মহেশখালী শাপলাপুর আলিম মাদ্রাসার ৫ ছাত্রীসহ ৮ জন অপহরণ,উদ্ধার ৭

51878983_254594198800583_8964219061743386624_n.jpg

আবু বক্কর ছিদ্দিক, মহেশখালী :

মহেশখালীর উপজেলার ছোট মহেশখালীতে শাপলাপুর আলিম মাদ্রাসার ৫ দাখিল পরীক্ষার্থীসহ ৮ জনকে কৌশলে অপহরণ করে । স্থানীয়দের সহায়তায় ৭ জনকে উদ্ধার করা গেলেও ১জন এখনো নিখোঁজ রয়েছে বলে জানা গেছে । ছোট মহেশখালীর ইউপি সদস্য আব্দুল মন্নান জানান, শাপলাপুর আলিম মাদ্রসার ৫ দাখিল পরীক্ষার্থী পৌরসভার বানিয়ার দোকান এলাকায় ভাড়া বাসায় থেকে পরীক্ষা দিচ্ছিল । ইতিমধ্যে ৫ জনের মধ্যে কলি আক্তার নামে জনৈক ছাত্রীর সাথে ছোট মহেশখালীর আজম নামে এক ছেলের সাথে প্রেমের সম্পর্ক থাকার সুবাধে প্রেমিকের অনুরোধে দাওয়াত খেতে ৬ পরীক্ষার্থী ও বাসার মালিক পারভিন এবং তার শিশুপুত্রসহ ৮ জন ১২ ফেব্রুয়ারী মঙ্গলবার রাত ৮টার দিকে ছোট মহেশখালী আসাদতলী সংলগ্ন এলাকায় যায়। কথিত প্রেমিকসহ কয়েকজন যুবক তাদের পাহাড়ের দিকে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করলে সেখান থেকে কয়েকজন ছাত্রী চিৎকার করে। চিৎকারের শব্দ পেয়ে স্থানীয় লোকজন চেয়ারম্যানের সহায়তায় ৫ ছাত্রী,এক শিশুসহ ৬ জনকে উদ্ধার করলেও ১ছাত্রীকে পাহাড়ের দিকে নিয়ে যায় অপহরণকারীরা। তবে একটি সূত্র জানায়, কথিত প্রেমিকা কলি প্রেমিক আজমের সাথে কোথাও চলে গেছে । মহেশখালী থানার ওসি তদন্ত সফিকুল আলম জানান, শাপলাপুরের ৫ ছাত্রী বানিয়ার দোকান এলাকায় পারভিনের বাড়ীতে ভাড়া থেকে পরীক্ষা দিচ্ছে। তৎমধ্যে কলি নামে এক ছাত্রীর সাথে আজম নামের এক ছেলের প্রেমের সম্পর্ক রয়েছে । কলি প্রেমিক কে নিজের ফুফাত ভাই উল্লেখ করে ৫ ছাত্রী, বাসার মালিক পাশ্ববর্তী এক ছাত্রীসহ ৮ জন পাহাড়ী পথ বেয়ে প্রেমিকের কথামত যাচ্ছিল। এমন সময় অন্যদের সন্দেহ হলে কয়েকজন ছাত্রী চিৎকার দিলে স্থানীয় পাশ্ববর্তী লোকজন গিয়ে ৭ জনকে উদ্ধার করলেও কলি নামে কথিত প্রেমিকাকে উদ্ধার করা সম্ভব হয়নি বলে জানান। সে কি অপহৃত নাকি সেচ্ছায় চলে গেছে তাও জানা যায়নি বলে জানান ।

Top