নীলফামারীতে টঙ্গী থেকে অপহৃত শিশু উদ্ধার

Nil.jpg

বখতিয়ার ঈবনে জীবন, নীলফামারী ঃ

গাজীপুরের টঙ্গী থেকে অপহৃত চার বছরের শিশু রাজুকে ৭দিন পর আজ বৃহস্পতিবার ভোর রাতে নীলফামারীর কিশোরগঞ্জ উপজেলা হতে উদ্ধার করা হয়েছে। এ ঘটনায় ৪জনকে আটক করেছে র‌্যাব। র‌্যাব-১৩ এর নীলফামারী সিপিসি-২ এর সূত্র মতে, ময়মনসিংহ জেলার গৌরীপুর থানাধীন সূর্যকোনা গ্রামের শাহেদ মিয়া স্ত্রী সন্তান নিয়ে গাজীপুরের টঙ্গীতে বসবাস করেন। শাহেদ মিয়া পেশায় একজন রং মিস্ত্রি এবং তার স্ত্রী মনিরা আক্তার একজন গার্মেন্টস কর্মী।

গত ১৫ মার্চ উক্ত দম্পতির ৪ বছরের ছেলে রাজু নিখোঁজ হওয়ায় শিশুটির মা মনিরা আক্তার ১৭ মার্চ টঙ্গী মডেল থানায় একটি সাধারণ ডায়েরী করেন। পরবর্তীতে উক্ত শিশুর মা মনিরা আক্তারের সহকর্মী নীলফামারী কিশোরগঞ্জ উপজেলার দক্ষিণ চাঁদখানা সারভাসা গ্রামের বহির উদ্দীনের ছেলে মোস্তাকিম (৩২) মোবাইল ফোনে জানায় যে, তার ছেলেকে অপহরণ করা হয়েছে এবং তাকে ফেরত পাওয়ার জন্য ১ লক্ষ টাকা মুক্তিপন দিতে হবে অন্যথ্যায় তার ছেলেকে হত্যা করা হবে। এরপর মনিরা আক্তার ১৮ মার্চ টঙ্গি মডেল থানায় একটি এজাহার দায়ের করেন। মামলার পর পুলিশ অপহরণকারী অবস্থান নিশ্চিত হয়ে র‌্যাব-১৩ কে বিষয়টি অবগত করা হয়।

এদিকে র‌্যাব-১৩ এর নীলফামারী ক্যাম্পের সদস্যরা বৃহস্পতিবার ভোররাতে অভিযান চালিয়ে ওই গ্রাম থেকে শিশুটিকে উদ্ধার সহ এ ঘটনার সাথে জড়িত থাকায় ৪ জনকে আটক করেন। আটককৃতরা হলেন, দক্ষিণ চাঁদখানা সারভাসা গ্রামের ইসাহাক উদ্দিনের ছেলে বহির উদ্দিন (৬৫), মকবুল হোসেনের ছেলে আমজাদ হোসেন (৪৫), বহির উদ্দিনের ছেলে মোস্তাফিজার রহমান (৩২) ও মশিউর রহমান (২৩)। র‌্যাব-১৩ ক্রাইম প্রিভেনশন কোম্পানী-২’র (সিপিসি-২) কোম্পানী কমান্ডার ও অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোতাহার হোসেন জানান, অপহরণকারীর অবস্থান নিশ্চিতে প্রথমে উত্তরায় র‌্যাব-১ ছায়া তদন্ত শুরু করে। অবস্থান নিশ্চিত হওয়ার পর র‌্যাব-১৩ রংপুরকে বিষয়টি জানালে বৃহস্পতিবার র‌্যাবের অভিযানিক দল সেখানে অভিযান পরিচালনা করেন।

Top