হাতিয়ায় মিথ্যা মামলা দিয়ে শিক্ষক কে হয়রানীর অভিযোগ

29019575_1240995336030890_1336320342_n.jpg

সরোয়ার হোসাইন হৃদয়, হাতিয়া প্রতিনিধিঃ
হাতিয়া চরকিং ইউনিয়নের বাসিন্দা, চর কৈলাস হাদিয়া ফাজিল মাদ্রাসার ইংরেজি শিক্ষক নিশান চন্দ্র দাসের বিরুদ্ধে মিথ্যা নারী নির্যাতন ও শীলতাহানীর মামলা করে হয়রানীর অভিযোগ উঠছে। স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে নিশান চন্দ্রর বিরুদ্ধে আনা অভিযোগকারী তারা বাড়ির বাসিন্দা চর ঈশ্বর রায় দাসের হাট প্রাঃ বিঃ শিক্ষিকা রীতা রানী, নিশান চন্দ্র কে বিয়ের প্রস্তাব পাঠালে রীতা রানীর পরিবার এতে নিশান চন্দ্র রাজী না হওয়া নিশানের নানান ধরেনের মিথ্যা অভিযোগ তোলেন শিক্ষিকা রীতা রানী , স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, রীতা রানীর সাথে তার খালাতো ভাইয়ের সাথেও প্রেমের সম্পর্ক আছে , তারা দীর্ঘ দিন যাবত এক সাথে বসবাস করতেছে। এই ব্যাপারে জানাজানি হয়ে গেলে রিতা রানী ও তার পরিবার মিলে নিশান চন্দ্রর সাথে রিতার প্রেমের সম্পর্ক ও বিয়ে করার আশ্বাস দিয়েছে এমন কথা বলে রটিয়ে দেয়। কিছু দিন পরে প্রভাবশালীদের সহযোগিতায় রীতা রানী নিশান চন্দ্রের পরিবার উপর নান চাপ সূষ্টি করে তাতেও নিশান চন্দ্রও রাজী না হওয়া তার বিরুদ্ধে রীতা রানী হাতিয়া থানায় মামলা করেন। রিতা রানী কিছু দিন আগে ও তার স্কুলের প্রধান শিক্ষক এর অশোভন আচরন ও মিথ্যা অভিযোগ আনেন । অভিযোগের প্রেক্ষিতে প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মাহবুব সাহেব তদন্ত করে রীতা রানি কে সংশোধন হওয়ার নির্দেশ দিয়ে যান। ক্ষোভের প্রেক্ষিতে চলতি মাসের জানুয়ারি ২০ তারিখে তার স্খুলের শিক্ষিকা নিশানের মা প্রবানী বালা উপর আঘাত করেন এতে তার দাত পড়ে যায়, বিষয় টি নিয়ে স্কুলের প্রধান শিক্ষক ও গ্রামের মুরিব্বারা বসলে রীতা রানীকে আর্থিক জরিমানা করেন এবং সালিশের মাধ্যমে ঘটনা মিমাংস করা হয়।
গত ০৯ মার্চ শুক্রবার বিকালে রীতা রানী নিশানের ভাবীর সাথে বিভিন্ন বিষয় নিয়ে হুমকি দেওয়া শুরু করে, তাদের মধ্যে এক পর্যায়ের কথা কাটাকাটিতে রীতা রানী ও তার প্রেমিক খালাতো ভাই তাপস ঘর থেকে দারালো দা এনে নিশানের ভাবী ও মজিব বাজার বে- সরকারী প্রাঃ বিঃ শিক্ষিকা আবূত্তী রানীর উপর আক্রমণ করে এতে আবূত্তী রানীর হাতে আর মাথায় আঘাত লাগে৤ রীতা রানীর হাত থেকে আবূত্তী রানী রক্ষা করতে এসে তার স্বামী টুটুল চন্দ্র দাস ও আঘাত প্রাপ্ত হন । তারা হাতিয়া হাসপাতালে চিকৎসা গ্রহন করেন। এই দিকে রীতা রানী হাতিয়া থানা বিজ্ঞ নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে নিশানকে প্রধান আসামী করে মামলা দায়ের করেন। নিশানের সাথে কথা বলে জানা যায়্ তার প্রেমে আমি না রাজী হওয়া সে বিভিন্ন সময় আমাকে নানান ধরনের হুমকি দিয়ে আসতেছে ,গত ০৯ তারিখে আমি ঘটনাস্থলে সবার শেষে উপস্থিত হই ,আমি কোন ঝগড়া ঝামেলায় যায় নাই, রীতা রানী অহেতুক আমার বিরুদ্ধে শীলতা হানির অভিযোগ তুলেন এবং মিথ্যা মামলা করেন। আমিও আইন কে শ্রদ্ধা করি আমিও তার বিরুদ্ধে আইনের আশ্রয় নিব।

Top