বরিশালে ভুল চিকিৎসায় শিশু মৃত্যুর ঘটনায় তদন্ত কমিটি গঠন

000.jpg

ভুল চিকিৎসায় ছয়মাস বয়সী শিশু রিয়ান হওলাদারের মৃত্যুর অভিযোগ তদন্তে তিন সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠণ করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার বেলা ১২টায় বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালের পরিচালক ডাঃ মোঃ বাকির হোসেন এ তদন্ত কমিটি গঠণ করেছেন। গঠিত কমিটিকে আগামি তিনদিনের মধ্যে রিপোট প্রদানের নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

সূত্রমতে, বুধবার রাতে নগরীর সিএন্ডবি রোড ইসলামপাড়া সড়কের বাসিন্দা রাজমিস্ত্রি আল-আমিন হাওলাদারের ছয়মাস বয়সের শিশু পুত্র রিয়ান হওলাদারের লাশ নিয়ে তার বাবা-মা কোতয়ালী মডেল থানায় উপস্থিত হয়ে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। ফলে শিশু মৃত্যুর বিষয়ে চিকিৎসকের কোন গাফিলতি রয়েছে কিনা তা যাচাই করতে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ এ তদন্ত কমিটি গঠণ করেছেন।

কমিটিতে হাসপাতালের সহকারী পরিচালক (প্রশাসন, অর্থ ও ভান্ডার) ডাঃ মোঃ ইউনুস আলীকে প্রধান করে সার্জারী বহিঃবিভাগের আবাসিক সার্জন ডাঃ সৌরভ সুতার ও শিশু বহিঃবিভাগের আবাসিক চিকিৎসক ডাঃ খান সাইফুল্লাহ পনিরকে সদস্য হিসেবে রাখা হয়েছে। সূত্রমতে, ছয়মাস বয়সের রিয়ান গত ২/৩ দিন ধরে ঠান্ডাজনিত কারণে কাশি ও জ্বরে ভুগছিলো। বুধবার সকালে রিয়ানকে তার মা শেবাচিম হাসপাতালের বহিঃর্বিভাগে চিকিৎসার জন্য নিয়ে যায়। সেখানকার শিশু বিশেষজ্ঞ ডাঃ মাহমুদ হাসান খান তাকে সালটোলিন ইনহেলার ব্যবহারের পরামর্শ দিয়ে ইনহেলারটি ওই চিকিৎসকের ব্যক্তিগত চেম্বার সদর হাসপাতাল রোডের বেস্ট ফার্মেসী থেকে ক্রয়ের পরামর্শ দেন। ওইদিন রাত আটটার দিকে শিশুটির বাবা-মা তাকে নিয়ে ওই ফার্মেসিতে গিয়ে ইনহেলারটি ক্রয় করেন। ওইসময় ওষুধের এক কর্মচারী ইনহেলারটি ব্যবহার করানোর সাথে সাথে শিশু রিয়ান মারা যায়।

শিশুটির বাবা আল-আমিন ও মা শাহানাজ বেগম অভিযোগ করেন, ভুল চিকিৎসায় তাদের শিশু সন্তান মারা গেছে। এরপর তারা শিশু রিয়ানের লাশ নিয়ে থানায় গিয়ে বিচার দাবী করে চিকিৎসকসহ তিনজনকে অভিযুক্ত করে থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

কোতয়ালী মডেল থানার ওসি মোঃ নুরুল ইসলাম পিপিএম জানান, অভিযোগের তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। অভিযুক্ত ডাঃ মাহমুদ হাসান খান বলেন, ভুল চিকিৎসায় নয় বরং চিকিৎসা দিতে দেরি হওয়ায় শিশুটি মারা গেছে।

Top