ইসলামপুরে দু’পক্ষের সংর্ঘষে মহিলাসহ আ’লীগ-বিএনপি’র ৭ নেতাকর্মী আহত

download-1-6.jpg

রোকনুজ্জামান সবুজ জামালপুর ঃ
আওয়ামী লীগ-বিএনপি বির্তকে জামালপুরের ইসলামপুর উপজেলায় দু’পক্ষের সংর্ঘষ হয়েছে। এতে মহিলাসহ আ’লীগ ও বিএনপি’র অন্তত ৭ নেতাকর্মী আহত হয়েছে। গত বুধবার বিকালে ইসলামপুর উপজেলার চরপুঁটিমারী ইউনিয়নের বেনুয়ারচর বেপারী পাড়ায় সংর্ঘষের এ ঘটনাটি ঘটে। সরেজমিনে জানা যায়, ঘটনার দিন বিকালে স্থানীয় মিরছাপ আলীর মনহারী দোকানের সামনে আ’লীগ-বিএনপি নিয়ে বির্তকের সৃষ্টি হয়। এক পর্যায়ে স্থানীয় মৃত আব্দুস ছামাদের ছেলে নেদা মিয়ার সাথে মজিবর মিয়ার ছেলে মুকুল, মিস্টার, নুরনবী মেম্বারের ছেলে টমাস এর মধ্যে বিরোধের সৃষ্টি হয়। মহুর্তের মধ্যে সংঘর্ষের রূপ নেয়। নেদা মিয়ার বাড়িতে হামলা চালিয়ে কয়েকটি টিনসেড ঘরের বেড়া ভাংচুর করা হয়। এ সময় নারী-পুরুষসহ আ’লীগ ও বিএনপির অন্তত ৭ নেতাকর্মী আহত হয়। আহতরা হলো- আ’লীগ নেতা নেহার আলীর ছেলে ইয়াসিন (৪০), আব্দুস ছামাদ মন্ডলের ছেলে আলামিন (৩০), নেদার মন্ডলের মেয়ে আংগুরী বেগম (২০)। এদের মধ্যে গুরুত্বর আশঙ্কা অবস্থায় আংগুরী বেগমকে ভর্তি করা হয়েছে শেরপুর জেনারেল হাসপাতালে। অপদিকে আহতরা হলো- বিএনপি নেতা লালমিয়া মাস্টার (৭০), তার মেয়ে শীলা (২৫), শিরিন (৩৫), আব্দুর রহিমের স্ত্রী ফাহি বেগম (৪৫) এদের মধ্যে বিএনপি নেতা লালমিয়া মাস্টারের অবস্থা গুরুত্বও হওয়ায় তাকে ভর্তি করা হয়েছে জামালপুর জেনারেল হাসপাতালে। বাকিদেও বিভিন্ন স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। নেদার মন্ডলের বড় ভাই বেলাল মন্ডলের স্ত্রী মালেছা বেগম জানান, আসন্ন শ্রীবরদী উপজেলা পরিষদের নির্বাচনে নৌকা ও স্বতন্ত্র প্রার্থীর মধ্যে জয়-পরাজয় নিয়ে স্থানীয় বিএনপি ও আ’লীগ নেতাকর্মীদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। এক পর্যায়ে বিএনপি সমর্থকরা হামলা চালিয়ে আমাদের বাড়ি ঘর ভাংচুর করে। বিএনপি নেতা লালমিয়া মাস্টার দাবি করেন, তাকে অযথা মারধোর করা হয়েছে। ইসলামপুর থানার ওসি মো. আসলাম হোসেন জানান, আমি নিজে একদল পুলিশ নিয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্ষণ করেছি। ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত চলছে।

Top