গ্রামকে শহর করার মেগা উদ্যোগ বাস্তবায়নে কাজ শুরু করেছে সরকার — শিল্পমন্ত্রী

Palash-narsingdi-10-02-2019.jpg

ঘোড়াশাল পলাশ ইউরিয়া ফার্টিলাইজার প্রকল্প (জিপিইউএফপি) পরিদর্শন

মোঃ আক্তারুজ্জামান, পলাশ ঃ
নরসিংদীর পলাশ উপজেলায় ঘোড়াশাল পলাশ ইউরিয়া ফার্টিলাইজার প্রকল্প (জিপিইউএফপি) পরিদর্শন করেছেন শিল্পমন্ত্রী অ্যাডভোকেট নুরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ুন ও প্রতিমন্ত্রী কামাল আহমেদ মজুমদার। আজ রবিবার দুপুরে তাঁরা প্রকল্পটি পরিদর্শন শেষে আলোচনা সভায় অংশ নেন।
পলাশের ঘোড়াশাল পলাশ ইউরিয়া ফার্টিলাইজার কারখানার নতুন মেগাপ্রকল্পের এলাকা পরিদর্শন শেষে ঘোড়াশাল পলাশ ইউরিয়া ফার্টিলাইজার প্রকল্পের আয়োজনে এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে শিল্পমন্ত্রী নুরুল মজিদ মাহমুদ হুমাায়ুন বলেন, বর্তমান সরকারের নির্বাচনী ইশতেহার অনুযায়ী মেগা উদ্যোগে গ্রামকে শহর করার কাজ বাস্তবায়ন শুরু হয়ে গেছে। এরই অংশ হিসেবে দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে বড়, মাঝারি ও ক্ষুদ্র শিল্পকারখানা গড়ে তোলা হবে। আর দক্ষ জনশক্তি তৈরি করতে একটি শিল্প বিশ্ববিদ্যালয় করা হবে।
তিনি আরও বলেন, আজকে আমাদের বছরে প্রায় ১৭ লাখ মে.টন সার আমদানি করতে হয়। জিপিইউএফপি প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হলে আমাদের আর আমদানি নয় বরং রপ্তানির করতে পারব। বর্তমানে পলাশ উপজেলায় ইউএফএফএল ও পিইউএফএফএল নামের যে দুইটি সারকারখানা রয়েছে। এ কারখানা দুটি প্রতি টন ইউরিয়া উৎপাদনে গ্যাসের ব্যবহার, ডাউন টাইম এবং রক্ষণাবেক্ষণ পুনরাবৃত্তির হার অস্বাভাবিক বৃদ্ধির বিষয়টি বিবেচনায় নিয়ে বিসিআইসি পলাশ ইউরিয়া সারকারখানার স্থলে যথাযথ প্রক্রিয়া অনুসরন করে বিল্ডার ফাইনেন্স পদ্ধতিতে দৈনিক ২ হাজার ৮’শ মে.টন (বার্ষিক ৯ লাখ ২৪ হাজার মে.টন) গ্রানুলার ইউরিয়া উৎপাদন ক্ষমতা সম্পন্ন একটি সর্বাধুনিক প্রযুক্তি নির্ভর, শক্তি সাশ্রয়ী ও পরিবেশ বান্ধব সারকারখানা স্থাপন করতে যাচ্ছে।
জিপিইউএফপি’র প্রকল্প পরিচালক মোঃ রাজিউর রহমান মল্লিকের সভাপতিত্বে এ সময় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন শিল্প মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী কামাল আহাম্মেদ মজুমদার, নরসিংদী-২ আসনের সংসদ সদস্য ডাঃ আনোয়ারুল আশরাফ খান দিলীপ, নরসিংদী-৩ আসনের সংসদ সদস্য জহিরুল হক ভূইয়া মোহন, বিসিআইসি’র ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান আমিনুল আহছান, শিল্প মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব জিয়াউল রহমান খান, পলাশ উপজেলা চেয়ারম্যান সৈয়দ জাবেদ হোসেন, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ভাস্কর দেবনাথ বাপ্পি, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শাহরিয়ার আলম ও ঘোড়াশাল পৌর মেয়র মোঃ শরীফুল হক শরীফ প্রমুখ।
জানা যায়, গত ২৪ আগষ্ট ২০১৮ সালে প্রধানমন্ত্রী পিইউএফএফএল এর অভ্যন্তরে একটি নতুন সারকারখানা নির্মানের নির্দেশ প্রদান করলে বিসিআইসি ঘোড়াশাল ও পলাশ সারকারখানার স্থলে একটি উচ্চ ক্ষমতা সম্পন্ন, শক্তি সাশ্রয়ী, আধুনিক প্রযুুক্তি ও পরিবেশ বান্ধব ইউরিয়া ফার্টিলাইজার ফ্যাক্টরী স্থাপনের জন্য পলাশ উপজেলায় ঘোড়াশাল-পলাশ ইউরিয়া ফার্টিলাইজার প্রকল্প (জিপিইউএফপি) নামক একটি মেগা প্রকল্প গ্রহণ করে এবং ২০১৮ সালের ৯ অক্টোবর তা ইসিএনইসিতে অনুমোদিত হয়।
২৮’শ মেঃ টন উৎপাদন ক্ষমতা সম্পন্ন নতুন কারখানা প্রকল্পটি বাস্তবায়নের জন্য বিসিআইসি এবং ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান এম/এস. এমএইচআই, জাপান এবং সিসি সেভেন, চায়না কনসোর্টিয়ামের মধ্যে বাণিজ্যিক চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়। প্রকল্পটির ব্যয় ধরা হয়েছে ১০ হাজার ৪’শ ৬০ কোটি টাকা এবং প্রকল্প বাস্তবায়নের মেয়াদ অক্টোবর-২০১৮ হতে জুন-২০২২ সাল।
বর্তমানে ঘোড়াশাল ইউরিয়া ফার্টিলাইজারে দৈনিক উৎপন্ন হয় ৯’শ মেঃ টন এবং পলাশ ইউরিয়া ফার্টিলাইজারে ৩’শ মেঃ টন সার উৎপাদন হতো। এই ২টি সারকারখানা ভেঙ্গে দক্ষিণ এশিয়ার মধ্যে সর্ববৃহৎ নতুন এই সারকারখানায় দৈনিক ২৮’শ মেঃ টন সার উৎপাদন হবে।

Top