সুনামগঞ্জে এক বিকেলেই তিন লাশ!

IMG_20190616_233150.jpg

স্টাফ রিপোর্টার,সুনামগঞ্জ :
দুই শিশু অপর এক অজ্ঞাতনামা ব্যাক্তি সহ এক বিকেলেই সুনামগঞ্জে ধর্মপাশা ও ছাতকে পাওয়া গেল তিন জনের লাশ।
শনিবার বিকেলে জেলার ছাতকে পুকুরের পানিতে ডুবে তামান্না আক্তার ও রিনি বেগম নামে দুই বোনের অকাল মৃত্যু ঘটে।
নিহতরা হলেন, ছাতক উপজেলার সাউদপুর গ্রামের করিম বক্সের মেয়ে তামান্না আক্তার (৭) ও অপরজন তারই আপন খালাতো বোন সিলেটের গোলাপগঞ্জ উপজেলার ভাদেশ্বর গ্রামের রাজা মিয়ার মেয়ে রিনি বেগম (৭)। অপরজন এক অজ্ঞাতনামা ব্যাক্তি।
শনিবার বিকেলে বসতবাড়ি লাগোয়া পুকুর থেকে ওই দুই বোনকে উদ্ধার করে ছাতকের কৈতক হাসপাতালে নিয়ে গেলে সেখানকার কর্তব্যরত চিকিৎসক তাদের মৃত ঘোষণা করেন।,
নিহতের শিশুদ্বয়ের পরিবার জানায়,উপজেলার সাউদপুর গ্রামে শনিবার দুপুরের পর বাড়ি আঙ্গিনায় তামান্না ও রিনি দুই খালাতে বোন খেলাধুলা করার সময় পরিবারের সবার অলক্ষে পুকুরের পানিতে গড়িয়ে পড়ে নিখোঁজ হয়।
পরিবারের লোকজন ও প্রতিবেশীরা পুকুর থেকে ওই দুই শিশুকে উদ্ধার করে স্থানীয় কৈতক হাসপাতালে নিয়ে গেলে সেখানকার দায়িত্বরত চিকিৎসক জানান হাসপাতালে নিয়ে আসার পুর্বেই ওই দুই শিশু মারা যায়।,
রোববার সকালে ছাতকের গোবিন্দগঞ্জ-সৈদেরগাঁও ইউপি চেয়ারম্যান আখলাকুর রহমান ওই দুই শিশু পুকুরের পানিতে ডুবে মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেন।
উল্ল্যেখ যে, সিলেটের গোলাপগঞ্জের ভাদেশ্বর গ্রাম থেকে পরিবারের অন্যদের সাথে সুনামগঞ্জের ছাতকের সাউদপুর গ্রামের খালার বাড়ি গত বৃহস্পতিবার বেড়াতে এসেছিলো শিশুকন্যা রিনি বেগম।,
এদিকে শনিবার বিকেলেই সুনামগঞ্জের ধর্মপাশা থানা পুলিশ দুধবহর গ্রামের পাশে দিয়ে বয়েচলা কংস নদী থেকে এক অজ্ঞাতনামা ব্যাক্তির লাশ উদ্যার করে মর্গে পাঠিয়েছে।,
রোববার সকালে ধর্মপাশা থানার ওসি মো এজাজুল ইসলাম জানান, নিহত ব্যক্তির বয়স ২৫ থেকে ৩০ হবে। ওই লাশের পরিচয় শনাক্তে দেশের সব থানায় ছবি সহ বার্তা প্রেরণ করা হয়েছে।,

Top