মাতারবাড়ীর চেয়ারম্যান মাষ্টার মোহাম্মদ উল্লাহ’র মুক্তির দাবীতে বিশাল মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ

IMG_20181002_224122.jpg

উপকূলীয় প্রতিনিধি:

মহেশখালী উপজেলার মাতারবাড়ী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও মাতারবাড়ী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মাষ্টার মোহাম্মদ উল্লাহ’র মামলা প্রত্যাহার ও নি:শর্ত্বে মুক্তির দাবীতে গতকাল ২ অক্টোবর মঙ্গলবার বিকাল ২টা থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত মাতারবাড়ী নাগরিক কমিটির ব্যানারে বিশাল মানববন্ধন অনুষ্টিত হয়েছে । অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে ইউনিয়ন পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান মুজিবুর রহমানের সভাপতিত্বে ও মাতারবাড়ী মজিদিয়া সুন্নিয়া সিনিয়র মাদ্রাসা ছাত্রলীগের সভাপতি শাহরিয়ার এর সঞ্চালনায় এ মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশে প্রায় ১০ হাজার নারী-পুরুষের সমাগম ঘটেছে । মানববন্ধনটি ইউনিয়নের রাজঘাট থেকে পুরান বাজার পর্যন্ত সড়কের দু’পাশে নিরবের সাথে নারী-পুরুষরা দাঁড়িয়ে হাতে পোষ্টার পেস্টুন ব্যানার নিয়ে মানববন্ধনে অংশ নেন । তখন মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশে অংশ নেওয়া নারী-পুরুষেরা চেয়ারম্যানের মুক্তি চাই দিতে হবে শ্লোগানে শ্লোগানে মূখরিত করে তুলেন পুরো মাতারবাড়ী । মানববন্ধনে অংশে নেয়া বক্তরা বলেন, চেয়ারম্যান মাষ্টার মোহাম্মদ উল্লাহর জনপ্রিয়তা দেখে ও তাকে ঠপকিয়ে উপরে যেতে না পারায় প্রতিপক্ষের রাজনৈতিক কূশীলদের ইন্ধনে স্থানীয় জিয়াবুল হত্যা মামলায় চেয়ারম্যানকে প্রধান আসামী করা হয়েছে। উক্ত ষড়যন্ত্রমূলক মামলায় চেয়ারম্যান জামিন নিলে পরর্তীতে চেয়ারম্যান হাই কোটের নির্দ্দেশে নিম্ন আদালাতে গিয়ে তার আইনজীবিরা জামিনের প্রার্থনা করলে তাঁর জামিন না মঞ্জুর করে জেলে পাঠিয়েছে আদালত । তিনি জেলে যাওয়ার পর থেকে কিছু স্বার্থন্বেষীমহল এলাকায় একের পর এক আইনশৃখংলার বিঘ্ন ঘটাচ্ছে । এতে সাধারণ জনগনের প্রাণ যায় যায় অবস্থা হয়েছে । চেয়ারম্যানের নিরহ আত্মীয় স্বজনদের পথে পথে ও কক্সবাজার শহরের বাদী পক্ষের দাপুটে লোকজন প্রাণনাশের ও হেনস্থা করার হুমকি দিচ্ছে । এছাড়া মাতারবাড়ীর ২টি কয়লা বিদ্যুৎ প্রকল্পের জন্য অধিগ্রহণকৃত জমিনের মালিকরা তাদের টাকা উত্তোলন করতে প্রয়োজনীয় কাগজপত্রাদি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে পেশ করতে পারছেন না । বক্তরা আরো বলেন, চেয়ারম্যান অনুপস্থিত থাকায় কয়লা বিদ্যুৎ প্রকল্পে কর্মরত কর্মকর্তারা স্বকৌশলে স্থানীয়দের চাকুরীচুৎ করে বহিরাগতদের নিয়োগ দিচ্ছেন । প্রকল্পের জন্য নির্মিত বিভিন্ন অবকাঠামো স্থানীয় ঠিকাদারদের না দিয়ে তাও বহিরাগতদের কাজ দিচ্ছে । উক্ত হত্যা মামলা থেকে অচিরে চেয়ারম্যানের মুক্তি দাবী জানিয়েছেন বক্তারা । মানববন্ধনে অংশে নেয়া নারী-পুরুষ তথা মাতারবাড়ী বাসীকে প্যানেল চেয়ারম্যান মুজিবুর রহমানের মাধ্যমে সালাম জানিয়েছেন এবং দোয়া করতে বলেছেন কারান্তরীণ চেয়ারম্যান মো. উল্লাহ । চেয়ারম্যানের বিভিন্ন গুণাগুণ তুলে ধরতে গিয়ে প্যানেল (চেয়ারম্যান) মুজিবুর রহমান ও সাবেক যুবলীগ নেতা আব্দু ছত্তারসহ অনেকে চেয়ারম্যানের শূন্যতার শোকে ও তার উপকারের কথার স্মৃতি চারণ করতে গিয়ে কেঁদেছেন অঝোঁরে । যারা মানুষকে শান্তনা দেওয়ার কথা তারা কেঁদেছেন । বক্তব্য করার এক পর্যায়ে আবার কান্না আবার থমকে যায় । এভাবে চলে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ । এই কথা তারা মুখে না বললে ও চোখে ফুটে উঠেছে বেদনার ছাপ । এসময় উপস্থিত নারী-পুরুষরাও কেঁদেছেন । অপরদিকে মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন, মাতারবাড়ী ইউনিয়নের সাবেক ইউপি সদস্য ও প্রবীন আওয়ামীলীগ নেতা আলহাজ্ব বশির আহমদ, বিশিষ্ট চিংড়ি ও লবণ ব্যবসায়ী আওয়ামীলীগ নেতা কাউছার সিকদার, সাবেক যুবলীগ নেতা ও বিশিষ্ট ঠিকাদার আব্দু ছাত্তার, ইউনিয়ন পরিষদের প্যানেল (চেয়ারম্যান) ও মানববন্ধন কমসূচীর অনুষ্টানের সভাপতি মুজিবুর রহমান, ছাত্রলীগ নেতা আল মুজিব উদ্দিন রিপন, ইউনিয়ন পরিষদের মহিলা সদস্যা ছকুনতাজ, মাতারবাড়ী ইউনিয়ন পরিষদের সচিব মোহাম্মদ রশিদ, ছাত্র নেতা তারেক প্রমূখ । মানববন্ধনে অংশ নেন যুবলীগ নেতা শানিক , ইউপি সদস্য অালহাজ্ব রিয়াজ উদ্দিন , ইউপি সদস্য অাব্দু রউফ , ইউপি সদস্য শাহাদাত হোছাইন নাছির , ইউপি সদস্য জাহেদুল ইসলাম , মহিলা ইউপি সদস্য শামীমা অাক্তার , কামরুন্নেছা কাজল । তাছাড়া বিশিষ্ট ঠিকাদার আব্দু ছাত্তার, শানিক ও টিপু সার্বক্ষনিক মানববন্ধনটি তদারকি কাজে লিপ্ত ছিলেন । এসময় আ’লীগ যুবলীগ, ছাত্রলীগের বিভিন্ন নেতাকর্মী ও মাতারবাড়ীর সর্বস্থরের মানুষ এ মানববন্ধানে অংশ গ্রহণ করেন । এই বিশাল মানববন্ধনটি মাতারবাড়ী তথা মহেশখালীবাসীর জন্য মাইলফলক হয়ে থাকবে ।

Top