রাজশাহী পুঠিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে শিশুর মৃত্যু

unnamed-7.jpg

শামীম পারভেজ-রাজশাহী থেকে:

রাজশাহীর পুঠিয়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে হাজেরা (৪) নামের এক শিশুর মৃত্যু হয়েছে। সেসময় শিশুটির মৃত্যুতে তার সজনেরা কর্তব্যরত ডাক্তারের উপর হামলা চালিয়েছে। হামলার শিকার পুঠিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ভারপ্রাপ্ত আরএমও ডাক্তার জিয়াউর রহমান। শুক্রবার সকাল সাড়ে সাতটার সময় এ ঘটনাটি ঘটে। শিশু হাজেরা পুঠিয়া পৌরসভার পালোপাড়া ওয়ার্ডে জহুর আলীর নাতনি ও মনির হোসেনের শিশু কন্যা। হাজেরার বাবার বাড়ি মুনন্সিঞ্জ জেলায়। হাজেরার আতিœয়-জনেরা জানায়, জহুর আলীর নাতনি মৃত হাজের তার নানার

বাড়ি বেড়াতে এসে শুক্রবার সকাল ৬টার সময় অসুস্থ্য হয়ে পড়ে। সেসময় তাকে পুঠিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করার জন্য নিয়ে আসে তার মা ও স্বজনরা। স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে হাজেরার চিকিৎসার এক পর্যায়ে ইনজেকশন দিলে সে মারা যায়। বিষয়টি অস্বীকার করে পুঠিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স কর্তব্যরত জরুরী বিভাগের ডাক্তার জানান, অসুস্থ্য হাজেরাকে ভর্তি করা জন্য জরুরী বিভাগে নিয়ে আসার পর তাকে রামেক হাসপাতালে নেওয়ার কথা বলা হয়। সেসময় তার স্বজনরা তাকে পুঠিয়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে ওয়ার্ডে নিয়ে যায়। সেখানে হাজেরা অসুস্থ্য হয়ে পড়লে ইনডোরে ডিউটিরত ডাক্তার জিয়াউর রহমানকে ডাকা হয়।

ডাক্তার জিয়াউর রহমান হাজেরাকে দেখে রামেক হাসপাতালে রিফার্ড করে। পরে তাকে রামেক হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার সময় হাজেরা মরা যায়। এ খবর জানার পর হাজেরার আতিœয় সজনেরা ডাক্তার জিয়াউর রহমানের উপর হামলা চালিয়ে তাকে লাঞ্ছিত করে। সেসময় ডাক্তার জিয়াউর রহমান দোড়ে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করলে তাকে ধাওয়া করে মারধোর করা হয়। সেসময় স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে কর্তব্যরত ডাক্তার কর্মচারীরা আতঙ্কিত হয়ে পড়ে। খবর পেয়ে পুঠিয়া থানা পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে।

Top