অস্ত্রের ভুয়া লাইসেন্স, চার্জশিটের আসামি ৩৯১ জন।

received_470189060390168.jpeg

রাফিউল ইসলাম :

রংপুর ডিসি অফিসের জিএম শাখা থেকে জেলা প্রশাসকের সই জাল করে ভুয়া কাগজপত্র তৈরি করে চারশ অস্ত্রের লাইসেন্স প্রদান ও নবায়নের ঘটনায় বুধবার ৩৯১ জনের বিরুদ্ধে চার্জসিট অনুমোদন করেছে দুদক। খুব দ্রত এই চার্জসিট আদালতে জমা দেয়া হবে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন দুদকের সহকারি পরিচালক আতিকুল ইসলাম। এর আগে গত ২৫ এপ্রিল এই মামলার চার্জসিটভুক্ত ৬০ আসামী রংপুর সিনিয়র জেলা ও দায়রা জজ আদালতে হাজির হয়ে জামিন প্রার্থনা করলে তাদের জামিন আবেদন না মঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন আদালত। উল্লেখ্য ২০০৩ সাল থেকে ২০১৫ সালের মধ্যে সামসুল ও তার সিন্ডিকেট রংপুর ডিসিদের সই জাল করে ব্যাকডেটে ৪০০ বেশী আগ্নেয়াস্ত্রের লাইসেন্স দেন। এর মাধ্যমে তিনি কোটি কোটি টাকার অবৈধ সম্পদের মালিক হয়েছে। ঘটনাটি প্রকাশ হওয়ায় তার অফিসে অভিযান চালিয়ে সামসুলের আলমিরা থেকে ১৫টি ভুয়া আগ্নেয়াস্ত্রের লাইসেন্স, ১৫ টি ভুয়া লাইসেন্সের ভলিউম, ৭ লাখ নগদ টাকা, ১১ লাখ টাকার এফডিআর ও ২ লাখ টাকার সঞ্চয় পুত্র উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় ডিসি অফিস ও দুদক দুটি মামলা করে।

মামলাটি পরে দুদকে স্থানান্তর করা হলে রংপুর র‌্যাব-১৩ সদস্যরা গত বছরের ৬ জুলাই শামসুল ইসলামকে ঢাকা থেকে গ্রেপ্তার করা হয়। গত ১৭ সেপ্টেম্বর টাঙ্গাইল থেকে তার সহয়োগী আব্দুল মজিদকে গ্রেপ্তার করা হয়। এছাড়া শামসুলে স্ত্রীর বিরুদ্ধে মামলা করা হয়।
দুদকের সহকারি পরিচালক ও মামলার তদন্তকারি কর্মকর্তা আতিকুল ইসলাম জানান, জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সিল সাক্ষর জাল করে অস্ত্রের লাইসেন্স প্রদানের মামলায় ৩৯১জনের বিরুদ্ধে চার্জসিট অনুমোদন দিয়েছে দুদক ঢাকা অফিস। আরেকবার আসামীদের নাম ঠিকানাগুলো যাচাই করে খুব দ্রুত আদালতে চার্জসিট দাখিল করা হবে।

Top