ঈদকে কেন্দ্র করে কোন সন্ত্রাসী গোষ্ঠিকে চাঁদাবাজি করতে দেয়া হবে না-লে: নওরোজ

IMG_20190526_211329.jpg

স্টাফ রিপোর্টারঃ

মাটিরাঙ্গা জোন কমান্ডার লেপ্টেনেন্ট কর্ণেল মোহাম্মদ নওরোজ নিকোশিয়ার বলেছেন, মুসলমানদের ধর্মীও অনুষ্ঠান পবিত্র ঈদুল ফিতরকে কেন্দ্র করে জোন এলাকার অভ্যন্তরে নিরাপত্তা বিনষ্টসহ কোন সন্ত্রাসী গোষ্ঠিকে চাঁদাবাজি করতে দেয়া হবে না। তিনি সাম্প্রদায়িত সম্প্রীতি বজায় রেখে বিভিন্ন জাতিগোষ্ঠির জীবনমান উন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী মন্তব্য করে ঈদুল ফিতর এর আনন্দ ভাগাভাগি করতে সমাজের অসহায় ও দরিদ্রদের মাঝে ত্রাণ সহায়তা প্রদান করার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।

মাটিরাঙ্গা জোন কমান্ডারের সভাপতিত্বে রোববার ২৬ মে সকাল ১১ টার দিকে ৩০ফিল্ড রেজিমেন্ট আর্টিলারী মাটিরাঙ্গা জোন সদরে আয়োজিত মাসিক নিরাপত্তা সম্মেলন ও মত বিনিময় সভায় সভাপতির বক্তব্যে তিনি এ সব কথা বলে বলেন।
সভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, মাটিরাঙ্গা থানার অফিসার ইনচার্য মো: সামসুদ্দীন ভূঁইয়া,মাটিরাঙ্গা সদর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান হিরন জয় ত্রিপুরা, উপজেলা কৃষি উপ-সহকারী কর্মকর্তা জ্যোতি বড়–য়া, বাগান মালিক ও সাবেক মেম্বার মো: ওয়ালী উল্যাহ, বাঙ্গালী ছাত্র পরিষদের মাটিরাঙ্গা পৌর শাখার আহবায়ক মো: জালাল আহমেদ প্রমুখ।

সভায় মাটিরাঙ্গা জোন কমান্ডার লেপ্টেনেন্ট কর্ণেল মোহাম্মদ নওরোজ নিকোশিয়ার আরো বলেছেন, মাটিরাঙ্গা জোন এলাকার অভ্যন্তরে ভাড়ায় চালিত মোটরসাইকেল চালকরা অবৈধ ভাবে মোটরসাইকেল পরিচালিত করছে। মোটরসাইকেল চালকরা বিভিন্ন ধরণের অপরাধমূলক কর্মকান্ডের সাথে জড়িত রয়েছেন এমন অভিযোগ রয়েছে। তিনি ঈদের পর জোন এলাকার মধ্যে প্রধান সড়কে মোটরসাইকেল চালানোর পরামর্শ দিয়ে বলেন, প্রয়োজনে যদি কোন মোটরসাইকেল দুর পাহাড়ী পাড়া বা মহল্লায় যায় তাহলে ঐ সকল ড্রাইভার সম্পর্কে সঠিক তথ্য সমিতির মাধ্যমে জোন সদরে প্রদান করার পরামর্শ দেন । কোন কোন ড্রাইভার কোন কোন জায়গায় কতদিন ভাড়াটিয়া নিয়ে যাবে তা ঠিক করবে সমিতি নিজস্ব ব্যবস্থাপনায়। তিনি মোটরসাইকেল চালকদের হুশিয়ার করে বলেন, ঈদের পর আমরা চেকিং আরো বাড়িয়ে দেবো। কোন আপত্তি বা কৈফিয়ত চলবে না। আমরা নিয়মানুযায়ী একজন চালকের ড্রাইভিং লাইসেন্স, ইন্সুরেন্স ও প্রয়োজনীয় কাগজপত্র ছাড়া কাউকে চলতে দেবো না।

সভায় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, মেজর আরেফিন মো: শাকিল, গুইমারা থানার অফিসার ইনচার্জ বিদ্যুৎ কুমার বড়–য়া, মাটিরাঙ্গা উপজেলা ফরেষ্ট রেঞ্জার মোঃ জহুরুল ইসলাম, মাটিরাঙ্গা উপজেলা পরিষদ ভাইস চেয়ারম্যান মো: আনিসুজ্জামান ডালিম, কাউন্সিলর মোহাম্মদ আলী, মো: মোস্তফা,কলেজের অধ্যক্ষ কেফায়েত উল্লাহ ,মাটিরাঙ্গা কেন্দ্রীয় শ্রী শ্রী রক্ষাকালী মন্দির উপদেষ্টা বাবুল চন্দ্র বণিক ও বিভিন্ন ভাড়ায় চালিত মোটর সাইকেল চালক সমিতির সভাপতি মো: রবিউল, মো: ওমর ফারুক ,মো: সফর আলী, মো. আবুল কালাম আলম প্রমুখ।

এ ছাড়া গুইমারা ও মাটিরাঙ্গা উপজেলার দায়িত্বরত সাংবাদিকগন সহ মাটিরাঙ্গা জোনের দায়িত্বপূর্ন এলাকার বিভিন্ন পাড়া মহল্লার হেডম্যান-কারবারী, জনপ্রতিনিধি ও সুশীল সমাজের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

Top