আজ ঝালকাঠি হানাদার মুক্ত দিবস

48275334_532345687237935_3103921767593279488_n.jpg

জাহিদুল ইসলাম পলাশ,ঝালকাঠি প্রতিনিধি।
আজ ৮ডিসেম্বর, ঝালকাঠি হানাদার মুক্ত দিবস। ১৯৭১ এর এই দিনে ঝালকাঠি পাকহানাদার মুক্ত হয়েছিল। বিজয়ের বেশে বীরমুক্তিযোদ্ধারা শহরে প্রবেশ করে। জেলার সর্বত্র আনন্দ উল্লাসে মেতে ওঠে স্বাধীনতাকামী জনতা।
‘৭১ এর ২৭ এপ্রিল ভারী কামান আর মর্টার শেলের গোলা নিক্ষেপ করতে করতে পাক হানাদার বাহিনী ঝালকাঠি শহর দখলে নেয়। এরপর থেকে পাক বাহিনী রাজাকাদের সহায়তায় ৭ ডিসেম্বর পর্যন্ত জেলা জুড়ে হত্যা, ধর্ষণ, লুট আর আগ্নিসংযোগসহ নারকীয় নির্যাতন চালায়। জেলার বিভিন্ন স্থান থেকে প্রতিদিন নিরীহ বাঙালীদের ধরে নির্মম নির্যাতন চালিয়ে পৌরসভা খেয়াঘাট এলাকায় সারিবদ্ধভাবে দাঁড় করিয়ে গুলি করে হত্যা করা হতো। এছাড়া জেলার বিভিন্ন স্থানে অসংখ্য মুক্তিযোদ্ধা ও বাঙালীদে হত্যা করে মাটি চাপা দেওয়া হয়। এর পরেও মুক্তিযোদ্ধাদের প্রবল প্রতিরোধে টিকতে না পেরে ৭ ডিসেম্বর শহরে কারফিউ জারি করা হয়। রাতের আঁধারে পাক বাহিনী ঝালকাঠি ছেড়ে পালিয়ে যায়। মুক্তিযোদ্ধারা ঝালকাঠি থানা ঘেরাও করলে ওসিসহ সকল পুলিশ সদস্য ও কয়েকজন রাজাকার মুক্তিযোদ্ধাদের কাছে আত্মসমর্পণ করে। ৮ ডিসেম্বর মুক্ত হয় ঝালকাঠি। একই দিন পাকহানাদার মুক্ত হয় নলছিটি উপজেলা। নলছিটিতে সকাল ১০টায় শোভাযাত্রা, আলোচনা সভা ও মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। এছাড়াও ঝালকাঠিতে বিকেল চারটায় মুক্তিযোদ্ধা সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু।

Top