দেওয়ানগঞ্জে রাস্তা বন্ধ করে সীমানা প্রাচীর নির্মাণে অর্ধলক্ষাধিক মানুষ দূর্ভোগে

Jamalpur-pic-13-02-19-04-Copy.jpg

রোকনুজ্জামান সবুজ জামালপুর ঃ

দেওয়ানগঞ্জ উপজেলা পরিষদ চত্বরের সীমানা প্রাচীর নির্মাণে শত বছরের পুরনো পাকা রাস্তা বন্ধ করেছে উপজেলা প্রশাসন। এতে জাইকার অর্থায়নে তিন কোটি ব্যয়ে নির্মাণাধীন রাস্তার উন্নয়ন কাজে বাঁধা সৃষ্টি এবং দেওয়ানগঞ্জ পৌর কর্তৃপক্ষের আপত্তি ও অর্ধলক্ষাধিক মানুষের যাতাযাতের দুর্ভোগ উপেক্ষা করা হয়েছে। এছাড়াও রাস্তাটি বন্ধে উপজেলা পরিষদ সীমানা প্রাচীর সংলগ্ন স্থানীয় সহস্রাধিক পরিবার নিরাপত্তা ঝুকিতে পড়েছেন। ওই রাস্তাটি অবিলম্বে খোলে দেওয়ার দাবীতে বুধবার সন্ধায় বিক্ষোভ মিছিল করেছেন এলাকাবাসী।
সরেজমিন ঘুরে জানাগেছে, জামালপুরের দেওয়ানগঞ্জ পৌরসভার বেলতৈল বাজার মোড় থেকে দেওয়ানগঞ্জ রেলষ্টেশন ও উপজেলা পরিষদ চত্বর হয়ে একে মেমোরিয়াল কলেজ মোড় পর্যন্ত প্রায় দুই কিলোমিটার দীর্ঘ শত বছরের পুরনো একটি পাকা রাস্তা রয়েছে। এই রাস্তাটি উপজেলা পরিষদ চত্বরের উত্তর অংশ দিয়ে দেওয়ানগঞ্জ কলেজ মোড়ে মিলিত হয়েছে। স¤প্রতি ওই রাস্তার মাঝপথে উপজেলা পরিষদ চত্বরের সীমানা প্রাচীর নির্মাণ করে রাস্তাাটি বন্ধ করে দিয়েছে দেওয়ানগঞ্জ উপজেলা প্রশাসন। এতে অন্তত: ১৫টি গ্রামের অর্ধলক্ষাধিক মানুষের যাতায়াতে সহজ পথ বন্ধ হয়েছে এবং স্থানীয় সহস্রাধিক পরিবার নিরাপত্তা ঝুকিতে পড়েছেন।
দেওয়ানগঞ্জ উপজেলা আ’লীগের সহ-সভাপতি স্থানীয় সমাজসেবক মজিদুল হক জানান, ইসলামপুরের পাথর্শী, মলমগঞ্জ, শ্বশারিয়াবাড়ি, মোরাদাবাদ এবং দেওয়ানগঞ্জের চরভবশুর, বরখাল, ফুটানিবাজার, চিকাজানি ও চুনিয়াপাড়া এলাকা সমূহের অর্ধলক্ষাধিক মানুষ স্বাধীনতার পূর্ব থেকেই এই সড়কে যাতায়াত করতো। তারা এই সড়কেই দীর্ঘদিন যাবত দেওয়ানগঞ্জ উপজেলা পরিষদ, একেএম কলেজ, দেওয়ানগঞ্জ বাজার, রেল ষ্টেশন ও উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে যাতায়াত করতেন। আরওআর এবং বিআরএস রেকর্ডভুক্ত এই সড়কটি সম্প্রতি অন্যায়ভাবে সীমানা প্রাচীর নির্মাণে বন্ধ করা হয়েছে।
দেওয়ানগঞ্জ পৌর কাউন্সিলর নুরে আলম সিদ্দিকী জুয়েল জানান, দেওয়ানগঞ্জ বাজার ও পোল্লাকান্দি রোডে যাতায়াতের জন্যও এই সড়কটি স্বাধীনতার বহু পূর্ব থেকেই ব্যবহার করে আসছিল স্থানীয় অর্ধ লক্ষাধিক মানুষ। সড়কটি বন্ধ করায় নিরাপত্তা ঝুকিতে পড়েছেন উপজেলা পরিষদ সীমানা এলাকার প্রায় ৫শ পরিবার। এছাড়াও যাতায়াতের দুর্ভোগে পড়েছেন ইসলামপুরের পাথর্শী ইউনিয়ন ও দেওয়ানগঞ্জ পৌরসভার অন্তত: ১৫টি গ্রামের অর্ধলক্ষাধিক মানুষ।

