রামুতে আওয়ামীলীগ পরিবারের লাখ টাকার সুপারী বাগান কেটেছে সন্ত্রাসীরা

55692880_314244799149981_4875223583917342720_n-1.jpg

দিদারুল আলম জিসান)কক্সবাজার :
কক্সবাজার রামু উপজেলার ফতেখারকুল ইউনিয়নের লম্বরী পাড়ায় ফরিদুল আলমের বসত ভিটায় জোরপূর্বক প্রবেশ করে লাখ টাকার কঁচি সুপারী বাগান কেটে সাবাড় করে দিয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে একই এলাকার আব্দুল্লাহ বাহীনীর বিরুদ্ধে।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, ২৪ মার্চ রাত আনুমানিক ২ ঘটিকার সময় ঐ এলাকার আওয়ামীলীগ নেতা ফরিদুল আলম এর বসত ভিটায় জোরপূর্বক প্রবেশ করে একই এলাকার মোঃ আলম এর ছেলে আব্দুল্লাহ ও তার বাহিনীর ৮-১০ জন সন্ত্রাসী তান্ডব চালিয়ে ১৫ শতক জমিতে চাষ করা সুপারী বাগান কেটে রাতের আঁধারে পালিয়ে যায়।স্হানীয় লোকজন জানান, আব্দুল্লা ও তার লালিত বাহীনিরা এলাকার ত্রাশ। দীর্ঘদিন যাবৎ এলাকায় সন্ত্রাসের রাজত্ব কায়েম চালিয়ে আসছে। তাদের ভয়ে কেউ মুখ খুলতে সাহস পায়না। এলাকায় দখলবাজি, চাঁদাবাজি, চুরি ডাকাতি সহ ভয়ংকর অপরাধের সাথে জড়িত। এমন কি টাকার জন্য আব্দুল্লাহ গংরা মানুষও খুন করতে দ্বিধাবোধ করেনা।আইনকে বৃদ্ধঙ্গুলি দেখিয়ে প্রভাব কাটিয়ে প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়ায়। ঐ এলাকায় তাদের আইন চলে। উল্লেখিত সন্ত্রাসীদের জন্য পুর্বেও রামু থানায় অভিযোগ আছে। এটা তাদের কাছে নতুন কিছুই না বলে একাদিক সূত্রে পাওয়া। আওয়ামীলীগ নেতা ফরিদুল আলম সহ আরো অনেকে আব্দুল্লাহ বাহিনীর হাতে নির্যাতনের শিকার হওয়া লোকজন প্রশাসনের সহযোগীতা চেয়ে বলেন,এই সন্ত্রসাী বাহিনীর বিরুদ্ধে গ্রেফতার পুর্বক আইনানুগ ব্যবস্হা গ্রহনের জন্য জোরদাবি জানান।এবিষয়ে রামু থানার অফিসার ইন্চার্জ মোঃ আবুল মনসুর জনান,অপরাধী যতই শক্তিশালী হোক আইনের উর্ধ্বে নই।আইনের নিকট হার মানতে হবে।নির্যাতিত পরিবারের কাছ থেকে লিখিত অভিযোগ পেলেই আইনগত ব্যাবস্হা গ্রহন করা হবে।

Top