ঢাবিতে তৃতীয়লিঙ্গের মানুষদের নিয়ে ইফতার করে নতুন ইতিহাস সৃষ্টি করলো ‘বৃহন্নলা’

received_1294143220747984.jpeg

রাজু আহমেদ, ঢাবি:

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে(ঢাবি) তৃতীয়লিঙ্গের মানুষদের নিয়ে ইফতার এবং ঈদ উপহার হিসেবে শাড়ি প্রদান করে নতুন ইতিহাসে পদার্পণ করলো ‘বৃহন্নলা’। বাংলাদেশে প্রথমবারের মতো কোনো সংগঠনের আমন্ত্রণে তৃতীয়লিঙ্গের মানুষরা সাড়া দিয়ে উদ্দীপনা সহকারে অংশগ্রহণ করেন।

২২ই মে ২০১৯ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা ও গবেষোণা ইন্সটিটিউটের ভাষা শহীদ সাদাত আলী কক্ষে অনুষ্ঠিত এ আয়োজনে ঢাকা শহরের বিভিন্ন এলাকায় বসবাসরত প্রায় ৭০ জন তৃতীয় লিঙ্গের সদস্যদের আমন্ত্রন জানানো হয়। ইফতার ও ঈদ উপহার প্রদান অনুষ্ঠানে হিজড়া সম্প্রদায়ের সদস্য, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীসহ তৃতীয়লিঙ্গের মানুষদের নিয়ে কাজ করেন এমন অনেকেই উপস্থিত ছিলেন। পবিত্র কোরআন থেকে তেলাওয়াতের মাধ্যমে অনুষ্ঠানটি শুরু হয়ে দোয়া পরবর্তী ইফতার এবং সবশেষে শাড়ি প্রদানের মাধ্যমে অনুষ্ঠানটি শেষ হয়।

বৃহন্নলা কর্তৃক আয়োজিত “ইফতার ফর ইনক্লুশন” শিরোনামের অনুষ্ঠানে ইফতার মাহফিল শেষে উপস্থিত তৃতীয় লিঙ্গের সদস্যদের ঈদ উপহার হিসেবে শাড়ি প্রদান করা হয়। এসময় তৃতীয়লিঙ্গের মানুষদের মাঝে ফুটে “আমিও স্বাভাবিক মানুষ” এর অনুভূত অনুভূতি এবং তারা অত্যান্ত সুশৃঙ্খলভাবে বৃহন্নলা কর্তৃক প্রদানকৃত শাড়ি গ্রহণ করে।

উক্ত ইফতার মাহফিল এবং ইদ উপহার অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন হাবিবুর রহমান বিপিএম (বার), পিপিএম, ডিআইজি (ঢাকা রেঞ্জ, বাংলাদেশ পুলিশ) এবং বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন প্রফেসর সৈয়দা তাহমিনা আখতার (পরিচালক, শিক্ষা ও গবেষণা ইন্সটিটিউট, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়), ড. মুহাম্মদ মাহবুবুর রহমান (চেয়ারম্যান, বিশেষ শিক্ষা বিভাগ, শিক্ষা ও গবেষণা ইন্সটিটিউট, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়), রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন (সভাপতি, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ), ডেইজি সারওয়ার (প্যানেল মেয়র, ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন), ব্যারিস্টার শফিকুল ইসলাম (এডভোকেট, বাংলাদেশ সুপ্রিমকোর্ট), প্রফেসর ড. শারমীন হক (অধ্যাপক, বিশেষ শিক্ষা বিভাগ, আই.ই.আর. ঢাবি), কাজী ফারুক আহমেদ (সহকারী অধ্যাপক, আই ই আর, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়) এবং ড কাজী শহিদুল্লাহ (সহকারী অধ্যাপক, বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব প্রফেশনাল)। প্রধান অতিথি এবং বিশেষ অতিথি ছাড়াও সেখানে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগের প্রায় ১০০ জন শিক্ষার্থী, বৃহন্নলার এক্সিকিউটিভ ও সদস্যবৃন্দসহ আরো অনেকে।

বৃহন্নলা কর্তৃক আয়োজিত ইফতার মাহফিলের শুভেচ্ছা বক্তব্যে ডি. আই. জি. হাবিবুর রহমান হিজড়া সমাজের সাথে তার কাজের বিভিন্ন অভিজ্ঞতা তুলে ধরেন এবং সবাই মিলে একসাথে কাজ করে দেশকে এগিয়ে নেওয়ার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।

