ঈদে দরিদ্রদের মুখে হাসি ফোটাতে ভিন্ন উদ্যোগে এগিয়ে এলো কাপ্তাই উপজেলার কিছু যুবক

received_333713643982038.jpeg

এম.এ ওয়াহিদ :

এই ঈদে অসহায়দের মুখে হাসি ফোটানোর লক্ষ্যে ‘ঈদ বস্ত্র বিতরণ কর্মসূচি’ এর মাধ্যমে এগিয়ে এলো কাপ্তাই উপজেলার তরুণসমাজ।

ঈদবস্ত্র বিতরণ কর্মসূচির প্রধান উদ্যোক্তা মোহাম্মদ সোহেল আরাফাত বলেন, ” আমি ভিন্ন ভাবে উদ্যোগ নিয়েছি। প্রতিটা বাবা-মা এর সার্মথ্য থাকুক আর নাই থাকুক তার সন্তানদের সাধ্য অনুযায়ী চেষ্টা করেন,ঈদে কাপড় কিনে দিয়ে তাদের মুখে হাসি ফোটাতে।

আর মা-বাবা আলমারীতে পড়ে থাকা,সে শাড়ি আর পাঞ্জাবী দিয়ে চালিয়ে দেয় তাদের ঈদ!
মিথ্যা হাসি দিয়ে আড়াল করে তাদের দুঃখ!
তাদের আনন্দে মনটাই ভরে যায়,যখন ছেলে-মেয়ে ঈদের সে সুন্দর কাপড়টা পেয়ে আনন্দে হৈ হুল্লোড় করতে থাকে।

তাদের মুখে হাসি ফুটাতে আমাদের এই ছোট উদ্যোগ, আমরা সংগঠনবিহীন হয়েও অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়াতে সক্ষম হয়েছি ।

মাত্র ২০-২৫ জন ! বলতে গেলে খুবই কম সংখ্যক মানুষের পাশে দাঁড়াতে সক্ষম হয়েছি।ইনশাআল্লাহ দোয়া করবেন ভবিষ্যত যেন আমরা বড় পরিসরে ঈদের আনন্দটা ভাগাভাগি করে এইসব মানুষের মুখে হাসি ফোটাতে পারি ”

এই আয়োজনে উপস্থিত হয়ে,সহযোগিতা করে সময় দেওয়ার জন্য তিনি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার আশরাফ আহমেদ রাসেল স্যারের প্রতি।

যারা এ মহৎ কাজের পাশে থেকে সমর্থন করেছেন, তারা হলেন : স্যার নাজমুর রহমান, ফারজানা ইয়াসমিন কলি,সিনথিয়া সিমিকা, সাবরিনা সুলতানা,জি.এস শামীম,মোহাম্মদ সাদ্দাম হোসাইন,প্রিন্স মাহমুদ সুমন।

আরো উপস্থিত ছিল বন্ধুমহল নাঈম,সাইফুল ইসলাম,মোহাম্মদ ইমরান হোসেন,মোহাম্মদ মেছবাহ উদ্দিন,সুব্রত দাশ রাজ৷ তিনি তাদের প্রতি বিশেষভাবে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

যারা সক্ষম তাদের সকলকে গতকাল উপজেলা নির্বাহী অফিসারের অফিসে ঈদ বস্ত্র বিতরন করা হয় এবং যারা আসতে অক্ষম তাদের বাসায় গিয়েই বস্ত্র বিতরনের সিদ্ধান্তগ্রহণ করা হয়।

আয়োজনকালে কাপ্তাই উপজেলার নির্বাহী অফিসার আশরাফ আহমেদ রাসেল স্যার এত সুন্দর পদক্ষেপ দেখে অত্যন্ত আনন্দ প্রকাশ করেন এবং সকলের কাছে দোয়া চান যাতে উদ্যোগ গ্রহণকারীরা পরবর্তীতে আরো সামনের দিকে এগিয়ে যেতে পারেন।

পরিশেষে সোহেল আরাফাত আরো বলেন : ” আমরা যদি এটা ভাবতে পারি যে, আজ ঈদের দিন আমার পরিবারের সবাই নতুন কাপড় পড়বেন তবে আমার প্রতিবেশী সে/তিনি কেন পুরাতন কাপড় পড়বেন ? তার কথাটা একবার চিন্তা করি তবেই বছরের এই দিনটা অন্তত সবাই নতুন কাপড় পড়ে আনন্দটা ভাগাভাগি করতে পারবো, ইনশাআল্লাহ।

Top