গোদাগাড়ীতে ফরজান হত্যাকাণ্ডের বিচারের দাবিতে মানববন্ধন

unnamed-11.jpg

শামীম পারভেজ -রাজশাহী জেলা প্রতিনিধি :

গোদাগাড়ী বৃদ্ধ ফরজান আলী (৬৫) হত্যাকাণ্ডের বিচারের দাবিতে মানববন্ধন করেছে এলাকাবাসি। শনিবার দুপরে উপজেলার হরিশংকরপুর এলাকায় এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

এসময় স্থানীয়রা বিভিন্ন ফেস্টুন নিয়ে মানববন্ধনে দাঁড়ায়। মানববন্ধন থেকে এই হত্যাকাণ্ডের বিচার দাবি জানায় এলাকাবাসি।

মামলারবাদী মৃত ফরজান আলীর ছেলে আব্দুল হাকিম বলেন, আমার সৎ মা পলি (৩৮)। দীর্ঘদিন থেকে বাবা ফরজান আলী সম্পতি হাতিয়ে নেওয়ার ষড়যন্ত্র চালাচ্ছিল। তার অংশ হিসেবে বাবা ফরজানকে হত্যা করা হয়েছে বলে দাবি তার।

তিনি আরো বলেন, এই হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে পলির বাবা আল্লাম (৫৫), পলির ভাই পলাশ (২৮) ও তৌফিক ওরফে দেঘেল (২৫) পলির মা পুতুল (৫০), পলির ভাবি জান্নাতুল (২০) পলির ফুফাতো ভাই সোহেল (২৯) পলির দুলাভাই তুকা (২০), পলির ভাগ্নি আসমা (২৪), পলির ভাগ্নি জামাই ইসমাইল (২৭) ও কুরবান জড়িত রয়েছে। ঘটনার পরেই তারা পলাতক রয়েছে। ঘটনার পরে ১৫ জুন মামলা হলে পুলিশ পলি, পুতুল ও জান্নাতুনকে গ্রেফতার করে।

স্থানীয়দের বরাত দিয়ে নিহতের ছেলে হাকিম জানায়, বাবা ফরজান আলীর এই বছর হজে¦ যাওয়া কথা ছিলো। তাই আত্মীয় স্বজনের থেকে মাফ ও দোয়া কামনা করছিলেন। সেই সূত্রে স্ত্রী পলি বাড়িতে গত ৯ জুন সকালে এসেছিলেন শ^শুর বাড়ি। এর আগে জমি নেওয়াকে কেন্দ্র করে স্ত্রী পলি ২ মাস আগে বাবার বাড়িতে চলে আসেন। এসময় পলির বাড়িতে স্বামী ফরজান ঢুকলে তাকে ঘাড় ধাক্কা দিয়ে বের করে দেয়।

পরে ফরজান এলাকার মসজিদে নামাজ শেষে বাড়িতে গিয়ে স্ত্রী পলিকে বলেন, তোমাকে এর আগে টাকাও দিয়েছি। আবার তুমি ২ বিঘা জমি দাবি করছো। আমি হজ¦ থেকে ফিরে জমি রেজিঃ করে দেব। এসময় পলি বলে, তুই আমার বাড়ি থেকে যা, না হলে তোর বরাত খারাপ আছে। তবুও তিনি বাড়িতে থেকে গেছেন স্ত্রী পলিকে বোঝানোর স্বার্থে।

পরের দিন সকালে ফরজান আলীর মরদেহ পাশের আম বাগানে ঝুলতে দেখে। পুলিশে খবর দিলে মরদেহ উদ্ধার করে। তার শরীরে আঘাতের চিহ্ন ছিল। শরীরের কাঁদা মাখা ও মাটিতে পা লেগে ছিলো। মামলার বাদী পক্ষের অভিযোগ আসামিরা প্রভাবশালী ও অর্থবান হওয়ার কারণে পুলিশ ঠিক মত আসামী ধরছে না। এছাড়া পুলিশ প্রথামে মামলা নিতে অনেকটাই গড়িমসি করেছে। এই অবস্থায় সঠিক বিচার পাওয়া নিয়ে শঙ্কিত রয়েছে ভুক্তভোগির পরিবার।

ওই এলাকার নারী মেম্বার মর্জিনা বেগম বলেন, এটা হত্যাকাণ্ড। হত্যাকারীরা হত্যাকাণ্ডকে ভিন্নখাতে প্রবাহিত করতে ফরজানকে গাছের সঙ্গে ঝুঁলিয়ে দিয়েছে। এই হত্যাকাণ্ডে সুষ্ঠ তদন্ত করে হত্যাকারীদের সর্বচ্চো স্বাস্থির দাবি করেন তিনি।

গোদাগাড়ী মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জাহাঙ্গীর আলম বলেন, এঘটনায়, গত ১২ জুন বুধবার ফরজানের হাকিম বাদী হয়ে সৎ মা পলিকে ১ নম্বর আসামী করে ১১ জনের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা দায়ের করেছেন। পলিসহ তিনজন আসামীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। বাকিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে। তিনি আরো বলেন, ময়না তদন্তের রিপোর্ট হাতে এলে বিষয়টি পরিস্কার হবে।

Top