উখিয়ায় লাকড়ি চুরির অপরাধে ২ শিশুকে নির্যাতন

IMG_20190322_013324.jpg

জাহেদ হাসান: উখিয়া উপজেলার পালংখালী ইউনিয়নের ভাদিতলা গ্রামে লাগড়ি চুরের অপরাধে গাছের সাথে বেধে দুই শিশুকে বেধড়ক মারধর ও নির্যাতন করে এক নরপশু।

উখিয়া উপজেলার বিভিন্ন স্হানে চলছে অবৈধ সৌমিল। ফলে দিন দিন উজাড় হয়ে যাচ্ছে বনবিভাগ। প্রশাসনকে বৃদ্ধঙ্গুলি দেখিয়ে বনের কাঠ বিক্রি করে হাতিয়ে নিচ্ছে লাখ লাখ টাকা। তথ্য সূত্রে, গত বুধবার সকালে রাস্তাদিয়ে হেটে আসার যাওয়ার সময় এক পপথচারী শুনে বাচ্চাদের কান্নাকাটি।বাচ্চাদের কান্নাকাটির আওয়াজ শুনে ঘটনাস্হলে গিয়ে দেখে পালংখালীর ভাদিতলী গ্রামে লাগড়ি চুরির অপরাধে দুই শিশুকে গাছের সাথে বেধে বেধড়ক মারধর করছে স্হানীয় অবৈধ কাঠ মিলের মালিক রোহিঙ্গা পাহারাদার হোসেন আহমদ প্রকাশ (দলাইয়াবা)।

কাঠ মিলের পাহারাদার হোসেন আহমেদ কে, কেন মারছেন এই শিশুদের এমন প্রশ্ন করা হলে প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, এরা দুই জন লাগড়ি চুরি করেছে,এরা প্রায় কয়েক দিন ধরে লাগড়ি চুরি করে নিয়ে যায় , সন্ধা হলে লাগড়ির জন্য আসে এরা, আজকে যদি শাস্তি দেওয়া হয় আগামীতে এই কাজ আর করবে না।
দেখা যায়, শিশুদের রশি দিয়ে বেধে রাখা হয়। পরে স্হানীয় লোকজন রাস্তা দিয়ে যাওয়ার সময় শিশুদের কান্নার চিৎকার শুনে জড়ো হয় তারা শিশু দুটিকে পাহাদারের হাত থেকে উদ্ধার করে অবিভাবকদের কাছে দিয়ে আসেন।

এই বিষয় স্হানীয় নুরুল হক মেম্বারকে অবগত করা হলে তিনি বলেন, এই কাঠ মিলের মালিক একজন রোহিঙ্গা তাই সে রোহিঙ্গাদের বেলা এমনি লাকড়ি দেন। কিন্তু স্হানীয়দের নির্যাতন করে।এই নির্যাতনের বিষয়ে দ্রুত কঠোর পদক্ষেপ নিবেন।

Top