বঙ্গবন্ধুর খুনিদের দেশে ফিরিয়ে এনে সর্বোচ্চ শাস্তির দাবিতে বঙ্গবন্ধু আইন ছাত্র পরিষদের মানব বন্ধন

Bangobandhu-Ain-Chattro-Porishod-Press-Release-06-04-2019.........jpg

১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙ্গালী, স্বাধীন বাংলার স্থপতি, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তাঁর পরিবারের সদস্যদের হত্যাকারী পলাতক খুনিদের অবিলম্বে দেশে ফিরিয়ে এনে রায় কার্যকর করার দাবিতে শনিবার সকাল ১১ টায় জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে মানববন্ধন করেছে বঙ্গবন্ধুর আদর্শে বিশ্বাসী বাংলাদেশের আইন শিক্ষার্থীদের সর্ববৃহত সংগঠন বঙ্গবন্ধু আইন ছাত্র পরিষদ।

সংগঠনের সভাপতি ও বঙ্গবন্ধু আওয়ামী আইনজীবী পরিষদ কেন্দ্রীয় সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির সদস্য এ্যাডভোকেট মোঃ শহীদুল ইসলাম টিটুর সভাপতিত্বে এবং সংগঠনের সাধারন সম্পাদক এ্যাডভোকেট মোঃ জিয়াউল হক চৌধুরী বাবুর সঞ্চালনায় মানব বন্ধনে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন আপীল বিভাগের অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতি এইচ, এম সামসুদ্দীন চৌধুরী মানিক। প্রধান অতিথি তার বক্তব্যে, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর বিদেশে পলাতক খুনিদের দেশে ফিরিয়ে এনে রায় বাস্তবায়ন করার লক্ষে বাংলাদেশের একজন অবসরপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতিকে নিয়ে একটি কমিশন করার কথা বলেন এবং পলাতক খুনিদের প্রশ্রয়দাতা খালেদা জিয়া ও তার ছেলে তারেক জিয়াকেও বিচারের আওতায় আনার জন্য সরকারের কাছে দাবী জানান।

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পদ্মা সেতুর আইন উপদেষ্টা এ্যাডভোকেট আব্দুন নূর দুলাল, ট্যাক্স বারের সাবেক সভাপতি এ্যাডভোকেট মোঃ এহছান, এ্যাডভোকেট মোঃ আলাউদ্দিন, এ্যাডভোকেট মোঃ সাইফুল বারি, এ্যাডভোকেট গৌরী শঙ্কর চন্দ্র, এএজি এ্যাডভোকেট আলতাফ হোসেন আমানি, এএজি এ্যাডভোকেট কালিপদ মৃধা, এএজি এ্যাডভোকেট হাতেম আলি, আব্দুল আজিজ সহ সংগঠনের কেন্দ্রীয়, ঢাকা মহানগর উত্তর, দক্ষিন সহ বিভিন্ন ইউনিটের নেতৃবৃন্দরা।

মানব বন্ধনে সংগঠনের সভাপতি এ্যাডভোকেট মোঃ শহীদুল ইসলাম টিটু তার বক্তব্যে বলেন, ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট জাতির পিতাকে সপরিবারে নৃশংসভাবে হত্যা করে বিশ্বাস ঘাতক খুনিরা। দীর্ঘদিন সেই খুনিরা রাষ্ট্রীয়ভাবে পূনর্বাসিত হলে পরবর্তীতে জননেত্রী শেখ হাসিনার সরকার সেই খুনিদের বিচারের আওতায় এনে খুনিদের সর্বোচ্চ শাস্তির ব্যবস্থা করেছিল। কিন্তু এখনো কিছু খুনি বিদেশী রাষ্ট্রে পলাতক আছে। এখন তাদেরকেও দেশে ফিরিয়ে এনে বিচারের মধ্যদিয়ে সর্বোচ্চ শাস্তির ব্যবস্থা করতে হবে এবং বঙ্গবন্ধুর খুনিদের পৃষ্ঠপোষক হিসেবে বিএনপি নেত্রী খালেদা জিয়া ও তারেক জিয়ারও বিচার দাবি করেন তিনি।

বঙ্গবন্ধু আইন ছাত্র পরিষদের সাধারণ সম্পাদক এ্যাডভোকেট মোঃ জিয়াউল হক চৌধুরী বাবু তার বক্তব্যে বলেন বঙ্গবন্ধুর খুনিদের মধ্যে কয়েকজন বিদেশী রাষ্ট্রে পলাতক আছে। দ্রুততম সময়ের মধ্যে তাদেরকে দেশে ফিরিয়ে এনে বিচারের মধ্যদিয়ে সর্বোচ্চ শাস্তির ব্যবস্থা করতে হবে এবং বঙ্গবন্ধুর খুনিদের যারা শেল্টার/ প্রশ্রয় দিয়েছিল সেই খালেদা জিয়া ও তার ছেলে তারেক জিয়াকেও আইনের আওতায় আনার জন্য এবং জাতির পিতার পলাতক খুনিদের দেশে ফিরিয়ে আনার লক্ষে আন্তর্জাতিক ভাবে কাজ করার নিমিত্তে বিচারপতি এইচ এম শামসুদ্দিন চৌধুরী মানিককে বিশেষ দায়িত্ব দেবার জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর প্রতি দাবি জানান। তিনি আরো বলেন, শিক্ষা, শান্তি, শৃংখলা ও ন্যায়নীতি শ্লোগানকে ধারণ করে বঙ্গবন্ধুর আদর্শ এবং জননেত্রী শেখ হাসিনার পৃষ্ঠপোষকতায় বঙ্গবন্ধু আইন ছাত্র পরিষদের নেতা-কর্মীরা নিঃস্বার্থভাবে দলের জন্য কাজ করে যাচ্ছে।

