স্বরুপকাঠীতে ছাত্রকে পিটিয়ে জখম।

58443145_1993289120783505_8170800699362246656_n.jpg

স্বরুপকাঠী প্রতিনিধি :
স্বরুপকাঠীতে উপজেলার সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক সুদর্শন বড়ারেল এর বিরূদ্ধে ওই বিদ্যালয়েরই এক ছাত্রকে পিটিয়ে গুরূতর আহত করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। আঘাতের চিহ্ন তার পিঠে দৃশ্যমান হয়েছে। গত বৃহস্পতিবার সকালে দশটার দিকে বিদ্যালয়ে এ ঘটনা ঘটে।
আহত শিক্ষার্থীর নাম সাফিন আহম্মদ (১০) স্বরূপকাঠী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পঞ্চম শ্রেনীর ছাত্র। সে উপজেলা প্রাথমিক সহকারী শিক্ষা অফিসার এটিইও মোঃ ইউসুফ আলির ছেলে। শিক্ষার্থীরা জানায়, বন্ধুদের সাথে সামান্য ঝগড়াকে কেন্দ্র করে বিচারের নামে তাকে স্কেল দিয়ে পিঠে আঘাত করে। রাতে ঘুমাতে যাওয়ার সময় বাবার তার চোখে ধরা পড়ে সেই বর্বর শিক্ষকের আঘাতের চিহ্ন । এটিইও সাহেব তখনই তার র্স্মাট ফোন থেকে ছবি তুলে আবেগঘন হৃদয় দিয়ে নিজের ফেইসবুকে স্টাটাস দেন “এগিয়ে যাচ্ছে দেশের প্রাথমিক শিক্ষা এগিয়ে যাচ্ছে দেশ”। মুহুর্তের মধ্যে তার পোষ্ট করা স্টাটাসটি ভাইরাল হয়ে যায় এবং সর্বশেষ সাংবাদ কর্মি পর্যন্ত পৌছে যায় ।এ নিয়ে এক জন দুইজন করে বিষয়টি এখন সকলের মুখে মুখে আলোচনার বিষয়।
তথ্য সূত্রে জানাযায়, সহকারী শিক্ষক সুদর্শন স্বরূপকাঠী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দীর্ঘ প্রায় এক যুগেরর বেশি সময় ধরে বদলি বিহীন দাপটের সাথে শিক্ষাকতার অন্তরালে প্রাইভেট বানিজ্য চালিয়ে যাচ্ছেন। কলেজ লেবেলের স্টাইলে দুই সিফটে একদিন পর পর প্রাইভেট পড়ান অর্থাৎ সপ্তাহে তিন দিন, প্রতি ব্যাচে ১৫/২০জন করে। সকালে তিন ব্যাচ বিকালে তিন ব্যাচ জনপ্রতি পাঁচশত টাকা করে নেয়। সরকারী বেতন ছাড়াও সুদর্শন বাবুর তার প্রতিমাসে ইনকাম প্রায় ৫০ থেকে ৬০ হাজার টাকা এবং তার কাছে যারা প্রাইভেট না পড়ে পরিক্ষায় তাদের নম্বর কম দেওয়ার অভিযোগ আছে।

Top