সিটি কর্পোরেশনের রাস্তায় ধানের চারা রোপন করে অভিনব প্রতিবাদ

IMG_20190622_014004.jpg

এমডি জাহান, রংপুর থেকে —

আজ থেকে ৬ বছর আগে রংপুর সিটি কর্পোরেশন গঠিত হলেও ১৪ নং ওয়ার্ডের অন্তুর্ভুক্ত মরিচটারী গ্রামের দুর্দশা যেন কাটছেই না। সময়ের ব্যবধানে এই দুর্দশা যেন জেঁকে বসেছে। মরিচটারী গ্রামের রাস্তার অবস্থা এতোটাই শোচনীয় যে মাত্র আধা ঘন্টার বৃষ্টিপাত হলে রাস্তা ব্যবহারের অনুপযোগী হয়ে পড়ে। অসহনীয় দুর্ভোগ পোহাতে হয় গ্রামবাসীসহ দূরদূরান্ত থেকে আসা এই রাস্তা ব্যবহারকারী পথচারীদের। বর্ষা মৌসুম সবেমাত্র শুরু, তাতেই রাস্তার যে করুণ অবস্থা তা নিয়ে এলাকাবাসী উদ্বিগ্ন। স্থানীয়দের অভিযোগ, অত্র ওয়ার্ডের কাউন্সিলরকে এই বিষয়ে একাধিকবার বলা হলেও কাজের কাজ কিছুই করেননি। তিনি শুধু আশ্বাসের বাণীই শুনিয়েছেন। কখনো কার্যকরী উদ্যোগ গ্রহণ করেননি। তাই এলাকার জনসাধারণ ১৯ জুন মরিচটারী টু ফতেপুর ভূরঘাট যাতায়াত করার অন্যতম রাস্তা রেললাইন সংলগ্ন হায়দার আলীর দোকানের সামনে ধানের চারা রোপন করে অভিনব প্রতিবাদ করেছেন। রাস্তায় ধানের চারা রোপনকারী নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন প্রতিবাদকারী বলেন,শুধু আমাদের এলাকার মানুষ নয়, মোড়লটারী, তেলিটারী, দুর্গাপুর, ফতেপুরসহ অনেক এলাকার শত শত মানুষ এই রাস্তাটা ব্যবহার করে। অথচ দেখেন, এমন চলন্ত রাস্তার কি বেহাল দশা! রাস্তাটা ব্যবহারের কতটা অনুপযোগী হয়ে পড়েছে রাস্তায় ধানের চারা রোপন করে সংশ্লিষ্ট সবাইকে তা বুঝাতে চাইছি। আরেকজন প্রতিবাদকারী বলেন, বর্ষাকাল এখনো পুরোটাই পড়ে আছে অথচ রাস্তায় হাটু কাদা। এমতাবস্থায় ধানের চারা রোপন করা ছাড়া আর কি বা করার আছে। নয়ন নামে একজন পথচারী বলেন, রাস্তাটা মেরামত করা খুবই জরুরি হয়ে পড়েছে। রাস্তাটা মেরামত না করলে ভরা বর্ষা মৌসুমে এই রাস্তা দিয়ে চলাফেরা করা খুবই দুষ্কর হয়ে পড়বে। স্থানীয়দের অভিযোগ বিষয়ে জানতে রসিকের ১৪ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর শফিকুল ইসলাম মিঠুকে একাধিক বার কল করা হলেও তার ব্যবহৃত ফোন নাম্বার বন্ধ পাওয়া যায়। রসিকের মেয়র মোস্তাফিজুর রহমান মোস্তফার কাছে এ বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, টার্মিনাল থেকে মরিচটারী মোড় পর্যন্ত রাস্তা পাকা। আর মরিচটারীর যে রাস্তার কথা বলছেন ঐ টা লিংক রোড। আর আমি এ বিষয়ে কিছু জানিও না। আপনি অবগত করলেন। আগামীকাল( আজ) শক্রবার বন্ধ, রবিবারে লোক পাঠাবো।

Top