এমন ডাকসু নির্বাচন কি আমরা চেয়েছিলাম?

received_578841799265561.jpeg

নিগার সুলতানা সুপ্তি,ঢাবি ;

সুদীর্ঘ ২৮ বছর পর ডাকসু নির্বাচন! প্রত্যাশা তাই একটু বেশীই। তবে এ কথাও সত্য যে, নির্বাচিত প্রতিনিধিদের হাতে কোনো আলাদীন এর চেরাগ থাকবে না যে আমাদের প্রত্যাশাগুলো নিমিষেই পূরণ করে দিবেন। তবে দীর্ঘদিনের অচলায়তন ভেঙে নতুন ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন হবে সেই প্রত্যাশা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এর প্রত্যেকটি শিক্ষার্থীর। নানা জল্পনা কল্পনার অবসান ঘটিয়ে গত ১১ মার্চ,২০১৯ তারিখ সোমবার অনুষ্ঠিত হয়েছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু)নির্বাচন।

সকাল থেকে উৎসবমুখর পরিবেশে ভোট শুরু হওয়ার কথা থাকলেও বাস্তবে সেই দৃশ্য চোখে পড়ে নি কারও।কারণ,ভোট গ্রহণের শুরু থেকেই দেখা গেছে নানা অনিয়ম আর বিশৃঙ্খলা। ভোট গ্রহণের শুরু থেকে ভোটার লাইনে বিভ্রাট,ব্যালট বাক্স ভর্তি,আগে থেকে ভোট দেওয়া ব্যালট বাক্স উদ্ধারসহ নানা অভিযোগ। দীর্ঘসময় লাইনে দাঁড়িয়েও ভোট দিতে না পারার ক্ষোভ রয়েছে অনেক শিক্ষার্থীর। আবার যারা ভোট দিয়েছেন তাদের মধ্যেও ছিল নানা উদ্বেগ আর উৎকণ্ঠা। আদৌ কি তাদের মতামতের প্রতিফলন ঘটবে সে ব্যাপারে ছিলেন সন্দিহান।

এখন প্রশ্ন হলো আমরা কি এমন ডাকসু নির্বাচন চেয়েছিলাম? যার শুরু থেকে শেষ অবধি ছিল অভিযোগে ভরপুর।অস্বচ্ছ ব্যালট বাক্স, নির্বাচন কেন্দ্র হলগুলোতে হওয়ায় ছাত্রলীগের একক আধিপত্য, রেজিস্টার বিল্ডিং থেকে হলগুলোর দূরত্ব কাছে হওয়া সত্ত্বেও আগের রাতে ব্যালট বাক্স পাঠানোসহ রয়েছে নানা ক্ষোভ। যার প্রতিফলন দেখা গেছে ১১ মার্চ ডাকসু নির্বাচনে। নির্বাচনে কারচুপির এ ঘটনাগুলোর জন্য প্রশাসনিক দুর্বলতাকেই প্রধান কারণ হিসেবে মন্তব্য করছেন শিক্ষার্থীসহ বিশেষজ্ঞরাও। চিফ রিটার্নিং কর্মকর্তাও এই নির্বাচনের অননিয়মে বিব্রত বোধ করার কথা জানিয়েছেন।

সরকার সমর্থিত দল ছাত্রলীগ এবং অন্যান্য প্যানেলের নানা অভিযোগ আর পাল্টা অভিযোগের চাপে পিষ্ট হচ্ছেন সাধারণ শিক্ষার্থীরা। ক্যাম্পাসে বিরাজ করছে অস্থির আবহাওয়া। মূলত সাধারণ শিক্ষার্থীদের অধিকার আদায়েই ডাকসুর প্রয়োজনীয়তা। তাই অভিযোগ আর বিশৃঙ্খলতা থেকে বেড়িয়ে এসে সুষ্ঠু নেতৃত্বের বিকাশ সাধনের মাধ্যমে বিশ্ববিদ্যালয়ের যাবতীয় সমস্যা সমাধানে কার্যকর ভূমিকা রাখতে হবে। আর সে ব্যাপারে প্রশাসনের সুদৃষ্টি কামনা করছি।আশা করি অচিরেই এ সমস্যার অবসান ঘটিয়ে জ্ঞান চর্চার মুক্ত কেন্দ্র হিসেবে গড়ে তুলতে পারব আমাদের প্রাণের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়কে।

———–
নিগার সুলতানা সুপ্তি
প্রাণিবিদ্যা বিভাগ
রোকেয়া হল
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়।

Top