তানোরে নিজ ছেলের লাঠির আঘাতে রোজাদার মায়ের মৃত্যু

IMG_20190527_040015.jpg

শামীম পারভেজ – রাজশাহী জেলা প্রতিনিধি :

রাজশাহীর তানোরে নিজ ছেলের লাঠির আঘাতে রোজারত অবস্থায় এক মায়ের করুণ মৃত্যু হয়েছে। এঘটনায় নিহতের স্বামী বাদি হয়ে তানোর থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন। পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য থানায় নিয়েছেন। ঘটনার পর থেকে ঘাতক মেজো ছেলে একরামুল হক (২৮) পলাতক রয়েছে। অপর দিকে পুলিশ জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ২ ছেলেকে থানায় হেফাজতে নিয়েছেন।

গতকাল রোববার দুপুরে উপজেলার মুন্ডমালা পৌর এলাকার গৌরাঙ্গাপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। নিহত মায়ের নাম রহিমা বেগম (৭০) তিনি গৌরাঙ্গাপুর গ্রামের সামজাত হাজীর স্ত্রী। এদের ৩ ছেলে আব্দুল হক (৩০) একরামুল হক (২৮) ও আমিরুল ইসলাম (২০)।

এব্যাপারে মুন্ডমালা পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ ওসি তদন্ত সাইফুল ইসলাম বলেন, রোববার সকালে রহিমা বেগম তার বড় ও মেজো ছেলেকে টাকা না দিয়ে ছোট ছেলে আমিরুল ইসলামকে ঈদের কেনা-কাটা করার জন্য ২ হাজার টাকা দেন। আমিরুল মায়ের দেয়া টাকা পেয়ে ঈদের কেনা-কাটা করতে চলে আসেন মুন্ডমালা বাজারে। এদিকে ছোট ছেলেকে টাকা দেয়ার কথা শুনে বড় ছেলে আব্দুল হক ও মেজো ছেলে একরামুল মায়ের কাছে ৩ হাজার করে টাকা দাবি করেন। এসময় মা ২ ছেলেকে ১ হাজার করে টাকা দিতে রাজি হন এনিয়ে কথা-

কাটাকাটি’র এক পর্যায়ে মেজো ছেলে একরামুল বাড়িতে থাকা একটি মোটা লাঠি দিয়ে তার মায়ের ঘাড়ের উপরে স্বজরে আঘাত করলে সেখানেই টলে পড়েন রহিমা বেগম। পরে প্রতিবেশীরা রহিমা বেগমকে উদ্ধার করে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে নেওয়ার পথেই তার মৃত্যু হয়। মৃত্যুর আগে রহিমা বেগম রোজা অবস্থায় ছিলেন।

এব্যাপারে তানোর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) খাইরুল ইসলাম বলেন, ময়না তদন্তের জন্য লাশ উদ্ধার করে থানায় নেয়া হয়েছে, এঘটনায় থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে, ২ ছেলেকে থানায় নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। দ্রুত মুল আসামীকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে

Top