স্ত্রী কর্তৃক দায়েরকৃত যৌতুকের দাবীতে নারী নির্যাতন মামলায় স্বামীর ২বছরের জেল ও ১০ হাজার টাকা অর্থদন্ড

নিউজ নিউজ

এডিটর

প্রকাশিত: ১:৪১ পূর্বাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ৬, ২০২০

আদালত প্রতিবেদক,চট্টগ্রাম :

Advertisement

যৌতুকের দাবীতে এক স্কুল শিক্ষিকাকে নির্যাতনের অভিযোগে দায়ের করা নারী নির্যাতন মামলায় কক্সবাজার জেলার উখিয়া থানাধীন সামশুদ্দিন মাহমুদের পুত্র আহসান উদ্দিন মাহমুদ কে ২ বছরের সশ্রম কারাদন্ড এবং ১০ হাজার টাকার অর্থদন্ডের সাজা প্রদান করেছেন আদালত। অদ্য চট্টগ্রামের বিজ্ঞ নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-১ এর বিচারক মোঃ মশিউর রহমান খান এর আদালত প্রকাশ্যে উক্ত রায় প্রদান করেন। অভিযোগ থেকে জানা যায়, মামলার বাদী একটি স্বনামধন্য বেসরকারী বিদ্যালয়ের জনৈকা স্কুল শিক্ষিকা অভিযুক্ত আসামী আহসান উদ্দিন মাহমুদ সহ ৪জনের বিরুদ্ধে যৌতুকের দাবীতে নির্যাতনের অভিযোগে বিগত ২৮/০২/২০১৫ইং তারিখে নারী শিশু মামলা নং- ১০৩/১৫ দায়ের করেন। মামলা দায়েরের পর আদালতের বিচারকের নির্দেশে জুডিশিয়াল ইনকোয়ারী প্রতিবেদনের আলোকে আহসান উদ্দিন মাহমুদ এর বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ আমলে গ্রহণ করেন। পরবর্তীতে আসামীর বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ এবং দাখিলীয় কাগজপত্র পর্যালোচনা পুর্বক আদালত আসামীর বিরুদ্ধে চার্জ গঠন করেন। চার্জ গঠনের পর মামলার বাদীসহ সর্বমোট ০৫ জন সাক্ষী আদালতে জবানবন্দি প্রদান করেন। আসামীপক্ষে মহামান্য উচ্চ আদালতে কোয়শমেন্ট দায়ের করলে তাও খারিজ হয়। পরবর্তীতে এই মামলায় যুক্তিতর্ক শুনানী শেষে আসামীর বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ সন্দেহাতিত ভাবে প্রমাণিত হওয়ায় বিজ্ঞ আদালত আজ আসামীর বিরুদ্ধে প্রদত্ত রায়ে আসামীকে ২ বছরের সশ্রম কারাদন্ড এবং ১০ হাজার টাকার অর্থদন্ডের রায় ঘোষনা করেন। আসামী আজ আদালতে হাজির না থাকায় আসামীর বিরুদ্ধে আদালত সাজা পরোয়ানা ইস্যুর আদেশ দেন। আসামী জামিনে গিয়ে পলাতক থাকায় গ্রেফতার কিংবা স্বেচ্ছায় আত্মসমর্পণের দিন থেকে সাজার মেয়াদ গণনা ও শুরু হবে। ইতিপূর্বে একই বাদীর করা এক স্ত্রী বহাল থাকাবস্থায় দ্বিতীয় স্ত্রী গ্রহণের অভিযোগে পৃথক (সি.আর মামলা নং-২৪৩/১৫) মামলায় এই আসামীকে ১বছরের বিনাশ্রম কারাদন্ড এবং ১০ হাজার টাকার অর্থদন্ডে দন্ডিত করে রায় দেন মেট্রোপলিটন ম্যাজিষ্ট্রেট ৬ষ্ঠ আদালতের বিচারক মেহনাজ রহমানের আদালত।
বাদী পক্ষে মামলা পরিচালনা করেন এডভোকেট মোঃ খোরশেদ আলম চৌধুরী এবং মানবাধিকার আইনজীবীবৃন্দ- এডভোকেট এ.এম জিয়া হাবীব আহসান,এডভোকেট এ.এইচ.এম জসিম উদ্দিন, এডভোকেট প্রদীপ আইচ দীপু, এডভোকেট দেওয়ান ফিরোজ আহমদ, এডভোকেট সাইফুদ্দিন খালেদ, এডভোকেট মোঃ হাসান আলী, এডভোকেট মোহাম্মদ বদরুল হাসান, এডভোকেট খুশনুদ রাইসা উশিকা প্রমুখ। রাষ্ট্র পক্ষে মামলা পরিচালনা করেন স্পেশাল পিপি জেসমিন আকতার এবং আসামীপক্ষে মামলা পরিচালনা করেন এডভোকেট ছমি উদ্দিন ।