ঈদ মৌসুমকে সামনে রেখে হাইওয়ের পাশে অপরিকল্পিতভাবে হাট বাজার

60329428_258536614982658_838316674888237056_n.jpg

স্টাফ রিপোর্টার, রংপুর:

ঈদ মৌসুমকে সামনে রেখে হাইওয়ের পাশে অপরিকল্পিতভাবে হাট বাজার সম্প্রসারিত হওয়ায় প্রতিদিনই বাড়ছে যানজট। বাড়ছে দুর্ঘটনার আশঙ্কা।
আর জীবনহানির শঙ্কা নিয়ে চলাফেরা করছে মানুষ। অথচ অপরিকল্পিতভাবে গড়ে ওঠা হাট বাজারগুলোর বিরুদ্ধে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কোনো উদ্যোগ নেই।
এমনই চিত্র এখন বৃহত্তর রংপুরের হাইওয়েগুলোর। দেখা যায়, এগুলোর পাশে নিয়ন্ত্রণহীনভাবে সম্প্রসারিত হচ্ছে হাট বাজার।
জানা গেছে, পঞ্চগড়ের তেতুলিয়া থেকে রংপুর হয়ে বগুড়া পর্যন্ত মহাসড়কের পাশে কমপক্ষে ৫৫টি স্থানে প্রতিনিয়ত বসছে হাট বাজার । বগুড়া থেকে বঙ্গবন্ধু সেতু, বঙ্গবন্ধু সেতু থেকে রাজশাহী পর্যন্ত মহাসড়কের পাশে ৪০টিরও বেশি স্থানে হাট বাজার বসছে। রোজা ও ঈদকে কেন্দ্র করে প্রতিদিনই হাট বাজারগুলো নতুন নতুন ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের কারণে সম্প্রসারিত হচ্ছে।
খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, উত্তরাঞ্চলের বিভিন্ন হাইওয়ের পাশে ২ শতাধিক হাট বাজার রয়েছে। পরিকল্পনা ছাড়াই গড়ে উঠেছে এ ধরনের হাট বাজার। হাইওয়ের কোন নিয়মনীতি না মেনে এসব হাট বাজার বসায় মারাত্মক যানজটের সৃষ্টি হচ্ছে। যাত্রীদেরকেও চরম ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে। ফলে প্রায় প্রতিদিনই এসব পথে দুর্ঘটনার আশঙ্কা নিয়ে চলাচল করতে হচ্ছে হাজার হাজার যানবাহনকে।
হাইওয়ের পাশে গড়ে ওঠা হাটগুলোর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হচ্ছে দমদমা, বৈরাগীগঞ্জ, জায়গীর, শঠিবাড়ী, বড়দরগাহ, বিশমাইল, কলাবাগান, লালদীঘি, জামতলা, খেজমতপুর, মাদারহাট, ধাপের হাট, পলাশবাড়ী, কোমরপুর, বালুয়া, গোবিন্দগঞ্জ, মোকামতলা, চহিরা, মহাস্থানগড়, দশমাইল, পাগলাপীর ইত্যাদি। এ ছাড়া অনেক স্থানে প্রতিদিন ছোট বড় হাট বাজার বসিয়ে সড়কের জায়গা দখল করে রাখা হয়েছে। মহাসড়কের ওপর হাট বসার কারণে এসব স্থানে একদিকে যেমন তীব্র যানজটের সৃষ্টি হচ্ছে, অন্যদিকে প্রতিনিয়ত সড়ক দুর্ঘটনায় হতাহতের ঘটনা বাড়ছে।
একাধিক বাস ও ট্রাকচালকের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, মহাসড়কের ওপর হাট বসার কারণে সৃষ্ট যানজটে নির্ধারিত সময়ে গন্তব্যে পৌঁছানো সম্ভব হয় না, ফলে দ্রুত গাড়ি চালাতে হয়। আর যে কারণে অনেক সময় দুর্ঘটনা ঘটছে।
হাটে পণ্য ক্রয়-বিক্রয়ের জন্য আসা অনেকের সঙ্গে কথা হলে তারা জানান, হাট ইজারাদাররা যেখানে হাট বসান আমরা সেখানেই মালামাল ক্রয়-বিক্রয় করি।
কয়েকজন হাট ইজারাদারের সঙ্গে কথা হলে তারা জানান, মহাসড়কের ওপর হাট বসালে ক্রয়-বিক্রয় বেশি হয়। এর ফলে তাদের মুনাফাও বেশি হয়। এ ব্যাপারে বড়দরগাহ হাইওয়ে পুলিশ ফাড়ির ইনচার্জ নাজমুল ইসলাম জানান, হাইওয়ের পাশের হাটবাজারগুলো ইজারা দেন সংশ্লিষ্ট উপজেলার নির্বাহী অফিসার। ইজারা দেওয়ার সময় হাইওয়ের পাশে হাট বাজার বসতে পারবে না এমন শর্ত জুড়ে দিলে যানজট কিছুটা কমানো সম্ভব। আমরা আমাদের লোকবল নিয়ে যতদূর সম্ভব মহাসড়কে যানজট নিরসনের চেষ্টা করছি।

Top