দেওয়ানগঞ্জ উপজেলা পরিষদ চত্বরের সীমানা প্রাচীর সংলগ্ন এলাকার বাসিন্দা স্কুল শিক্ষিকা রাশেদা ফেরদৌসি বলেন, আমরা এই এলাকার প্রায় ৫শ পরিবারের মানুষ উপজেলা পরিষদের রাস্তা দিয়েই দীঘদিন যাবত যাতায়াত করছি। এখন অন্যায়ভাবে সরকারী ম্যাপের রাস্তাটি বন্ধ করে দেওয়ায় আমাদের নিজ বাড়ি থেকে প্রায় তিন কিলোমিটার ঘুরে দেওয়ানগঞ্জ থানা, বাজার ও নিজ বাড়ী সংলগ্ন উপজেলা পরিষদে যেতে হবে। একই এলাকার বাসিন্দা শিক্ষার্থী ফারজানা ইসলাম, শিক্ষার্থী মাইশা আঞ্জুমান এবং স্থানীয় সমাজ সেবক মাহমুদুল ইসলাম এর সাথে কথা হলে তারা বলেন, আমরা জন্মেরে পর থেকেই উপজেলা পরিষদ সংলগ্ন নিজ বাড়ীতে খুব সুখে শান্তিতে বসবাস করছিলাম এবং পায়ে হেঁটে মাত্র পাঁচ মিনিটে দেওয়ানগঞ্জ উপজেলা চত্বর, কলেজ ও বাজারে যেতে পারতাম। এখন অন্যায়ভাবে আমাদের যাতায়াতের রাস্তা সীমানা প্রাচীর দিয়ে বন্ধ করা হয়েছে। আমাদের বাড়িঘর সদ্য নির্মিত সীমানা প্রাচীরের বাইরে পড়ায় এখন আমাদের এলাকায় সন্ধায় পরেই চোর ডাকাত ও মাদক সেবীদের উপদ্রæপ বেড়েছে। এতে আমরা চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি। তাই আমরা অবিলম্বে রাস্তাটি উন্মুক্ত করে দেওয়ার জন্য সংশ্লিষ্ট উর্ধতন কর্তৃপক্ষের জরুরী হস্তক্ষেপ কামনা করছি।
দেওয়ানগঞ্জ পৌরসভার মেয়র শাহনেওয়াজ শাহানশাহ জানান, সম্প্রতি দেওয়ানগঞ্জ পৌর কর্তৃপক্ষের অধীনে জনস্বার্থে জাইকার অর্থায়নে প্রায় তিনকোটি টাকা ব্যয়ে সড়কটি উন্নয়নের কাজ চলছে। অথচ দেওয়ানগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা গোলাম মোস্তফা সম্প্রতি পৌর কর্তৃপক্ষকে না জানিয়ে অন্যায়ভাবে শত বছরে পুরনো এই সড়কটি বন্ধ করে উপজেলা পরিষদ চত্বরের সীমানা প্রাচীর নির্মাণ করছেন। এলাকাবাসীর অনুরোধে জনস্বার্থে রাস্তাটি বন্ধ না করার জন্য তাকে অনুরোধ জানালেও তিনি তাহা উপেক্ষা করে অন্যায়ভাবে সীমানা প্রাচীর নির্মাণে শত বছরের পুরনো পাকা রাস্তাটি বন্ধ করেছেন। এতে স্থানীয় অন্তত: ১৫টি গ্রামের অর্ধলক্ষাধিক মানুষের যাতায়াতের দুর্ভোগ সৃষ্টি হয়েছে। তাই রাস্তাটি অবিলম্বে উন্মুক্ত করে দেওয়ার জন্য সংশ্লিষ্ট উর্ধতন কর্তৃপক্ষের জরুরী হস্তক্ষেপ কামনা করছি।
এব্যাপারে দেওয়ানগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা গোলাম মোস্তফা জানান, দেওয়ানগঞ্জ উপজেলা পরিষদ চত্বর ও উপজেলার বিভিন্ন প্রশাসনিক দপ্তরের নিরাপত্তা নিশ্চিত করার জন্যই উপজেলা পরিষদ চত্বরের ভিতরের রাস্তাটি বন্ধ করে সীমানা প্রাচীর নির্মাণ করা হচ্ছে। তবে ওই রাস্তা দিয়ে য়াতায়াতকারী মানুষের দুর্ভোগ লাঘবের জন্য উপজেলা পরিষদের দক্ষিণ পাশ দিয়ে বিকল্প রাস্তা বের করে দেওয়া হবে বলেও তিনি জানান।

Top