অভিষেক নামক পুলিশ সদস্যের ইসলাম ধর্ম গ্রহণ

RYHjLvOdqUCtuUYiVqH5Monirampur_2-1.jpg

আরিফ ইকবাল নূরঃ

সিলেট জৈন্তাপুর উপজেলার অভিষেক দাস বাপন ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করছে।তার পিতা ইরেন চন্দ্র, মাতা শেফালী রানী দাস।
অভিষেক দাস বাপনের বর্তমান নাম ইয়াসির আল ইফতি। সে বর্তমানে হবিগঞ্জ পুলিশ লাইনে কনস্টবল হিসেবে কর্মরত অাছেন।

অভিষেক দাস বাপন বলেন, আমি এই দীর্ঘ বয়সে আমি আমার হিন্দু ধর্মের সাথে ইসলাম ধর্মের নিয়ম-কানুন ইত্যাদি সম্পর্কে অবগত হয়েছি এবং ইসলাম ধর্মের লোকদের সংস্পর্শে আসি। ইসলাম ধর্মের প্রতি আমার দৃঢ় বিশ্বাস জন্ম নিয়েছে। তাই আমি মনে করি এবং দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করি যে, এই পৃথিবীর সব ধর্মের মধ্যে ইসলাম ধর্মেই সর্বশ্রেষ্ঠ এবং পবিত্র। তাই আমার বিশ্বাস এবং অনুভূতির মাধ্যমে কারো প্ররোচনা ব্যতিত সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছি যে, আমি পবিত্র ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করে বাকী জীবন ইসলামিক অনুশাসন, আচার-আচরণ মেনে জীবন-যাপন করব। তাই আমি ইসলামী জীবনাদর্শের প্রতি দৃঢ় বিশ্বাসী হয়ে আমার পরিচিত আলেমের নিকট ইসলামের অন্যতম স্তম্ভ পবিত্র কালেমা পড়ে আল্লাহ ও রাসুলের প্রতি বিশ্বাস স্থাপন করে আমি হিন্দু ধর্ম ত্যাগ করে ইসলাম গ্রহণ করেছি। আমার নাম পরিবর্তন করে ইয়াসির আল ইফতি ধারণ করেছি এবং আমি সর্বত্র সর্বস্থানে মুসলিম হিসেবে পরিচয় বহন করব। এখন থেকে আমি ইসলাম ধর্মের সকল রীতিনীতি মেনে চলব।ইহাতে কেউ কোন প্রকার আপত্তি করতে পারবে না কিংবা কোন প্রকার দাবী দাওয়া বা বাধা বিঘ্ন সৃষ্টি করলে তাহা সর্ব আইন আদালতে অগ্রাহ্য বলে গণ্য হবে। যেহেতু আমি স্বেচ্ছায় কারো প্ররোচনা ব্যতিত হলফনামার (এভিডেভিট) মাধ্যমে পবিত্র ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেছি।

তিনি আরো বলেন, আমি অনেক দিন ধরে সঠিক জীবন ব্যবস্থা খুঁজেতেছি এবং বিভিন্ন ধর্মের বই পড়েছি কিন্তু আমার মনে হল ইসলামই একমাত্র সঠিক জীবন-ব্যবস্থা। আমি মুসলমানদের আচার-আচরণ, ধর্মীয় রীতিনীতি দেখে ইসলাম ধর্মের প্রতি আকৃষ্ট হয়ে পড়ি।
তাই আমি ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেছি।
তিনি সবার কাছে দোয়া চেয়েছেন যেন বাকী জীবন ইসলামী জীবনাদর্শে আলোকে জীবন-যাপন করতে পারেন।

Top