যশোরের কেশবপুরে নাশকতা ও বিস্ফোরক মামলায় ১৮ জনের নামে চার্জশিট

images-3.jpg

আব্দুর রহিম রানা, যশোর ;
যশোরের কেশবপুরে নাশকতা ও বিস্ফোরকদ্রব্য মামলায় ১৮ জনকে অভিযুক্ত করে চার্জশিট দিয়েছে পুলিশ। কেশবপুর থানার এসআই ফজলে রাব্বি মোল্যা তদন্ত শেষে যশোর আদালতে এ চার্জশিট দাখিল করেন। অভিযুক্তরা হলো, কেশবপুর উপজেলার মূলগ্রামের মৃত মিয়াজান সানার ছেলে তোফাজ্জেল হোসেন, তোফাজ্জেল হোসেনের ছেলে এহসানুল কবির, নতুন মূল গ্রামের মৃত আখেজ গাজীর ছেলে আবুল হোসেন আলাল, মৃত আকেশ আলালের ছেলে আব্দুল মান্নান, বারুইহাটি গ্রামের মৃত রিশাদ আলীর গাজীর ছেলে আবুল হোসেন, সাগরদাড়ি গ্রামের আবুল হোসেন সানার ছেলে হাফিজুর রহমান, গৌরিঘোনা গ্রামের দক্ষিণপাড়ার মৃত আবুল কাশেম সরদারের ছেলে শহিদুল ইসলাম, তেঘরি গ্রামের মৃত নওয়াব আলী খাঁ’র ছেলে শাহজাহান, ঝিকরা গ্রামের খলিলুর রহমানের ছেলে আক্তারুজ্জামান, বরণঢালী গ্রামের আরশাদ আলীর ছেলে আশরাফুল ইসলাম, হাসানপুর গ্রামের রজব আলী মাস্টারের ছেলে হাবিবুর রহমান, রামচন্দ্রপুর গ্রামের মৃত মজিদ মাওলানার ছেলে ইমরান হোসেন, কন্দর্পপৃর গ্রামের আব্দুর রশিদ সানার ছেলে ইমরান হোসেন, সরশকাঠি গ্রামের মৃত তাছির উদ্দিন গাজীর ছেলে মুনসুর আলী, বারুইগাটি গ্রামের নওশের আলী মোল্যার ছেলে জালাল উদ্দিন, সাতবাড়িয়া গ্রামের আব্দুল মজিদের ছেলে আব্দুস সামাদ, মণিরামপুরের জয়পুরের এনায়েত আলী মহলদারের ছেলে আলমগীর হোসেন, সাতক্ষীরার তালা উপজেলার মনিরুজ্জামান শেখের ছেলে শরিফুল ইসলাম ও হাজরাকাটি গ্রামের ছবেদ আলীর ছেলে আব্দুল ওয়াদুদ বিপ্লব।
মামলার বিবরণে জানা গেছে, ২০১৭ সালের ১০ নভেম্বর দুপুরে মূলগ্রামের তোফাজ্জেল হোসেনের বাড়িতে আসামিরা নাশকতার উদ্দেশ্যে জড়ো হয়ে গোপন বৈঠক করছে বলে সংবাদ পায় পুলিশ। এসময় ওই বাড়িতে অভিযান চালিয়ে তোফাজ্জেল হোসেন ও তার ছেলে এহসানুল কবিরকে আটক করা হয়। এসময় বেশ কিছু বিস্ফোরিত বোমার সামগ্রি উদ্ধার করা হয়। এঘটনায় এসআই শাহজাহান আহম্মেদ বাদী হয়ে আটক দুইজনসহ অজ্ঞাতনামা আরো ২৫/৩০ জনের বিরুদ্ধে কেশবপুর থানায় মামলা দায়ের করেন। এসআই খান আব্দুর রহমান মামলাটি প্রথমে তদন্ত করলেও পরবর্তীতে তিনি অন্যত্র বদলি হওয়ায় এসআই ফজলে রাব্বি মোল্যা তদন্ত কাজ শেষ করেন। সর্ব শেষ তদন্তে ওই ১৮ জনের বিরুদ্ধে প্রাথমিক সত্যতা মেলায় তাদের বিরুদ্ধে আদালতে এ চার্জশিট দাখিল করেন।

Top