বৈচিত্র্যময় রূপের মানুষ–মোঃ ফিরোজ খান

2019-05-29-22-05-10.jpg

———————
দীর্ঘ একটি মাস সিয়াম সাধনার পরে প্রত‍্যেক ধনী গরীব মুসলিম সম্প্রদায়ের মধ্যে আসে আনন্দের দিন “ঈদুল ফিতর”এই দিনটিকে ঘিরে সকল মুসলিম সম্প্রদায়ের মাঝে দেখা দেয় আনন্দ উল্লাস।আজ ২১ শে রমজান এইতো আর মাত্র ১০ দিন পরেই এই আনন্দ মুখরিত দিনটি আসবে এই ঈদকে কেন্দ্র করেই সকল মুসলিম সম্প্রদায়ের মধ্যে দেখা দেয় ঈদের নতুন পোশাক কেনা কাটার থুম।যে যতটুকু সম্ভব ততটুকু সম্বল নিয়ে পরিবারের সদস্যদের জন্য ঈদের নতুন পোশাক কিনে দিয়ে থাকেন।

আমি ও তার ব‍্যাতিক্রম নই ভাবনা শুধুমাত্র ঈদ আর এবার ঈদে ছেলে, মেয়ে,ভাই,বোন ও আত্মীয় স্বজনকে কতটুকু দিতে পারবো তা এখনও বুঝে উঠতে পারছিনা।তবে কিছু একটা করতে হবে এই চিন্তা এখন শুধুমাত্র মাথায় ঘোরাঘুরি করছে।তাই ভেবে চিন্তা করে গত পরশু গেলাম ফার্মগেট। মার্কেটে ঠিক নয় তবে মার্কেটে আশেপাশে ফুটপাতে অনেক সুন্দর সুন্দর পোশাক পাওয়া যায় তা দেখতে এবং কেমন দাম রয়েছে পোশাকের । এবার এক হিসেবে আমি বেকার বললেই চলে তবুও দীর্ঘদিন ধরে প্রায় ২৯০০ (দুই হাজার নয়শত)টাকা অনেক কষ্ট করে জোগাড় করেছি যা কেউ জানতে পারেনি এবং এই সামান্য টাকা দিয়ে দেখি কেনা যায় কিনা কারো জন্য।

বাসার সামনে থেকে টেম্পুতে চড়ে ফার্মগেট গেলাম ফ্লাইওভার পার হবে ধীরে ধীরে দেখতে ছিলাম জামা-কাপড় কিছু দোকান দেখে হঠাৎই চোখে পড়ল একসেট জামা খুবই পছন্দ হলো মেয়ের জন্য তাই দোকানদারকে জিঙ্গাসা করলাম পোশাককের মূল্য কতো?দোকানদার বলবো ভাইজান এই পোশাকটি নতুন এসেছে মার্কেটে এই ঈদ উপলক্ষে আপনি যদি নিতে চান দামাদামি করবেন না একদাম ২৫০০ টাকা ।আমি দাম শুনে অবাক হয়ে গেলাম, তবুও কিছু একটা বলতে হবে এই ভেবে বললাম ভাই ১৫০০ টাকায় দিতে পারবেন? কথাটা একটু আস্তে আস্তে বললাম।দোকানদার বললো ভাইজান;শুনেন এই দামে এবার ঈদে জামা কিনতে পারবেন না;যদি কিনতে চান তবে অন্য রকমের জামা কিনতে পারেন।আমি তার কথা শুনে চুপচাপ অন্য দোকানে চলে গেলাম।

এবার ঘুরতে ঘুরতে ছেলের জন্য একটি পানজাবি দেখলাম কিন্তু পরক্ষণেই মনে হলো ছেলেকে মাদ্রাসায় ভর্তি করাবো আর মাদ্রাসায় পানজাবি সবসময় পড়তে পারবে না ওখানে সবসময় জুব্বা পড়তে হবে।তাই বেশি গুরুত্ব দিলাম না।ঘুরে ঘুরে দেখলাম আর ভাবলাম মন খুবই খারাপ হয়ে গেলো তাই আর বেশি ঘুরতে চাইলাম না।কিছুই কেনা হলোনা আর বোধহয় হবেনা তাই বাসার দিকে রওয়ানা দিবো ভাবলাম কিন্তু হঠাৎই দেখলাম একজোড়া স্লিপার খুবই সুন্দর তাই নিজের জন্য কিনতে চাইছে মন দাম জিঙ্গাসা করলাম দোকানদারকে বললো ১৫০০ টাকা হলে নিতে পারবেন।দোকানদারের কথা শুনে আমি আর নিতে চাইলাম না তবুও ছোট করে বললাম ভাই ৬০০ টাকা দিবেন? দোকানদার বড় বড় চোখে বললেন অন্য দিকে দেখেন।আমি আস্তে আস্তে আবার টেম্মুতে উঠে ভাবতে ভাবতে বাসাতে ফিরে গেলাম।

আজ আমি ও বাবা হয়েছি তাই সন্তানদের জন্য আমি কিছু করতে চাই, আমার জীবনের জন্য নয়,কেননা আমার জীবন এখন অন‍্যের জন্য আর এই অন‍্যরা হলেন আমার সন্তান।আমি চাইবো হাজার কষ্টের মাঝে নিজেকে রেখেও সন্তানদের চাহিদা পূরণ করবো আর মহান আল্লাহর কাছে দুটি হাত তুলে সবসময় দোয়া করবো যেনো সন্তানেরা সবসময় সুখে থাকে শান্তিতে থাকে।তবে আজ এই পৃথিবীর বুকে আমার মা-বাবা বেঁচে নেই মহান আল্লাহর হুকুমে তারা চিরকালের জন্য চলে গিয়েছেন ওপারে আমি সবসময় মা-বাবার জন্য মহান আল্লাহর নিকট এই দোয়া করবো যেনো তাদেরকে মহান আল্লাহ তাআলা বেহেশত বাসী করেন এবং বেহেশতের সবচাইতে সন্মানিত স্থানে রাখেন।

মহান আল্লাহ তাআলা তার সর্বশ্রেষ্ট কিতাব কোরআন শরীফের মধ্যে উল্লেখ করেছেন যে সন্তানের দোয়া তিনি কবুল করেন আর এই বিশ্বাস রেখেই সবসময় আমি আমার মা-বাবার শান্তির জন্য মহান আল্লাহর নিকট দোয়া করে যাবো যাতে আমার জন্মধারনী মা ও জন্মদাতা পিতা বেহেশতের মধ্যে থাকতে পারেন।হে আল্লাহ তাআলা রব্বুল আলামীন আপনি আমার দোয়া কবুল করেন।আমীন।
এই হলো বৈচিত্র্যময় রূপের অধিকারী যারা শুধুমাত্র বাবারা হয়ে থাকেন কেননা বাবারা সবসময় সন্তানদের ভালো চান,এবং সুখী দেখতে চান।আমি সকল বাবা-মায়েদের জন্য মহান আল্লাহর নিকট দোয়া করি এবং আমার সন্তানদের জন্য দোয়া করি যেনো বড় হয়ে তারা তাদের বাবা-মায়ের কষ্ট বুজতে পারেন এবং সবসময় সন্মান করেন।

লেখক সাংবাদিক

Attachments area

Top