সাবেক প্রধান বিচারপতি এস কে সিনহা’র বিরুদ্ধে মানববন্ধন-

received_267101720607640.jpeg

সিলেট প্রতিনিধিঃ
সাবেক প্রধান বিচারপতি এস কে সিনহার বহুল আলোচিত ‘এ ব্রোকেন ড্রিম’ বইয়ে মণিপুরী সম্প্রদায়কে ‘রাজাকার ও পাকিস্তানপন্থী’ হিসেবে উল্লেখ করার প্রতিবাদে সিলেটে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে।
সোমবার সকালে সিলেট কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের সামনে ‘বাংলাদেশের মণিপুরী জনগোষ্ঠী’র ব্যানারে এ কর্মসূচি পালিত হয়।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, দভানুবিল কৃষক প্রজা আন্দোলন থেকে শুরু করে ব্রিটিশ বিরোধী আন্দোলনসহ বাংলাদেশের মহান স্বাধীনতা সংগ্রামে অংশগ্রহণ করেছে বাংলাদেশের মণিপুরিরা। একাত্তরের মহান মুক্তিযুদ্ধে মণিপুরিদের অংশগ্রহণ ছিল উল্লেখ করার মতো। মাতৃভূমির প্রতি ভালোবাসার অকৃত্রিম টানে অনেক মণিপুরী যুবক জীবনবাজি রেখে অস্ত্র হাতে যুদ্ধ করেছেন, উৎসর্গ করেছেন নিজেদের জীবন। অথচ সাবেক প্রধান বিচারপতি তার স্বপ্নভঙ্গের বইতে মণিপুরিদেরকে ঢালাওভাবে পাকিস্তানপন্থী হিসেবে আখ্যায়িত করেছে যা খুবই দুঃখজনক।’

বক্তারা অবিলম্বে এ বই থেকে মণিপুরিদের সর্ম্পকে অপমানজনক বক্তব্য প্রত্যাহার করার পাশাপাশি বইটি বাজেয়াপ্ত করে এর মূদ্রণ, বাজারজাতকরণ বন্ধ করারও জোর দাবী জানান। অন্যথায় আগামীতে আরো কঠোর আন্দোলনে যাওয়ার হুশিয়ারি উচ্চারণ করেন। মানববন্ধনে মিডিয়াকর্মী ও সচেতন নাগরিকদের এ বিষয়ে বিভ্রান্ত না হওয়ার আহবান জানানো হয়।

মৌলভীবাজার মণিপুরী সমিতির সভাপতি নীলচাদ সিংহের সভাপতিতে মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন বীর মুক্তিযোদ্ধা মনমোহন সিংহ, মানবাধিকার কর্মী লক্ষ্মীকান্ত সিংহ, সংস্কৃতিকর্মী মাইবম উত্তম সিংহ রতন, বাংলাদেশ মণিপুরী সাহিত্য সংসদের সাধারণ সম্পাদক নামব্রম শংকর, মণিপুরী কালচারাল কমপ্লেক্স, মৌলভীবাজারের সদস্য সচিব রবি কিরণ সিংহ রাজেশ, আম্বরখানা মণিপুরী সোসিয়েল ওয়েলফেয়ার এসোসিয়েশনের সভাপতি সজল সিংহ।

সমাজকর্মী ওয়াই সমেন্দ্র সিংহের সঞ্চালনায় মানববন্ধনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন খোইস্নাম পূর্ণিমা দেবী। মানববন্ধনে উপস্থিত থেকে একাত্মতা প্রকাশ করেন সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব অনিল কিষণ সিংহ, ডা. রমেন্দ্র সিংহ রয়েল, শিক্ষাবিদ শৈলেন্দ্র সিংহ, সমাজসেবী মোইরাংথেম ক্ষীর সিংহ, একাডেমী ফর মণিপুরী কালচার এন্ড আর্টসের সভাপতি বিশিষ্ট সাংবাদিক দীগেন সিংহ, সিলেট মণিপুরী কাং এসোসিয়েশনের সভাপতি যুস্নাম নৃপেন্দ্র সিংহ, কবি শেরাম নিরঞ্জন, চিত্রশিল্পী এন যোগেশ্বর অপু, যুবলীগ নেতা শ্যামল সিংহ, আমসফার সম্পাদক প্রবাল সিংহ ও বিভিন্ন কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া শিক্ষার্থীরা।

Top