উত্তর সিটির প্যানেল মেয়র ডেইজি সারোয়ার তার বক্তব্যে এমন আয়োজনে তাকে আমন্ত্রন জানানোর জন্য বৃহন্নলা পরিবারের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন এবং বৃহন্নলার যে কোন প্রয়োজনে পাশে থাকার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।

বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদের সভাপতি জনাব রেজওয়ানুল হক চৌধুরি শোভন তার বক্তব্যে বলেন, ‘আমরা সবাই মানুষ, মানুষ হিসেবে পরিচয়টাই আমাদের সবচেয়ে বেশি সম্মানিত করে, নারী-পুরুষ কিংবা তৃতীয় লঙ্গের পরিচয় নয়।’

হিজড়া সম্প্রদায়ের পক্ষ থেকে বক্তব্য প্রদান করেন মুক্তা হিজড়া, প্রিয়া হিজড়া, হিমু হিজড়া সহ কয়েকজন। তারা তাদের বক্তব্যে তৃতীয় লিঙ্গের মানুষদের স্বীকৃতি প্রদান করার জন্য কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি। সমাজের অবহেলায় তাঁদের বিভিন্ন নেতিবাচক কাজের সাথে যুক্ত হতে হয় বলেও অভিযোগ করেন তাঁরা। বক্তব্যে তারা কাজের সুযোগ দাবি করেন, সম্মানের সাথে বাঁচতে বৃহন্নলার সহযোগিতা এবং উপস্থিত অতিথি ও সরকারের সদয় দৃষ্টি কামনা করেন।

উক্ত ‘ইফতার ফর ইনক্লুশন’ আয়োজনের সভাপতিত্ব করেন শিক্ষা ও গবেষণা ইন্সটিটিউট, ঢাবির পরিচালক সৈয়দা তাহমিনা আকতার। তিনি তার বক্তব্যে হিজড়া জনগোষ্ঠীর শিক্ষা অর্জনের গুরুত্ব তুলে ধরেন এবং বৃহন্নলার সামনে এগিয়ে যাওয়ার জন্য শিক্ষা ও গবেষণা ইন্সটিটিউট সকল নীতিগত সহায়তা প্রদান করবেন বলে প্রতিশ্রুতি ব্যক্ত করেন।

বৃহন্নলার প্রধান উপদেষ্টা এবং বিশেষ শিক্ষা বিভাগের চেয়ারম্যান ড মুহাম্মদ মাহবুবুর রহমান হিজড়া জনগোষ্ঠীর দুর্বিষহ জীবনযাপনের করুন চিত্র তুলে ধরেন এবং বৃহন্নলা’র ক্রিটিক্যাল লিটারেসি ডেভেলপ করার প্রকল্প খুব দ্রুত কার্যকর করার কথা জানান।

ব্যরিষ্টার শফিকুল ইসলাম তার বক্তব্যে হিজড়া জনগোষ্ঠীর যেকোনো আইনী সহায়তা প্রদানের প্রত্যয় ব্যক্ত করেন। এছাড়া কাজী ফারুক হোসেন জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে বৃহন্নলার কার্যক্রম চালু করতে সব ধরনের সহযোগিতার প্রতিশ্রুতি দেন।

বৃহন্নলার উদ্যোক্তা ও সভাপতি সাদিকুল ইসলাম তার বক্তব্যে বৃহন্নলার বিভিন্ন কর্ম পরিকল্পনা তুলে ধরেন এবং উক্ত আয়োজনে উপস্থিত সহযোগী সকল ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ এবং ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন। বৃহন্নলা কর্তৃক আয়োজিত ইফতার মাহফিলের সঞ্চালনায় ছিলেন বৃহন্নলার সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ রোমান হোসেন।

উল্লেখ্য, আয়োজনটি সফল করতে সহযোগিতায় ছিলেন -উত্তরণ ফাউন্ডেশন, চিত্রশৈলী, জনাব রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন(সভাপতি, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ),গোলাম রাব্বানী (সাধারণ সম্পাদক, ডাকসু এবং বাংলাদেশ ছাত্রলীগ), ডেইজি সারওয়ার(প্যানেল মেয়র, ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশান), সোলায়মান খান সুজন, উৎপল বিশ্বাস, মিজানুর রহমান সহ আরো অনেকে।

Top