রংপুর রেঞ্জের মাসিক আইন-শৃঙ্খলা পর্যালোচনা সভা

received_2392682707630942.jpeg

মো. রাফিউল ইসলাম (রাব্বি),
স্টাফ রিপোর্টার, রংপুর:

রংপুরের আট জেলার এপ্রিলের মাসিক অপরাধ ও আইন-শৃঙ্খলা পর্যালোচনা সভা রোববার দুপুরে রংপুর ডিআইজি সম্মেলন কক্ষে হয়। সভায় এপ্রিলের অপরাধ পরিস্থিতি, গ্রেফতারি পরোয়ানা তামিল, আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি পর্যালোচনাসহ বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়।
এ সময় পুলিশের কর্মস্পৃহা ও কর্মচাঞ্চল্য বাড়ানোর লক্ষ্যে এপ্রিলে বিভিন্ন স্তরের পুলিশ সদস্যদের কৃতিত্বপূর্ণ কর্মকাণ্ডের জন্য নির্বাচিত শ্রেষ্ঠ কর্মকর্তাদের হতে ক্রেস্ট তুলে দেন ডিআইজি দেবদাস ভট্টাচার্য্য।
পুরস্কারপ্রাপ্ত পুলিশরা হলেন শ্রেষ্ঠ সার্কেল হিসেবে রংপুর বি-সার্কেলের অতিরিক্ত এসপি মারুফ আহমেদ, শ্রেষ্ঠ সাব-ইন্সপেক্টর হিসেবে রংপুরের তারাগঞ্জ থানার এসআই মশিউর রহমান, শ্রেষ্ঠ ওয়ারেন্ট তামিলকারী অফিসার হিসেবে পীরগঞ্জ থানার এসআই এমএ ফারুক, শ্রেষ্ঠ মাদক ও চোরাচালান মালামাল উদ্ধারকারী কর্মকর্তা হিসেবে গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জের এসআই মমিরুল হক, শ্রেষ্ঠ এএসআই হিসেবে একই থানার এএসআই শওকত আলম সিদ্দিকী, শ্রেষ্ঠ ট্রাফিক ইউনিট হিসেবে রংপুর ট্রাফিক ইউনিটের টিআই খান মিজানুর ফাহামী, শ্রেষ্ঠ থানা হিসেবে রংপুর জেলার তারাগঞ্জ থানার ওসি জিন্নাত আলী, শ্রেষ্ঠ এসপি হিসেবে, রংপুরের এসপি মিজানুর রহমান, পিপিএম-বার পুরস্কার গ্রহণ করেন।
এছাড়াও খুন মামলার রহস্য উদঘাটনের জন্য গাইবান্ধা সদর থানার ইন্সপেক্টর (তদন্ত) মজিবর রহমান, দিনাজপুরের বিরল থানার পুলিশ ইন্সপেক্টর (তদন্ত) আল মামুন মুহাম্মদ নাজমুল আহমেদ, গণধর্ষণ মামলার আসামি গ্রেফতারের জন্য রংপুর ডিবি’র এসআই মনিরুজ্জামান, ডাকাতি মামলার মালামাল উদ্ধার ও আসামি গ্রেফতারের জন্য রংপুরের তারাগঞ্জ থানার এসআই মশিউর রহমান, চোরাই মোটরসাইকেল উদ্ধার ও আসামি গ্রেফতারের জন্য গাইবান্ধা সদর থানার এসআই নওশাদ আলী এবং হত্যা মামলার আসামি গ্রেফতারে এবং মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতারে সাহসীকতাপূর্ণ কাজের জন্য লালমনিরহাটের আদিতমারী থানার এসআই আনিছুজ্জামান এবং একই জেলার কালীগঞ্জ থানার কনস্টেবল মোশারফ হোসেনকে বিশেষ পুরস্কার প্রদান করা হয়।

Top