পিএমখালীর ছনখোলার রাস্তাটির বেহাল দশা; মেরামত করা জরুরী

IMG_20181012_125649.png

জাহেদ হাসান :
কক্সবাজার সদর উপজেলার পি.এম.খালী ইউনিয়নে ছনখোলা গ্রামটি ১,২ ও ৩ নং ওয়ার্ড নিয়ে গঠিত।এই গ্রামে ছনখোলা বাজার থেকে কুলিয়া পাড়া পর্যন্ত সড়কটি বৃহত্তর ছনখোলা সহ পি.এম.খালী ইউনিয়নের জন্য খুবই গুরুত্বপুর্ণ সড়ক। বর্তমানে এই সড়ক দিয়ে প্রতিদিন ১০ হাজার মানুষ যাতায়ত করে।কিছু ইট বসানো হলেও অাজ পর্যন্ত এ রাস্তাটি সংস্কার বা মেরামতের কোন ব্যবস্থা করা হয়নি।প্রয়োজনীয় সংস্কারের অভাবে রাস্তাটির অনেক জায়গা দেবে গেছে, অনেক জায়গায় ইট একেবারে খসে গেছে।কোন কোন জায়গায় রাস্তার ধস নেমেছে।অনেক জায়গায় রাস্তার মাঝখানে বড় বড় গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। বৃষ্টি হলেই সেই সব জায়গায় পানি জমে।সবমিলিয়ে সংস্কারের অভাবে রাস্তাটি চলাচলের জন্যে অত্যান্ত বিপজ্জনক হয়ে পড়েছে।বর্তমানে এটি যানবাহন চলাচলের পুরোপুরি অনুপযোগী হয়ে পড়েছে।কিছু কিছু CNG এখনো চললেও তা অত্যান্ত কষ্টকর ও ঝুঁকিপূর্ণ। এসব কষ্ট ও অসুবিধা সবচেয়ে বেশি ভোগ করতে হয় ছনখোলা গ্রামের প্রায় ২০,০০০ হাজার জনগনকে।উন্নত যোগাযোগ ব্যবস্থা বর্তমান সরকারে উল্লেগযোগ্য সাফল্য ধরা হলেও এসব গ্রামের লোক পৌরসভা ও কক্সবাজার সদরের পার্শবর্তী হলেও উন্নত যোগাযোগ ব্যবস্থার সুযোগ থেকে বন্ছিত।অথচ এই গ্রামে অল্প সময়ে অালোড়ন সৃষ্টিকারি প্রতিষ্টান ছনখোলা মডেল হাই স্কুল সহ দাখিল মাদ্রাসা, একাধিক সর:প্রাথ:বিদ্যালয়,হিফজ খানা,নুরানি মাদ্রাসা সহ অসংখ্য প্রতিষ্টান রয়েছে।এই রাস্তা সংস্কারের জন্য বর্তমান সাংসদ থেকে শুরু করে উপজজেলা চেয়াম্যান প্রকৌশলীসহ ইউপি চেয়াম্যানকে অনেক অাবেদন নিবেদন করা হয়েছে।অাশ্বাসও কম পাওয়া যাইনি।কিন্তু এ পর্যন্ত বাস্তবে কোনো ব্যবস্থা এখনো গৃহীত হয়নি।কিন্তু তাতে কি হয়েছে এই গ্রামের একদল যুবক বিদ্যুৎ বেগে স্বউদ্যোগে এগিয়ে এসে মানবতার কাতারে দাড়িয়ে অর্থ এবং পরিশ্রম দিয়ে কিছুটা হলেও কষ্ট লাগভ করার চেষ্টা করে যাচ্ছে।এখন এলাকার বৃহত্তর স্বার্থে রাস্তাটি সংস্কার ও মেরামত করা জরুরি ও অপরিহার্য প্রয়োজন হয়ে পড়েছে।

Top