“টপ টিউব “এর সীমানা ছাড়িয়ে যাওয়ার গল্প

IMG_8839.jpg

সানজিদা ইমু ঃ

২০১৭ সালের শেষ দিকে শুরু হয় “টপ টিউব” অ্যাপটির যাত্রা। “টপ টিউব” একটি এন্ড্রয়েড অ্যাপ। ২০১৯ এর জানুয়ারিতে আসে এটার নতুন ভার্সন “টপ টিউব ডাউনলোডার”
যারা ইউটিউবে গান শুনতে ও দেখতে পছন্দ করে তাদের কাছে একটি জনপ্রিয় অ্যাপ হল- “ভিডম্যাট” । এটি একটি চায়না কোম্পানির। এই অ্যাপ থেকে ইউজাররা সহজেই ইউটিউবের যেকোন ভিডিও ডাউনলোড করতে পারে। মূলত এই কারনের জনপ্রিয় এই অ্যাপটি।

ভিডম্যাট অ্যাপটি জনপ্রিয় হলেও ইউজারদের চাহিদা পূর্ণ করতে পারেনি। অনেক ইউজার চায়- ব্যাকগ্রাউন্ডে ইউটিউবের গানটি প্লে হোক। অনেকে আবার এটাও চায়- লকস্ক্রিনেও গান প্লে হোক ।এবং সে সব চাহিদা পূরন করে বাজারে এসেছে “টপ টিউব ডাউনলোডার”।
এক নজরে “টপ টিউব ডাউনলোডার” এর সেরা তিন ফিচার।

১। একটা ক্লিকেই ইউটিউব ভিডিও ডাউনলোড করা যাবে HD video বা Mp3 হিসাবে।

২। লক স্ক্রিনেও ইউটিউব ভিডিও চলবে আবার ফেসবুক বা অন্য অ্যাপ চালানো যাবে একই সাথে টপ টিউব পপ-আপ প্লেয়ারে গান শোনা যাবে।

৩। প্রতিদিন খুঁজে দিবে যেকোন ভাষার সেরা ২৫ গান।-অনেকের ভাষ্যমতে- “অনেক ভাল মানের একটি অ্যাপ, বিশেষ করে পপ-আপ প্লেয়ার আর লক স্ক্রিনে গান শোনার ব্যাপরটা দারুণ।
অ্যাপটি ডেভেলপ করেছেন জুবায়ের হোসাইন। এর আগে তিনি “ভ্যাট চেকার” অ্যাপটি ডেভেলপ করে অনেক প্রশংসিত হয়েছিলেন। মোবাইল অ্যাপ বানিয়ে ক্যারিয়ার গড়ার উদ্যোগে তার একটি ট্রেনিং ইন্সটিটিউট রয়েছে যেটি “জুবায়ের অ্যাপ একাডেমী” নামে পরিচিত। প্রতিষ্ঠানটির প্রধান লক্ষ্য হল- মোবাইল অ্যাপ ডেভেলপম্যান্ট ও এই সেক্টরে ক্যারিয়ার গড়া। এবং প্রতি ব্যাচের সবাই সর্বনিম্ন একটি অ্যাপ ডেভেলপ করবে।

Top