ঠাকুরগাঁওয়ে ঢাক ঢোল বাজিয়ে সাধারন বিয়ের মতই বট ও পাখর গাছের বিয়ে।।

60297473_316935459230634_6109536793252593664_n.jpg

ঠাকুরগাঁও জেলা প্রতিনিধি:

ঠাকুরগাঁওয়ে ঢাকঢোল বাজিয়ে সাধারন বিয়ের মতই বট ও পাখর গাছের বিয়ে হয়। বিষয়টি কোন হাস্য বা কৌতুহলী না। সাধারন বিয়ের মতই ঢাকঢোল বাজিয়ে বট ও পাখর গাছের বিয়ে দিলেন খগেন্দ্র নাথ বর্মন।

বৃহস্পতিবার বিকেলে সদর উপজেলার ৪নং বড়গাঁও ইউনিয়নের মোলানখুড়ি গ্রামের খগেন্দ্র বর্মনের আয়োজনে অনুষ্ঠিত হয় এই বিয়ের।

খগেন্দ্র বলেন তিন বছর পূর্বে বাসায় একই সাথে গাছ দুটির পরাগায়ন ঘটে। এর পর থেকে গাছ দুটোকে লালন পালন করি।

তারপর সাধারণ বিয়ের মতোই মণ্ডপ তৈরি করে, বট গাছকে কন্যার মতো শাড়ি এবং পাখরকে পাত্রের মতো ধুতি পড়িয়ে সাজিয়ে নেওয়া হয় এবং হয়েছে গায়ে গলুদ, মালা বদল, শুভ দৃষ্টিও। পুরোহিতের মন্ত্র উচ্চারণের মধ্য দিয়ে বিয়ে সম্পন্ন হয় বট ও পাখর গাছের।

একসাথে বট ও পাখর গাছের জন্ম হলে নাকি বিয়ে দিতে হয়। সেই বিশ্বাস থেকেই সামাজিক রীতি মেনে পুরোহিতের উপস্থিতিতে গ্রামবাসীরা বিয়ে দিলেন বট ও পাখড় গাছের।

তিনি আরো বলেন, অাগে শুনেছিলাম বট ও পাখর গাছের নাকি বিয়ে হয় অাজ সেটি নিজ হাতে সর্ম্পন করলাম এবং সাজানো হয় বাসর ঘরও।

হিন্দু শাস্ত্র মতে এই বট ও পাখর গাছের বিয়ে দিলে নাকি মানুষের মঙ্গল ও শান্তি নিয়ে অাসে। এই বিয়ের মাধ্যমে মানুষ ও গাছের সম্পর্ক দৃঢ় করে বলে বিশ্বাস সনাতন ধর্মালম্বীদের।

অনুষ্ঠানে অনেক সন্ন্যাসী এবং বৈষ্ণব সম্প্রদায়ের লোকজন থাকায় খাওয়ানো হয় খিচুরিও।

Top