মানব বন্ধনে এসময় উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় সংসদের সহ-সভাপতি মাহমুদুল ইসলাম জিতু, এ্যাডভোকেট মোঃ হাসানুজ্জামান তুসার, এ্যাডভোকেট মোঃ মুজাম্মেল, যুগ্ম-সাধারন সম্পাদক এডভোকেট মোঃ নাদিম মাহমুদ, সাংগঠনিক সম্পাদক এ্যাডভোকেট মোঃ রবিউল আলম জুয়েল, গ্রন্থাগার সম্পাদক এ্যাডভোকেট কাজী হাসিবুজ্জামান হাসিব, আইন সম্পাদক এ্যাডভোকেট মোঃ নূরে আলম সিদ্দিকী রিপন, আন্তর্জাতিক সম্পাাদক এ্যাডভোকেট মোঃ হারুনর রশীদ, বিজ্ঞান ও গবেষনা বিষয়ক সম্পাদক এ্যাডভোকেট এইউজেড সবুজ, ঢাকা মহানগর উত্তরের সভাপতি ও কেন্দ্রীয় সংসদের ত্রান বিষয়ক সম্পাদক মোঃ আবু হানিফ সরকার, দক্ষিনের সভাপতি মেফতাহুর রহমান তায়েফ, সাধারণ সম্পাদক এস, এম আলমগীর হোসেন, কেন্দ্রীয় সহ-সম্পাদক এ্যাডভোকেট মোঃ রেজাউল করিম, রঞ্জিত শাহা রনি, মোঃ মিজানুর রহমান ভুইয়া, কেন্দ্রীয় সদস্য আকবর লিমন, সুমাইয়া অর্পা, সোহাকুল ইসলাম রনি, এ্যাডভোকেট মোঃ সাহাদাত হোসেন রিয়াদ, এ্যাডভোকেট গাজী রাকিবুল ইসলাম, এ্যাডভোকেট মোঃ আতিকুর রহমান, এ্যাডভোকেট মোঃ সোহাগ, মোঃ আনিসুর রহমান, কাজি মোস্তাফিজুর রহমান জুয়েল, ঢাকা মহানগর উত্তরের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক রায়হান খন্দকার, সাংগঠনিক সম্পাদক চৌধুরী তানভীর আহম্মেদ, মেট্রপলিস আইডিয়াল ল কলেজের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ রায়হান হোসেন রাফি, সিটি ল কলেজের সভাপতি হেলাল, সাধারণ সম্পাদক শহিদুল ইসলাম, সাংগঠনিক সম্পাদক স্বপন ইভা, বাবলু মোল¬া, মাসুম, ইমন, জাতীয় আইন কলেজের সভাপতি সৈয়দ মোহাম্মদ সাকিল, সহ-সভাপতি আদিল, মৌটুসি, সাধারন সম্পাদক চেঙ্গগিস খান রাজু, সেন্ট্রাল ল কলেজের সভাপতি বিপ্ল¬ব, সাধারন সম্পাদক মোঃ কিরামত আলি সর্দার, সাংগঠনিক সম্পাদক মনসুর, তাপস, গাজিপুর জেলার সভাপতি মোঃ আনিসুর রহমান, গাজিপুর মহানগর সভাাপতি এ্যাডভোকেট মোঃ আবুল কালাম, সাধারণ সম্পাদক শাহাজান, সিটি ইউনিভার্সিটির সাধারণ সম্পাদক রাইয়ান চৌধুরী, কামরুল, পপি, গোপালগঞ্জ জেলার সভাপতি সোলেমান, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়, অতীশ দীপংকর বিশ্ববিদ্যালয়, ইস্ট ওয়েস্ট ইউনিভার্সিটি, মেট্রপলিস আইডিয়াল ল কলেজ, ডেফোডিল ইন্টারন্যাশানাল ইউনিভার্সিটি, উত্তরা ইউনিভার্সিটি, ইবাইস বিশ্ববিদ্যালয়, ডেফোডিল ইন্টারন্যাশানাল ইউনিভার্সিটি, গাজিপুর জেলা, গাজিপুর মহানগর, গাজিপুর ল কলেজ, শরিয়তপুর জেলা, গাইবান্দা জেলা, ন্যাশনাল ল কলেজ, সেন্ট্রাল ল কলেজ, নিউ এরা ল কলেজ, আইডিয়েল ল কলেজ, মিরপুর ল কলেজ, উত্তরা ল কলেজ, ডেমরা ল কলেজ, ধনিয়া ল কলেজ, মেট্রপলিস আইডিয়াল ল কলেজ, মানিকগঞ্জ, মুন্সিগঞ্জ, ঝালকাঠি জেলা সহ বিভিন্ন ইউনিটের নেতৃবৃন্দ।

Top