নাইক্ষ্যংছড়ি ছাত্রলীগের দু গ্রুপের সংঘর্ষ

received_2258567811073639.jpeg

——————-
শামীম ইকবাল চৌধুরী, নাইক্ষ্যংছড়ি(বান্দরবানবান)থেকে::

নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলায় অভ্যন্তরীণ কোন্দলের জের ধরে বর্তমান-সাবেক ছাত্রলীগের দুই নেতার মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে উভয় পক্ষ আহত হয়েছেন।

বুধবার (৮মে) বিকালে উপজেলা সদরে এ ঘটনা ঘটে। আহতদের প্রাথমিক চিকিৎসার জন্য নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, ঘটনার মূল সূত্রপাত, সাবেক উপজেলা ছাত্রলীগ নেতা ফরিদ উল্লাহ সদর উপজেলার একটি দোকানের সামনে এমএ কালাম সরকারি ডিগ্রী কলেজ ছাত্রলীগ নেতা মো,রিদুয়ান চেয়ারে বসে থাকা অবস্থায় দেখে উঠতে বল্লে, সে হঠাৎ না উঠায় ক্ষিপ্ত হয়ে ক্রমন্বয়ে কথা কাটাকাটিতে দুই পক্ষের মধ্যে ধাওয়া-পাল্ঠা ধাওয়াতে সংর্ঘষ হয়। এতে উভয় পক্ষ আহত হলেও সাবেক ছাত্রলীগ নেতা ফরিদ উল্লাহর গুরুত্বর মাথায় আঘাত পেয়ে সদর হাসপাতালে প্রথমিক চিকিৎসার জন্য ভর্তি করা হয়। এই সংঘর্ষের ঘটনা প্রায় ১ ঘণ্টা স্থায়ী হয়।
এরপর নিজের মধ্যে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে সক্ষম হয়।
এখন পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলেও থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে। যে কোনো ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে উপজেলা ছাত্রলীগ,যুবলীগ ও আওয়ামীলীগ এবং পুলিশ সার্বাক্ষুনিক নজরদারীতে রয়েছে।
নাম প্রকাশে অনেচ্ছুক এক ছাত্রনেতা জানান, বেশ কিছুদিন আগে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম(ফেসবুক) এ কলেজ ছাত্রনেতা রিদুয়ানের নিজস্ব আইডি থেকে হুমকিমূলক ষ্ট্যাটাসের সূত্র ধরে এ উভয় পক্ষের অপ্রীতিকর সংর্ঘষ ঘটনা ঘটেছে বলে জানান।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে উপজেলা ছাত্রলীগের ভারপ্রাপ্ত সা:সম্পাদক রেজাউল করিম বলেন, ‘আমি ঘটনাটা শুনেছি। তাৎক্ষুণিক হাসপাতালে উভয় পক্ষকে দেখতে গিয়েছিলাম। আমাদের সংগঠনে কোন গ্রুপিং নেই। তাদের একান্ত নিজস্ব সমস্যা নিয়ে ঘটনার সূত্রপাত বলে দাবী করে তিনি আরও বলেন- ঘটনার বিস্তারিত জেলা ছাত্রলীগ সভাপতিকে অবহিত করেছি। তবে এ ধরনের বিষয় কোনোভাবেই কাম্য নয়। বিষয়টি উপজেলা সভাপতিসহ দলের নীতিনির্ধারকেরা তদন্ত সাপেক্ষে পরবর্তীতে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’
————————

Top