রাজশাহীতে দিনের বেলা প্রকাশ্যে বিপদজনক রডের ভ্যান!

unnamed-1-4.jpg

শামীম পারভেজ – রাজশাহী থেকে:
রাজশাহী মহানগরীতে দিনের বেলায় প্রকাশ্যে রডের ভ্যান চলাচল করছে। এতে যেকোনো সময় ঘটে যেতে পারে বড় ধরণের দুর্ঘটনা। কোনো ধরণের প্রটেকশান ছাড়াই রড ভর্তি ভ্যানগুলো নগরীর ব্যস্ততম রাস্তায় চলাচল করছে। নির্মাণের কাছে রড ব্যবহৃত হওয়ায় তা নগরীর এক স্থান থেকে অন্য স্থানে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, দীর্ঘদিন ধরেই রাজশাহী মহানগরীর ব্যস্ততম সড়কগুলো দিয়ে যাতায়াত করছে রড বোঝাই ভ্যান। এ সব ভ্যানে বিপদজনক রড থাকলেও কোনো প্রটেকশান দেওয়া হয়না। যার কারণে যেকোনো মুহূর্তেই ঘটে যেতে পারে দুর্ঘটনা। এতে পথচারীসহ অন্যান্য রিক্সা,

অটোক্সিা ও মোটরসাইকেল চালকরা রডেল ভ্যানের ধাক্কা খাওয়ার শঙ্কায় থাকেন। তারপরও এদের বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা নেওয়া হয় না। নগরবাসীর পক্ষ থেকে অভিযোগ রয়েছে, ভবন নির্মাণে ব্যবহৃত অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ সামগ্রী রড। এ রড মালিকরা দিনের বেলাতে মানুষের সুবিধা-অসুবিধার কথা চিন্তা না করে ভ্যানে করে এক স্থান থেকে অন্য রড নিয়ে যায়। রড নিয়ে যাওয়ার সময় রডের সামনে বা পেছনে কোনো প্রটেকশান ব্যবহার করা হয়না। সামনের অংশ বা পেছনের অংশ যেকোনো মুহূর্তে লেগে যেতে পারে। এতে মুহূর্তেই ঘটতে পারে দুর্ঘটনা। আব্দুল্লাহ নামের এক মোটরসাইকেল আরোহী অভিযোগ করে বলেন, আমি নিউমার্কেটের সামনে দিয়ে মোটরসাইকেল নিয়ে যাচ্ছিলাম।

এ সময় একটি রডবাহী ভ্যান আমাকে সামনে থেকে ধাক্কা দেয়। ধাক্কায় আমি মোটরসাইকেল থেকে ছিটকে রাস্তায় পড়ি। ভ্যানটি সেখান থেকে চলে যায়। সজল নামের এক পথচারী অভিযোগ করে বলেন, রডব্যাহী ভ্যান দিনে চলাচল করায় দুর্ঘটনার সম্ভাবনা থাকে। তাই এগুলোর একটা নির্ধারিত সময় বেঁধে দিলে মানুষের সুবিধা হয়। দুর্ঘটনাও এড়ানো সম্ভব। কয়েকজন সচেতন মানুষের সাথে কথা হলে তারা জানান, রডবাহী ভ্যান নিয়ে গেলে অবশ্যই প্রটেকশান দিয়ে নিয়ে যাওয়া উচিত। যদি তা না করা হয় তাহলে দুর্ঘটনা ঘটতে পারে। নাহলে রাতের বেলা একটা সময় বেঁধে দেওয়া যেতে পারে। কারোই

কোনো সমস্যা না হয়। এ বিষয়ে রাজশাহী মেট্রোপলিটন পুলিশের উপ-পুলিশ কমিশনার ট্রাফিক অনির্বান চাকমা বলেন, দিনের বেলায় ভ্যান চলাচলতো নিষেধ করা যায় না। তারপরও রডবাহী যদি বিপদজনকভাবে চলাচল করে তাহলে সে বিষয়টি খতিয়ে দেখে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Top