএসের অন্যতম পৃষ্ঠপোষক নাকি যুক্তরাষ্ট্র।

বাংলাদেশের বিভিন্ন জায়গায় সম্প্রতি যে সন্ত্রাসবাদ আমরা দেখেছি সেগুলোর সাথে দুঃখজনকভাবে উচ্চশিক্ষিত ছেলেরাই জড়িত। যাদের মধ্যে বেশিরভাগই বিভিন্ন বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র।এমনকি কয়েকদিন আগে নারায়ণগঞ্জ থেকে কাউন্টার টেররিজম ইউনিট কর্তৃক যে অভিযান চালানো হয় সেখানে আটক হন আহসানুল্লাহ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় এবং খুলনা প্রকৌশল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের দুইজন শিক্ষক। কয়েকদিন আগে ঢাকায় পুলিশের উপড় যে হামলাগুলো হয়েছে তার সাথে এদের সম্পৃক্ত থাকার কথা ধারণা করা হচ্ছে।

কেন মানুষ সন্ত্রাসবাদের সাথে যুক্ত হয়? একজন মানুষ যখন চরম হতাশ হয়,যখন মনে করে তার সামাজিক কোন মূল্যই নেই তখন সে সমাজের বিপরীতে অবস্থান নেয়ার প্রয়াস পায়।সাংস্কৃতিক বিকৃতি,ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত,আইনশৃংখলার চরম অবনতি,স্বপ্নভঙ্গ, রাজনৈতিক অস্থিরতা এগুলো মানবমনকে দোলায়িত করে। এক ধরণের রুঢ় প্রবৃত্তির সৃষ্টি করে। ভার্চুয়াল সংযুক্ততাও অনেক সময় এই ধরনের মনোভাব তৈরী করে।প্রচুর এডভেঞ্চারাস এবং সিম্যুলেটিং গেম খেলে যখন কেউ এগুলোর প্রতি অত্যধিক আসক্ত হয় তখন এরকম সহিংস প্রবণতা তাঁর ব্যক্তিত্বে প্রবেশ করে। নিজের স্বকীয়তাকে জনপ্রিয় করতে তাঁরা সহিংস পথ বেছে নেয়।

প্রত্যেক ব্যক্তিই কোন না কোন পরিবারের সদস্য।সন্তানদের সঠিক মনোভাব গঠনে এই ক্ষুদ্র প্রতিষ্ঠানটির অভিভাবকদের তীব্র মনোযোগ দিতে হবে। ইন্টারনেটের দুনিয়ায় কোন বর্ডার না থাকায় সহজেই বিরূপ পথে যাওয়া সম্ভব।হাজার হাজার সন্ত্রাসবাদী ওয়েবসাইট রয়েছে যেখানে প্রবেশ করলেই তারা কাউন্সিলিং শুরু করে দেয়। তাঁদের পথে পা বাড়ানোর এটাই হয় প্রথম পদক্ষেপ।ইউটিউবে কিভাবে বিস্ফোরক দ্রব্য তৈরী করা যায় তার অসংখ্য টিউটোরিয়াল রয়েছে।বাংলাদেশে যারা সন্ত্রাসবাদের সাথে যুক্ত তাদের মোটামুটি সবাই ইউটিউব টিউটোরিয়াল দেখেই বোমা তৈরী শিখেছে।আপনার সন্তান ইন্টারনেটে কি করছে সেদিকে নজরদারি করুন।তাদের ব্রাউজিং হিস্টোরি চেক করুণ। যে সকল সাইট তরুণদের বিপথে নিয়ে যেতে পারে সরকারের উচিত সেগুলোর একসেস বাতিল করা।রাজনৈতিক সুষ্ঠু,স্থিতিশীল পরিবেশ বজায় রাখা।ক্রমেই সামাজিক সম্পৃতির বন্ধন ফিকে হয়ে যাচ্ছে ভার্চুয়াল জগতের প্রভাবে।কিভাবে এ বন্ধন দৃঢ় করা যায় তার কার্যকরী পদক্ষেপ নেয়া দরকার।দেশকে ভালোবাসতে হবে,দেশের প্রতি মমত্ববোধ সমস্ত প্রকার সন্ত্রাসবাদ থেকে মানুষকে দূরে রাখে ।

লেখক,
শিক্ষার্থী, দর্শন বিভাগ,৪র্থ বর্ষ
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়।

আরও পড়ুন

ঠাকুরগাঁওয়ে বেশি দামে সার বিক্রির দায়ে এক ব্যবসায়ীর এক মাসের জেল।

কাটারাই গ্রামে পূর্ব বিরোধের জের ধরে প্রতিপক্ষের উপর হামলা

খুচরা ও পাইকারি বাজারে চিকন চালের দাম আরো বেড়েছে

মানুষ দুঃসময়ে পড়ে গেছে : অর্থমন্ত্রী

সুবর্ণচরে অর্ধশতাধিক দোকান ঘর উচ্ছেদ

ফেসবুকে সরকার বিরোধী কটূক্তির দায়ে যুবক গ্রেফতার

নোয়াখালীতে গণপিটুনিতে গরু চোর নিহত

জনতার নিরবতাই মূল্যবৃদ্ধির জন্য দায়ি : মোমিন মেহেদী

২ জনের আমৃত্যু কারাদন্ডসহ অন্যান্যদের বিভিন্ন সাজায় নিশাত হত্যাকান্ডের রায় ঘোষনা

লোহাগাড়ায় এসিল্যান্ডের অভিযানে ৮৭ হাজার ঘনফুট বালু জব্দ

বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির টাকা দিয়েই সারতে হলো বাবার দাফন

পবিত্র আশুরা উপলক্ষে মারোত এর খাবার বিতরণ