উখিয়া উপকূলে নতুন বিদ্যুৎ সংযোগ নিয়ে লক্ষ লক্ষ টাকা আত্নসাতের অভিযোগ

images-1.jpg

আনোয়ার হোছাইন,উপকুলীয় প্রতিনিধি :
প্রতি ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ পৌছে দেওয়ার ঘোষনা মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নির্বাচনী ওয়াদা ছিল। তারই অংশ হিসেবে উখিয়া উপজেলার অবহেলিত উপকূলীয় এলাকা ছেপট খালী (আংশিক),মাদারবনিয়া এবং চোয়ান খালী থেকে মোহাং সফির বিল পর্যন্ত নির্বাচনের আগে নতুন বিদ্যুৎ সংযোগ দেওয়ার নির্দেশনা ছিল। অধ্যাবধি বিদ্যুৎ সংযোগ না পাওয়ায় এলাকার মানুষের মধ্যে চাপাক্ষোভ বিরাজ করছে। তার মধ্যে বিদ্যুৎ লাইনের কথা বলে এলাকার কিছু স্বার্থবাদী লোক প্রতি পরিবার থেকে ২০০০টাকা করে দিতে হবে বলে প্রথমে ১০০০ টাকা করে ইতিমধ্যে তুলে ফেলেছে।এতে সরকারের যেমন দুর্নাম হচ্ছে তেমনি জনগনের কয়েক লক্ষ টাকা লোটপাট হওয়ারমত গুরুতর অভিযোগ পাওয়া গেছে।এই লোটপাটের সাথে বি এন পি, এবং জামায়াতের লোকজন জড়িত বলে খবর পাওয়া গেছে।তাদের এই সিন্ডিকেটের সাথে বিদ্যুৎ অফিসের কিছু কর্মকর্তা ও জড়িত আছে বলে ও বিশ্বস্হ সূত্রে খবর পাওয়া গেছে।
স্হানীয়দের মধ্যে মাদারবনিয়া গ্রামের মৌঃমোহাং ইউনুচ,পিতা: মৃত মৌ: ছিদ্দিক আহমদ,মোস্তাক আহমদ পিতা: এখলাছ,মৌ: কাশেম পিতা : মৃত মৌ:এজাহার মিয়া,আবু তাহের পিতা : জমির, মুসিলম পিতা : মোহাং হাসিম, আবদুল্লাহ পিতা : হাজী আবদু জলিল। এদের কাছে এলাকার জনগন এক প্রকার জিম্মি হয়ে আছে। তাদের হাতে টাকা তুলে না দিলে বিদ্যুৎ লাইন পাওয়া যাবে না বলে হুমকি দিয়ে তারা এই টাকা আদায় করতেছে। এই ব্যাপারে উখিয়া পল্লী বিদ্যুৎ অফিসের ডিজিএম এর কাছে জানতে চাইলে ওনি টাকা নেওয়ার কথা জানেননা এবং টাকা নিতে বলেন নাই বলে জানান। এভাবে টাকা নেওয়ার নির্দেশনা বা কোন সিস্টেম আছে কিনা? জানতে চাইলে উখিয়া উপজেলায় ছয়শ কি:মি:এলাকা নতুন বিদ্যুৎ সংযোগ দেওয়ার কিন্তু টাকা নেওয়ার কোন নির্দেশনা বা সিস্টেম নাই এটা আমার চাইতে আপনি ভাল জানেন বলে জানান।
এদিকে এলাকার ভোক্তভোগীদের কাছে জানতে চাইলে মাদার বনিয়ার স্হানীয় মেম্বার প্রার্থী জনাব আবুল কাশেম জানান ঘটনা সম্পূর্ন সত্য, তারা প্রধানমন্ত্রীর সফলতাকে ব্যর্থ করে দেওয়ার জন্য জনগনের কাছ থেকে হুমকি দিয়ে টাকা আদায় করতেছে যাতে সরকারের দুর্নাম হয়। টাকা না দিলে বিদ্যুৎ লাইন দিবে না এই কথা আমাকে ও বলেছে।আবুল কাশেম আক্ষেপ করে বলেন প্রধানমন্ত্রী প্রতি ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ সংযোগ দেওয়ার নির্দেশ দেওয়ায় জনগন খুশি হয়েছিল। কিন্তু টাকা দিয়ে বিদ্যুৎ নিতে হবে এই রকম ঘোষনা ত দেয় নাই। কার নির্দেশে তারা লক্ষ লক্ষ টাকা তুলতেছে তা আমার বোধগম্য নয়। আমি ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের একজন কর্মী হিসেবে তাদের এই নিরব চাঁদাবাজির জোর প্রতিবাদ জানাচ্ছি। সাথে সাথে তাদের বিরুদ্ধে তদন্ত পূর্বক দোষীদের শাস্তির ব্যবস্হা করার জন্য প্রশাসনের কাছে তথা আমাদের “ইউ এন ও” উখিয়া মহোদয়সহ সরকারের কাছে জোর দাবি জানাচ্ছি।

Top