১৫-২০ রানের আক্ষেপ মাশরাফির

received_573140729765150.jpeg

স্পোর্টস ডেস্কঃ
কোয়ালিফায়ার-১’এ খেলতে পারার সুবিধা একটাই। বিজয়ী দল জিতেই সোজা চলে যায় ফাইনালে। তবে পরাজিত দলের সব শেষ হয়ে যায় না। তাদের আরও একটি সুযোগ থাকে। আজ রাতে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের কাছে ৮ উইকেটে হারের পর মাশরাফির রংপুর রাইডার্সের অবস্থাও ঠিক তাই।

ইমরুল কায়েস, তামিম ইকবাল, এভিন লুইস, এনামুল বিজয়, শামসুর শুভদের কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স চলে গেল ফাইনালে। তাই বলে বর্তমান চ্যাম্পিয়নদের এবারের বিপিএল শেষ হয়ে যায়নি। মাশরাফি বাহিনীর সামনে ফাইনাল খেলার আছে আরও একটি সুযোগ।

ঢাকা ডায়নামাইটস আর চিটাগাং ভাইকিংসের মধ্যকার এলিমিনেটর ম্যাচের বিজয়ী সাকিব বাহিনীর সাথে এখন প্লে-অফ পর্বে খেলা বাকি মাশরাফি বাহিনীর। আগামী পরশু বুধবার ওই লড়াই। যার বিজয়ী কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের সাথে ৮ ফেব্রুয়ারির ফাইনাল খেলবে।

তাই সোমবার রাতের বিজয়ী কুমিল্লা শিবিরে আনন্দ, উচ্ছাস-উল্লাস। কিন্তু রংপুর শিবির তাই বলে নিস্তব্ধ হয়নি। তারা সবাই পরশুর ম্যাচের দিকে তাকিয়ে। তবে আজকের ম্যাচের পোস্টমর্টেমও চলছে। ম্যাচ শেষে প্রেস কনফারেন্সে কথা বলতে এসে রংপুর অধিনায়ক মাশরাফির কণ্ঠেও শুরুতে সেই কথা, ‘আমাদের তো সব শেষ হয়ে যায়নি। আরও একটি ম্যাচ আছে। সেটা যেন আবারও এক সেমিফাইনাল।’

হারের কারণ খুঁজতে গিয়ে মাশরাফির প্রথম ও প্রধান উপলব্ধি, রাতের ম্যাচে শিশির ভেজা উইকেট ব্যাটিংয়ের জন্য আরও সহজ হয়ে যায়। যে কারণে দিনের দ্বিতীয় ম্যাচে রান বেশি ওঠে। সে আলোকে রংপুর অধিনায়ক মনে করেন, তার দলের রানটা কম হয়ে গেছে। মাশরাফির ভাষায়, ‘১৫ থেকে ২০ রান কম হয়ে গেছে।’

শেষ দিকে বেনি হাওয়েল আর রিলে রুশো ৫ ওভারে ৭৪ রান তুলেছেন। তারপরও রান কম? মাশরাফির কাছে আছে তারও সাজানো গোছানো ব্যাখ্যা, ‘আসলে আমরা পাওয়ার প্লে’র ৬ ওভারে অন্তত ১০ থেকে ১৫ রান কম করে ফেলেছি। পাওয়ার প্লে’তে আমাদের রান মোটে ৩৪।

Top