মিঠাপুকুরে চাঁদা না পেয়ে ইয়াবা দিয়ে ফাঁসানোর অভিযোগে মানববন্ধন

64828370_1114216272117107_5393505654121955328_n.jpg

মো. রাফিউল ইসলাম (রাব্বি),
স্টাফ রিপোর্টার, রংপুর:]

রংপুরে দাবিকৃত চাঁদা না পেয়ে এক পল্লী চিকিৎসককে ইয়াবা দিয়ে মিথ্যা মামলায় ফাঁসানোর অভিযোগ উঠেছে পুলিশের বিরুদ্ধে। এ ঘটনার প্রতিবাদে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ করেছে গ্রামবাসী।
গতকাল রোববার (২৩ জুন) দুপুরে রংপুরের মিঠাপুকুর উপজেলার বুজরুক সন্তোষপুর গ্রামে এ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। এতে আটক পল্লী চিকিৎসক আবু বক্কর সিদ্দিক আবিরের নিঃশর্ত মুক্তিসহ দায়েরকৃত মামলা প্রত্যাহারের দাবি জানানো হয়।
সমাবেশে গ্রামবাসীরা জানান, বিয়ে করতে গিয়ে কনে পক্ষের লোকজনের সাথে ঝগড়া বিবাদে জড়িয়ে পড়েন পল্লী চিকিৎসক আবির। একপর্যায়ে কনে পক্ষ তাকে আটক করে রাখেন। এ নিয়ে বর ও কনে পক্ষের মধ্যে হাতাহাতির উপক্রম হলে মোর্শেদা বেগম তার ছেলে আবিরকে উদ্ধারে পুলিশের সহযোগিতা চান।
পরে এসআই গোলাম রব্বানীর সঙ্গীয় ফোর্স আবিরকে ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করে থানা হেফাজতে নেন। সেখানে আবিরের মা মোর্শেদার কাছে এক লাখ টাকা দাবি করেন ঐ পুলিশ কর্মকর্তা। এক পর্যায়ে টাকা দিতে না পারায় ১২ পিস ইয়াবাসহ আবিরকে গ্রেফতার দেখান তিনি। এরপর থেকে আবির জেল-হাজতে আটক রয়েছেন।
আবিরের মা মোর্শেদা বেগম জানান, সাড়ে চার মাস আগে একই উপজেলার মকিমপুর গ্রামের রমজান আলীর মেয়ে রাফেজার সাথে তার ছেলের বিয়ে সম্পন্ন হয়। গত ১০ জুন বিবাহ পরবর্তী অনুষ্ঠানে দাওয়াতে গিয়ে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র কনে ও বর পক্ষের মধ্যে মারধরের ঘটনা ঘটে।
এদিকে এ ঘটনার প্রতিকার চেয়ে পুলিশ সুপারের কাছে অভিযোগ করেন মোর্শেদা বেগম। কিন্তু পুলিশ সুপারের কাছ থেকে কোনো প্রতিকার না পেয়ে রোববার দুপুরে আবিরের পরিবার ও বিক্ষুব্ধ গ্রামবাসী প্রতিবাদ সমাবেশ করেন।
এ ব্যাপারে বালুয়া মাসুমপুর ইউনিয়নের ৫নং দিঘলটারী ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মোনায়েম পাইকাড় বলেন, ‘পল্লী চিকিৎসক আবির কোনোদিন মাদক সেবন বা মাদকের সাথে জড়িত ছিল না। পুলিশ তার বিরুদ্ধে মাদক মামলা দিয়ে অন্যায় করেছে।’
বালুয়া মাসুমপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ময়নুল হক বলেন, ‘আবু বক্কর সিদ্দিক মাদকসেবী নয়। সে মাদকের কারবার করে না। মিথ্যা মামলা দিয়ে পরিবারটিকে হয়রানি করা হচ্ছে।’
এ বিষয়ে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এসআই গোলাম রব্বানী বলেন, ‘আমরা কোনো চাঁদা চাইনি। এটা মিথ্যা অভিযোগ। ওসি স্যারের অনুমতি ছাড়া আর কোনো মন্তব্য করতে চাই না।

Top