কক্সবাজার সরকারী উচ্চ বিদ্যালয়ের বাউন্ডারী নির্মাণের কাজে দুর্নীতি ও অনিয়মের অভিযোগ

received_834814343563278.jpeg

আব্দুল গফুর,কক্সবাজার শহর থেকে
কক্সবাজার সরকারী উচ্চ বিদ্যালয়ের বাউন্ডারীর নির্মাণের কাজে নিম্নমানের পুরাতন ইট দিয়ে বাউন্ডারী নির্মাণ ও রাতের অন্ধকারে পিলার ঢালাইয়ের কাজসহ যাবতীয় নির্মাণ কাজে ব্যাপক অনিয়মের অভিযোগ ঠিকাদারের বিরুদ্ধে ।

সরেজমিনে দেখা যায়, পঞ্চাশ বছরের আগের ইটের দেওয়ালটি হেলে পড়ায়,সেটি ভেঙ্গে নতুন দেওয়াল নির্মাণের কাজটি নেন মনছুর আলম নামক টিকাদারী প্রতিষ্ঠান। ১৯৭৬ সালে ইটদ্বারা তৈরিকৃত ভাঙ্গা দেওয়ালটির সেই পুরানো ইট দিয়ে নির্মাণ করা হচ্ছে নতুন দেওয়ালটি। যাতে অল্প টাকায় কাজটি শেষ করা যায় এর জন্য পুরাতন ইট ও কংকর দিয়ে তড়িগড়ি করে নির্মাণকাজ শেষ করা হচ্ছে। একাজে ব্যাপক অনিয়ম ও দুর্নীতিতে করে গভীর রাতে ঢালাইয়ের কাজে ব্যবহার করা হয়েছে নিম্নমানের এবং তারিখবিহীন পুরাতন ইট সামগ্রী-এমন অভিযোগ প্রত্যক্ষদর্শীদের।

বাউন্ডারী নির্মাণ কাজে ব্যবহারের জন্য নিম্নমানের পুরুনো ইট,কম পরিমাণ উপাদান ও নিম্নমানের উপকরণ দিয়ে তড়িগড়ি করে ঈদের আগে রাতের অন্ধকারে দুর্নীতির আশ্রয় নিয়ে বাউন্ডারী নির্মাণের কাজ শেষ করার চেষ্টা করছে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানটি।

স্থানীয়দের অভিযোগ, নিম্নমানের বালু,কংকর ব্যবহার করছে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানটি বেশি মুনাফা লাভের আশায়। নিম্নমানের কাজ করা হচ্ছে জেনেও কেন প্রতিকার চাইছে না খোদ স্কুলের প্রধান শিক্ষক,তার দায়িত্ববোধ নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে স্থানীয়রা। বিষয়টি নিয়ে উক্ত হাই স্কুলের প্রধান শিক্ষককে অভিযোগ করার পরও কোন কাজ হচ্ছে না, এমন প্রশ্ন বার বার ঘুরপাক খাচ্ছে। নিম্নমানের কাজ নিয়ে এলাকাবাসী ও অভিভাবকদের মধ্যে চরম অসন্তোষ বিরাজ করছে।

বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রামমোহন সেনের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, এই বিষয়ে তার কোন ধারনা নেই। তবে পুরাতন ইট দিয়ে বাউন্ডারী নির্মাণ ঝুঁকিপূর্ণ হতে পারে। এই বিষয়ে জেলা শিক্ষা অধিদপ্তরের প্রকৌশলী ভালো জানবেন।

জেলা শিক্ষা অফিসের অধিদপ্তরের প্রকৌশলী জানান,এ বিষয়ে খতিয়ে দেখে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Top